বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ০৯:১৩ অপরাহ্ন

শ্রীমঙ্গলে করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে লোকসমাগম কমাতে কাঁচা বাজার স্থানান্তর

শ্রীমঙ্গলে করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে লোকসমাগম কমাতে কাঁচা বাজার স্থানান্তর

কাউছার আহমেদ রিয়ন, শ্রীমঙ্গল থেকে ॥ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলাধীন কালাপুর ইউনিয়নের ভৈরবগঞ্জ বাজারের কাঁচা বাজারের আয়তন ছোট থাকায় বাজার করতে আসা লোকসমাগম গাদাগাদি হয়। তাই বাজার সেখান থেকে সরিয়ে পাশেই হাই স্কুল মাঠে নেয়া হয়েছে।
বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে বাজারে লোকসমাগম এড়িয়ে চলতে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার লক্ষে বাজার কমিটির সাথে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ আলোচনা করে বাজাটি স্থানান্তর করে।
বুধবার ৮ এপ্রিল দুপুর বেলায় শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুছ ছালেক ভৈরবগঞ্জ বাজারে গিয়ে স্থানীয় কালাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান মজুল ও বাজার কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে নিয়ে কাঁচা বাজার ও মাছ বাজারের ব্যবসায়ীদের ভৈরবগঞ্জ হাই স্কুলের মাঠে নিয়ে আসেন।
কালাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান মজুল বলেন বিশ্বব্যাপী যে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে তা থেকে রক্ষা পেতে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার লক্ষ্যে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশের সহযোগিতায় আমরা বাজারটি স্কুল মাঠে নিয়ে গেছি। আমাদের বাজারের আয়তন কম থাকায় মানুষ বাজারে গেলে এক জনের গায়ে আরেকজন ঘেঁষে দাঁড়াতে হয় এতে করে বিপদ বাড়তে পারে। তাই আমরা মানুষের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে বাজারটি স্থানান্তর করি।
এবিষয়ে শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুছ ছালেক বলেন, ভৈরবগঞ্জ বাজারটি অনেক ছোট তার তুলনায় বাজারে লোক সমাগম অনেক বেশি হয়। আমরা খেয়াল করে দেখেছি মাছ বাজার ও সবজির বাজারে মানুষ যখন বাজার করতে আসে তখন সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকে না। শ্রীমঙ্গল উপজেলা যে কয়টি বাজার রয়েছে তার মধ্যে ভৈরবগঞ্জ বাজারে প্রতিদিন অনেক বেশি লোক সমাগম হয়। তাই জনগণের নিরাপত্তার কথা ভেবেই বাজার কমিটির সাথে আলোচনা করে বাজার স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এবং সবাইকে ৬ ফুট দূর-দূর দোকান নিয়ে বসা ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বেচাকেনা করতে বলা হয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com