মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ১০:৪২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
নবীগঞ্জে ভিজিএফ’র ২ লাখ টাকা ছিনতাইকারী মনির পুলিশের খাচাঁয় শহরতলীর কাকিয়ারআব্দায় গাইড ওয়াল নির্মাণ ॥ ফুসে উঠেছে এলাকাবাসী মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এগিয়ে যাচ্ছে দেশ-এমপি আবু জাহির নিউইয়র্কে নবীগঞ্জের সন্তান পুলিশ সুপার আব্দুল ওয়াহাবকে সংবর্ধনা নবীগঞ্জের জহুরপুরে সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা ॥ অভিযুক্ত আবু সামা গ্রেপ্তার মাধবপুরে পুলিশের পৃথক অভিযানে গাঁজা ও বিয়ার সহ ৪ জন আটক নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের কার্য নির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত নবীগঞ্জে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলার আসামী আসিফ ৪ মাস পর গ্রেফতার নবীগঞ্জে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধু’র মৃত্যুর ঘটনায় মামলা ॥ স্বামী গ্রেফতার নবীগঞ্জের করাগাও গ্রামের যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সমাজসেবক আব্দুল হাকিমের ইন্তেকাল ॥ বিভিন্ন মহলের শোক
বানিয়াচঙ্গে সম্ভ্রমহারা মৃত তরুণীর প্রেমিক ঝুম্মন আটক

বানিয়াচঙ্গে সম্ভ্রমহারা মৃত তরুণীর প্রেমিক ঝুম্মন আটক

মখলিছ মিয়া, বানিয়াচং থেকে ॥ বানিয়াচঙ্গে সম্ভ্রমহারা মৃত তরুনী সাবিনা’র প্রেমিক ঝুম্মনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গতকাল মঙ্গলবার বানিয়াচং থানার এসআই ফিরোজ আহমেদ এর নেতৃত্বে পলিশ লোহাজুড়ি গ্রামে অভিযান চালিয়ে ঘটনার মুলহোতা প্রেমিক ঝুম্মনকে আটক করেছে। মৃত সাবিনার ময়না তদন্ত গতকাল হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে সম্পন্ন হয়েছে। ময়না তদন্ত শেষে সাবিনার লাশ আত্মীয় স্বজন বুঝে নিয়ে গতকালই তাকে দাফন করা হয়েছে।
এদিকে বানিয়াচঙ্গে সম্ভ্রমহারা তরুনীর মৃত্যুর বিষয়টি এখন টক অব দা বানিয়াচং। গতকাল হবিগঞ্জ এক্সপ্রেস পত্রিকায় এ নিয়ে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশের পর অনেকেই সংবাদটি পড়ে এ ঘটনার সাথে জড়িত মূল হোতাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানিয়েছেন। সাথে সাথে সালিশ অযোগ্য এধরনের অপরাধ নিয়ে যারা সালিশ করেছে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়ে বানিয়াচংয়ের সচেতন মহল।
অপর দিকে তরুনী সাবিনার মৃত্যুর ঘটনার রহস্য উদঘাটনে মাঠে নেমেছেন বানিয়াচং থানার এসআই ফিরোজ আহমেদ। ইতিমধ্যে তিনি ঘটনার মুল নায়ক প্রেমিক ঝুম্মনকে আটক করেছেন।
উল্লেখ্য, বানিয়াচং উপজেলার কাগাপাশা ইউনিয়নের লোহাজুড়ী গ্রামের দিনমজুর চান মিয়া ওরফে নিবরসা মিয়ার কন্যা সাবিনা (২০) এর সাথে একই গ্রামের নান্দু খান এর ছেলে ঝুম্মন (২৩) এর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এক পর্যায়ে বিয়ের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে এরা দৈহিক মেলামেশা শুরু করে। এতে সাবিনা অন্তস্বত্বা হয়ে পড়ে। ৫ মাস অতিবাহিত হবার পর অন্তস্বত্বার বিষয়টি পরিবারের নজরে আসে। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে গর্ভ নষ্ট করার জন্য সাবিনাকে বলা হয়। সাবিনা এতে রাজি না হওয়ায় বিয়ে করতে গর্ভ নষ্ট করতে হবে বলে তার উপর চাপ প্রয়োগ করা হয়। এক পর্যায়ে বিগত ঈদুল ফিতরের পরপরই হবিগঞ্জ জেলা সদরে নিয়ে এসে একটি প্রইভেট হাসপাতালে মেয়েটির গর্ভ নষ্ট করা হয়। এ ঘটনা নিয়ে গত ১৩ জুলাই লোহাজুড়ী গ্রামে এক সালিশ বৈঠকের আয়োজন করা হয়। উক্ত সালিশ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ওই গ্রামের সর্দার নজরুল ইসলাম খান। গ্রাম্য পঞ্চায়েতে তরুণীর ইজ্জতের মূল্য ৬০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হলেও সাবিনা বিয়ে ছাড়া অন্য কিছু বুঝে না বলে বিভিন্ন স্থানে আলোচনা করতে থাকে। শালিসের ৩দিনের মাথায় তরুনীর মৃত্যু হয়। সাবিনার মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। সে আত্মহত্যা করেছে নাকি তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে এ বিষয়টি নিশ্চিত হবার জন্য লাশের ময়না তদন্ত করা হয়েছে।
হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ বজলুর রহমান জানান, সাবিনার মাথা ও গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে, শরীরও ফুলা। তবে তার মৃত্যুর কারণ ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার আগে বলা যচ্ছে না।
এ বিষয়ে তদন্তকারী অফিসার এসআই ফিরোজ আহমেদ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তরুণীর মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে এ ঘটনার মুল নায়ক প্রেমিক ঝুম্মনকে আটক করা হয়েছে। তার কাছ থেকে অনেক তথ্য উপাত্ত পাওয়া গেছে। এগুলো যাচাই বাচাই করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়াসহ দ্রুত এ বিষয়ে নিয়মিত মামলা রুজু করা হবে বলেও তিনি এ প্রতিনিধিকে জানান।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com