রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৩৭ অপরাহ্ন

শাহজিবাজারের সংরক্ষিত বন ও রাবার বাগান থেকে বালু পাচার \ তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেছে-এসিল্যান্ড

শাহজিবাজারের সংরক্ষিত বন ও রাবার বাগান থেকে বালু পাচার \ তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেছে-এসিল্যান্ড

স্টাফ রিপোর্টার \ মাধবপুর উপজেলার সংরক্ষিত রঘুনন্দন শাহজিবাজার বন ও শাহজিবাজার রাবার বাগান ড্রেজার মেশিন ফেলে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে একটি প্রভাবশালী মহল। বন ও রাবার বাগান থেকে বালু পাচারের ফলে বন ও রাবার বাগান হুমকির মধ্যে পড়েছে। স্থানীয় প্রভাবাশালী মহল বালু পাচারে জড়িত থাকার কারণে বনরক্ষীরা তাদের সঙ্গে কুলিয়ে উঠতে পারছে না। এছাড়া কতিপয় অসৎ বন ও রাবার বাগানের শ্রমিক নেতারা বালুপাচারে পরোক্ষভাবে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। বন ও রাবার বাগান থেকে পাহাড় কেটে ট্রাক্টর দিয়ে বালু পাচারের কারণে সংরক্ষিত বনভূমি ও রাবার বাগান এখন ধ্বংসের মুখে। দীর্ঘ দিন ধরে প্রভাবশালী মহলটি শাহজিবাজার সংরক্ষিত এলাকা বিট অফিসের সামনে বালু স্তুপ করে রেখে এগুলো পাচার করছে। শাহজিবাজার এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তিরা বালু পাচারের সঙ্গে জড়িত থাকায় তাদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে চায় না।
শাহজিবাজার সংরক্ষিত বনাঞ্চলের বিট অফিসার সিদ্দিক আলী মিয়া বালু পাচারের কথা স্বীকার করে বলেন, চুনারুঘাটের লাদিয়া এলাকার একটি মহালের রশিদ দিয়ে বন ও রাবার বাগানের বালু পাচার করছে। বালু উত্তোলন ও রাস্তা ব্যবহার বৈধ কিংবা অবৈধ কি না এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাধবপুর ভাল বলতে পারবেন।
এ ব্যাপারে মাধবপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) রফিকুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, শাহজিবাজার এলাকা দিয়ে বালু উত্তোলন ও পাচারের বিষয়ে স¤প্রতি হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক সরজমিন তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। সরজমিন তদন্ত করে বালু উত্তোলন ও পাচারের সত্যতা পাওয়া গেছে। শিঘ্রই প্রতিবেদন জেলা প্রশাসকের নিকট জমা দেওয়া হবে। হবিগঞ্জ সহকারী বন সংরক্ষক এজেডএম হাসানুর রহমান বলেন, অবৈধ উপায়ে বালু পাচার বন্ধের জন্য সিলেট বিভাগীয় কর্মকর্তা বন কর্মকর্তা হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসককে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চিঠি দিয়েছেন। আশা করা হচ্ছে, একজন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও পাচার বন্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com