বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০১:১২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
ওলিপুরে প্রাণের চিপস কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ॥ কোটি টাকার ক্ষতি নাছিরনগরে কাজ করতে গিয়ে মাধবপুরে ৩ শ্রমিক নিহত শায়েস্তাগঞ্জে আটক প্রেমিক যুগল পুলিশ হেফাজতে দেশে ফিরলেন এমপি আবু জাহির ও হবিগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলেয়া আক্তার চুনারুঘাটে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাউলসহ এক ব্যক্তি গ্রেফতার চুনারুঘাটে নোহা উল্টে শিশু নিহত ॥ হাসপাতালে মা নবীগঞ্জে উপ-নির্বাচনে বিজয়ী ইউপি সদস্য আব্দুল মোমিনের শপথ গ্রহন আজমিরীগঞ্জে গরুর ঘাস কাটা নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫০ পবিত্র ওমরাহ পালন শেষে পৌরসভায় ফিরেছেন মেয়র আতাউর রহমান সেলিম নবীগঞ্জের প্রবীণ মুরুব্বি ফজল মিয়ার ইন্তেকাল ॥ দাফন সম্পন্ন

খোশ আমদেদ মাহে রমজান

  • আপডেট টাইম মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৮ বা পড়া হয়েছে

এক্সপ্রেস রিপোর্ট ॥ আজ ২২ রমজান। মাহে রমজানের সিয়াম পালন করতে কেউ সমর্থ না হলে কিংবা ব্যর্থ হলে তার জন্য কাযা কাফ্ফারা, ফিদয়া ব্যবস্থা আছে বটে কিন্তু রমজানের সিয়ামে যে প্রাচুর্য রয়েছে তা লাভ হয় না। কোরান মজিদে রমজানের সিয়াম পালন করার তাগিদ দিয়ে ইরশাদ হয়েছে ঃ যদি তোমরা উপলব্ধি করতে তা হলে বুঝতে পারতে সিয়াম পালন করাই তোমাদের জন্য অধিকতর কল্যাণকর (সূরা বাকারা ঃ আয়াত ১৮৪)। মাহে রমজানে সিয়াম পালনে যে আনন্দ, যে আত্মিক পরিতৃপ্তির সৌকর্য, যে পরিচ্ছন্নতার আমেজ অনুভব, যে রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের প্রাচুর্য পরশ লাভ করা যায়, তা অন্য সময়ে লাভ করা যায় না। কাযা, কাফফারা, ফিদয়া দিলে ফরজ আদায় হয়ে যায় বটে কিন্তু রমজানের যে প্রভূত কল্যাণ রয়েছে, তা অর্জিত হয় না। প্রিয়নবী (সাঃ) বলেছেন, মাহে রমজানের একটি সিয়াম তরক করা এত বড় কঠিন কর্ম যে, সারা জিন্দেগী ভরে সিয়াম পালন করলেও তার ক্ষতিপূরণ করা সম্ভব হবে না (তিরমিযী ও আবু দাউদ শরীফ)। হাদিস শরীফে আছে, মাহে রমজানে একজন ফেরেশতা প্রত্যেক দিন মানবজাতিকে সম্বোধন করে বলতে থাকে ঃ হে অনুসন্ধানকারীগণ, আল্লাহর যিকির কর এবং আল্লাহর দিকে অগ্রসর হও। হে অনুসন্ধানকারীগণ, এখনও সময় আছে, ফিরে আস, জ্ঞানচক্ষু উন্মীলিত কর। অতঃপর সে আবার বলতে থাকে ঃ ক্ষমা চায় এমন কোন ব্যক্তি আছে কি তাকে ক্ষমা করা হবে। তওবাকারী কেউ আছে কি? তার তওবা কবুল করা হবে। কারও কিছু দাবি আছে কি? তাহলে তা পূরণ করা হবে (আহমদ)। মাহে রমজানে যে ব্যক্তি আল্লাহকে স্মরণ করবে আল্লাহতা’আলা তাকে সর্বতোভাবে ক্ষমা করবেন (তিরমিযী শরীফ)। প্রিয়নবী (সাঃ) বলেছেন, আমার উম্মতকে আল্লাহতা’আলা রমজান মাসে বিশেষ পাঁচটি জিনিষ দান করেছেন, যা হতে আগেকার যামানার উম্মতরা বঞ্চিত ছিল আর তা হচ্ছে ঃ আমার সায়িম উম্মতের মুখের গন্ধ আল্লাহতা’আলার নিকট মৃগনাভীর চেয়েও অধিক সুগন্ধযুক্ত। এ মাসে সকল প্রকারের জীবজন্তু এমনকি পানির মাছও ভোরবেলা হাতে ইফতারের ওয়াক্ত পর্যন্ত দোয়া করতে থাকে।
এ মাসে প্রতিটি বেহেশতকে নতুন সাজে সজ্জিত করা হয় এবং আল্লাহ’তাআলা বলেন, অতিসত্বর আমার বন্ধুরা দুনিয়ার সীমাহীন দুঃখ-কষ্ট সহ্য করে তোমাদের দিকে ফিরে আসছে। রমজান মাসে শয়তানকে বন্দী করা হয়। যে কারণে সে অন্যান্য মাসের মতো বান্দাদের ধোকা দিতে সমর্থ হয় না, রমজানের শেষে এক রাতে আল্লাহ সায়িমদের ক্ষমা প্রদর্শন করেন। সাহাবায়ে কেরাম আরজ করলেন, এ আল্লাহর রসূল, তা কি শবে কদর? তিনি বললেন না, মজুরদের কাজ সমাপ্ত হলেই যেমন মজুরী দেয়া হয়, তেমনি আল্লাহ তার নেক বান্দাদের কৃতকার্যের মজুরী হিসেবে ক্ষমা করে দেন (আহমদ)।
যুগ শ্রেষ্ট সূফী হযরত মাওলানা শাহসূফী আলহাজ্ব তোয়াজউদ্দিন আহমদ (রহঃ) বলেছেন, রমজান মাসের প্রতিটি মুহূর্তে আল্লাহর রহমত এত অজস্র ধারায় বর্ষিত হয় যে, তা অন্য কখনও হয় না। সে রহমতের নূর অবলোকন করতে হলে ইলমে তাসাউক চর্চা করতে হয়।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com