রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৬:৩৩ অপরাহ্ন

লাখাইয়ে উপজেলা নির্বাচনে যার যার নৌকা যার যার বৈঠা

লাখাইয়ে উপজেলা নির্বাচনে যার যার নৌকা যার যার বৈঠা

আবুল কাসেম, লাখাই থেকে ॥ আসন্ন লাখাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আ’লীগ ও বিএনপি প্রার্থীরা একক প্রার্থী নির্ধারণ থেকে ব্যর্থ হয়ে শেষ পর্যন্ত বৈতরণী পার হতে যার যার ভাবে চেষ্টা করছে। তবে দলে দলে চ্যালেঞ্জের সাথেই লড়াই হবে এমনটাই ধারণা করছেন এলাকার সুশীল সমাজের লোকজন। জানা যায়, লাখাই উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি ও ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীরা তফসিল ঘোষনার পর থেকেই স্ব-স্ব দলের একক প্রার্থী হতে মরিয়া হয়ে উঠেন। অবশেষে ব্যর্থ হয়েই সকল প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। যাচাই বাছাই শেষে সকলেই বৈধ প্রার্থীর যোগ্যতা অর্জন করেন। এদিকে প্রতিক বরাদ্দের পর থেকেই এ উপজেলায় নির্বাচনী আমেজ উৎসবে পরিণত হয়। কাক ডাকা ভোর হতে গভীর রাত পর্যন্ত প্রার্থীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। শুধু তাই নয় এ ভোটকে উপলক্ষ করে প্রার্থীরা তাদের না জানা পুরাতন অনেক আত্মীয়তার সম্পর্ক ঝালাই করছেন। গ্রামের অলিগলি থেকে শুরু করে হাট বাজার ও বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে শুধু পোস্টার আর পোস্টারে ছেয়ে গেছে। তাছাড়া প্রার্থীদের নামে বিভিন্ন গান কবিতা বানিয়ে সমর্থকরা মাইকে জানান দিয়ে ভোট আদায়ের চেষ্টা করছে। সুশীল সমাজ থেকে শুরু করে দিন মজুরের মাঝেও চলছে এবারের ভোটের হিসাব নিকাশ। আর ভোটারদের মধ্যেও উৎসাহ উদ্দিপনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। গত সংসদ নির্বাচনে স্বতস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহন করতে না পারায় ভোটাররা এবার তাদের পছন্দের প্রার্থীদের ভোট দিবেন বলে অনেকেই এ প্রতিনিধিকে জানান। চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন জেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম মোল্লা মাসুম (দোয়াত কলম), বর্তমান চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা রফিক আহমেদ (হেলিকপ্টার), থানা আ’লীগ সাধারন সম্পাদক এডঃ মুশফিউল আলম আজাদ (ঘোড়া), আ’লীগ নেতা অমরেন্দ্র লাল রায় (টেলিফোন), থানা বিএনপি সভাপতি এডঃ সালেহ উদ্দিন আহমেদ (কাপ-পিরিচ), কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের নির্বাহী সদস্য তাজুল ইসলাম মোল্লা তাজ (মোটর সাইকেল), স্বতন্ত্র প্রার্থী ড. এম আখতার আহাদ চৌধুরী স্বপন (চিংড়ী) ও মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস (টুপি) প্রতিক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বিএনপি ও আ’লীগ সমর্থক অনেকেই জানান, দলে দলে প্রার্থীদের মধ্যে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা নিয়ে এবার প্রার্থীদের মধ্যে চ্যালেঞ্জ রয়েছে। একটি সূত্র জানায় বিএনপি তৃণমূল পর্যায়ে এডঃ সালেহ উদ্দিন আহমেদকে একক প্রার্থী ঘোষনা দিলেও আরেক প্রার্থী তাজুল ইসলাম মোল্লা তাজকে দলের একাংশের নেতাকর্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্মীরা একক প্রার্থী হিসেবে ঘোষনা দেয়। এছাড়া দলের অপর আরেক প্রার্থী আব্দুল ওয়াহেদ ওয়াহেদুজ্জামান আগাই দাবী করেন কেন্দ্রীয় হাই কমান্ড তাকে দলের লাখাই থানার একক প্রার্থী হিসেবে ঘোষনা করেন। আসলে একক প্রার্থী কে এ নিয়ে এখনো এলাকায় আলোচনার ঝড় বইছে। এদিকে ক্ষমতাসীন দলের ৪জন প্রার্থীদের মধ্যে শত চেষ্টা করেও কেউ একক প্রার্থী হিসেবে আসতে পারেনি। দলের মাঝে প্রভাব বিস্তারের কারণে কেউ কাউকে ছাড় দিতে না পারায় যার যার নৌকা, যার যার বৈঠা নিয়ে পাড়ি দিচ্ছেন ক্ষমতাসীন দলের এ প্রার্থীরা। বিএনপি উপজেলা পর্যায়ে কয়েকজন সিনিয়র নেতা এ প্রতিবেদককে জানান এ বৈতরণী পার হতে তাজুল ইসলাম মোল্লার বিকল্প ছিল না। সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে যদি দলের মনোনয়ন তাকে দেওয়া হত  তাহলে এ বিজয় নিশ্চিত হত। আ’লীগ প্রার্থীদের মধ্যে এডঃ আবুল হাসেম মোল্লা মাছুম ও এডঃ মুশফিউল আলম আজাদের মাঝে শক্তভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। আর এমন চ্যালেঞ্জ নিয়েই ক্ষমতাসীন দলের এই ২ নেতার সমর্থনে কর্মীরা মাঠে কাজ করছে বলে বিশেষ সূত্রে জানা যায়। এ নির্বাচনে দলে দলে হচ্ছে প্রতিদ্বন্দ্বিতা এমন কথাই চাওর হচ্ছে পুরো এলাকায়। তবে শেষ হাসিটা কে হাসবে এখনো বলা যাচ্ছে না। লাখাই উপজেলায় ভোটারের সংখ্যা হচ্ছে ৯০হাজার ৭শত ৬৪জন। এখানে আগামী ২৩মার্চ ভোট গ্রহন অনুষ্টিত হবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com