সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ০৪:৫৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শ্রীমঙ্গলে যুবলীগ নেতা সেলিমের উদ্যোগে সাড়ে ৫শ অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ নবীগঞ্জের বিভিন্ন গ্রামে ড. রেজা কিবরিয়ার পক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ হবিগঞ্জে শেষ হয়েছে ৫দিন ব্যাপি ইয়ূথ এসোসিয়েশন অব ইউকে এর খাদ্য সহায়তা বিতরণ নবীগঞ্জে গৃহহীন দুই বীর সেনা মুক্তিযোদ্ধাকে সেনাবাহিনীর বাসস্থান উপহার আলমগীর চৌধুরীর সৌজন্যে নবীগঞ্জে ১৬৫ পরিবারকে ঈদ উপহার প্রদান নবীগঞ্জে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা “বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ” নেতা রায়হান এর উদ্যোগে ইফতার বিতরণ এখন প্রমান করার সময় মানুষ মানুষের জন্য-মোতাচ্ছিরুল ইসলাম অনাহারী মুখ খাবার তুলে দিচ্ছেন হবিগঞ্জ ছাত্র সমন্বয় ফোরাম বাগুনিপাড়া ডিফেন্স হোল্ডার এ্যাসোসিয়েশন ঈদ উপহার বিতরন
চুনারুঘাটে শিক্ষক খুন

চুনারুঘাটে শিক্ষক খুন

চুনারুঘাট প্রতিনিধি ॥ চুনারুঘাটে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে রাতের আঁধারে খালেদ মজুমদার (৩০) নামের এক স্কুল শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার রাতে উপজেলার দেওরগাছ ইউনিয়নের ঝুড়িয়া গ্রামে। ওই স্কুল শিক্ষককে কারা, কি কারণে হত্যা করেছে এ রহস্যের কোল-কিনারা নেই। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে হত্যাকান্ডের মোটিভ উদঘাটনের চেষ্টা করছে। নিহতের বাবার নাম আব্দুর রউফ মজুমদার। পুলিশ ও এলাকাবাসীরা জানান, ঝুড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক খালেদ ঘটনার দিন রাতে বাড়ীতে ছিলেন। এ সময় তার মোবাইলে ফোন আসলে তিনি ঘর থেকে বের হন। এর পর থেকে তিনি নিখোঁজ থাকেন। পরদিন গতকাল সোমবার বাড়ী থেকে প্রায় ২ কিলোমিটার দুরবর্তী ময়নাবাদ গ্রামের একটি কবরস্থানে তার নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখেন গ্রামবাসী। এ সময় খালেদ জীবিত ছিলেন। খবর পেয়ে আত্মীয়রা খালেদকে উদ্ধার করে ইবনে সিনা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তিনি মারা যান। দুপুরে পুলিশ খালেদের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করে। তার মাথা, মুখমন্ডল, হাত-পা ও নাক-কান থেতলানো ছিল। ডান কানটি ছিল কাটা অবস্থায়। স্কুল শিক্ষক খালেদ মজুমদারের হত্যা কান্ড নিয়ে এলাকার লোকমুখে নানা ধরণের কথাবার্তা শোনা যাচ্ছে। কেউ কেউ বলছেন- ময়নাবাদ গ্রামের প্রবাসী শারফিন চৌধুরীর ৭ম শ্রেণীর পড়–য়া কন্যাকে প্রাইভেট পড়ানোর সুবাদে ওই পরিবারের সাথে তার গভীর সম্পর্কের সৃষ্টি হয়। এরপর থেকেই খালেদ প্রায়শই রাত বিরাতে ময়নাবাদ গ্রামে আসা-যাওয়া করতেন। তার অবাদ চলাফেরা তার স্কুল শিক্ষিকা স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস ভাল চোখে দেখতেন না। এ বিষয়ে স্বামীকে তিনি হর-হামেশাই শাসাতেন। নিহতের পিতা আব্দুর রউফও খালেদকে ময়নাবাদ গ্রামে না যাওয়ার জন্য নিষেধ করতেন। কিন্তু কোন নিষেধ তিনি আমলে নেননি। গ্রামবাসী জানান, নিহতের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস বিয়ের আগে সনাতন ধর্মের অনুসারী ছিলেন। অপর একটি সূত্র জানায়, স্কুল শিক্ষক খালেদের সাথে এলাকার অনেকেরই নানা বিষয়ে বিরোধ ছিল। তবে কি কারণে খালেদকে খুন করা হয়েছে তা এখনো পরিস্কার নয়। ঘটনার পর চুনারুঘাট থানার ওসি শেখ কবিরুল ইসলাম ও প্রথম সেবা পত্রিকার সম্পাদক কামরুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। চাঞ্চল্যকর এ হত্যা কান্ড নিয়ে চুনারুঘাটের সর্বত্র চলছে নানা আলোচনা।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com