সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০২:৪৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
প্রেমিকার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করায় তেঘরিয়ার খোকনকে গলা টিপে হত্যা ॥ প্রেমিকা ও তার বন্ধু ও বান্ধবী গ্রেফতার হবিগঞ্জ জেলাকে মডেল হিসেবে গড়ে তুলতে চান জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহান খোশ আমদেদ মাহে রমজান সার-বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে এমপি আবু জাহির ॥ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ না করে রাস্তায় বের হওয়া মানেই জীবনের ঝুঁকি ব্রি ৮৮ জাতের নতুন ধান আগাম কাটতে পেরে বেজায় খুশি কৃষক হবিগঞ্জে স্বাস্থ্য-বিধি লঙ্ঘনের করায় ৪০ জনকে জরিমানা ঠিকাদারের বিরুদ্ধে সুতাং বাজারের পুরাতন ব্রীজের রাড বিক্রির অভিযোগ ॥ ট্রাক বোঝাই রড আটক বানিয়াচংয়ে ব্র্যাক সিড এর ধান কর্তন সহায়তা কর্মসূচি ল্যাবএইড হাসপাতালে ৮ কেজি ওজনের টিউমার অপসারণ সংবাদ সম্মেলন দাবী ॥ গ্রাম্য মাতব্বরদের ইন্ধনে বানিয়াচংয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় নারী আহত
নিজামপুরের বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যানের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২৫ ॥ আটক ১০

নিজামপুরের বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যানের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২৫ ॥ আটক ১০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ সদর উপজেলার নিজামপুর ইউনিয়নের দরিয়াপুর গ্রামে বর্তমান ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানের লোকদের মধ্যে দফায় দফায় রক্তয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। এতে পুলিশসহ অন্তত অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়। গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত দফায় দফায় এ সংঘর্ষ হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ৩০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১৩ রাউন্ড টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি আনে। এ সময় ১৩ দাঙ্গাবাজকে আটক করা হয়। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ওই গ্রামের বাসিন্দা বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ তাজ উদ্দিন এবং সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল আওয়ালের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। সম্প্রতি বর্তমান চেয়ারম্যানের একটি চেক ডিজঅনার মামলায় সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল আওয়াল কারাভোগ করে জামিনে বের হয়ে আসেন। এর জের ধরে গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। পরে জুমার নামাজের পর আবারও দু’পক্ষ আবার সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ আবারও ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
এ সময় ১৩ দাঙ্গাবাজকে আটক করা হয়। সংঘর্ষে ৫ পুলিশসহ অন্তত ৫০ জন আহত হয়। আহত ও আটকরা হল, আব্দুল আহাদ (৩৫), আব্দুস সালাম (৩২), সোহেল মিয়া (৩৫), নুর আলম (২৫), উসমান গণি (৩৫), মুহিবুর রহমান (২০), মিল্লাত আলী (৫০), কাজল মিয়া (৫৫), ছায়েদ আলী (৬৫), সহিদ মিয়া (৩৫), তৌহিদ মিয়া (২৮) কে আটক করা হয়। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, এসআই সাহিদ মিয়া, আব্দুর রহিম ও হারুন আল রশিদসহ ৫ পুলিশ। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মাসুক আলী জানান, দুই চেয়ারম্যানের বিরোধে সংঘর্ষ হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে। এ ঘটনায় পুলিশ এসল্ট মামলার প্রস্তুতি চলছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com