মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ১০:১৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
পবিত্র আশুরা আজ বঙ্গমাতা ছিলেন বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক সহযোদ্ধা-এমপি আবু জাহির বানিয়াচঙ্গে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের তথ্য প্রেরণে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ ॥ তালিকায় রয়েছে একই পরিবারের ৪ জন আছে মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলার লোক ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ৯ জনের মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ দুর্দিনে বঙ্গবন্ধুকে অনুপ্রেরণা দিয়েছেন বঙ্গমাতা-মিজানুর রহমান শামীম জালালাবাদ এসোসিয়েশনের পুনর্বাসন কার্যক্রমে ১০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন সায়হাম গ্রুপের পরিচালক সৈয়দ ইশতিয়াক ও সৈয়দ শাফকাত হবিগঞ্জ-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী দুলাল আহমদ তালুকদার নিজামপুর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন ॥ আহ্বায়ক আসগর আলী, যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মিয়া থানা পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে সোর্স ও দালালদের অপকর্ম জ্বালানি তেল ও সারের দাম কমানোর দাবিতে হবিগঞ্জে বাসদের বিক্ষোভ

আলমপুরে সংঘর্ষের ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসপি মুরাদ আলি ॥ অভিযুক্তদের গ্রেফতারে অভিযান

  • আপডেট টাইম রবিবার, ৩ জুলাই, ২০২২
  • ২১ বা পড়া হয়েছে

বানিয়াচং প্রতিনিধি ॥ বানিয়াচংয়ের আলমপুর গ্রামে মোবাইল কেনাবেচা নিয়ে দুই যুবকের তর্কবির্তকের জেরে ভয়াবহ সংঘর্ষে নিহত মামুন মিয়ার মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে শনিবার বেলা ২টায় জানাযার পর পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। শনিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী। পরিদর্শনকালে সাথে ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বানিয়াচং সার্কেল পলাশ রঞ্জন দে, বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ এমরান হোসেন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জয় কুমার দাস। এসময় পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী নিহতের পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলেন। প্রকৃত অপরাধীকে দ্রুত গ্রেফতার করতে বানিয়াচং থানা পুলিশকে নির্দেশ প্রদান করেন। উক্ত সংঘর্ষের ঘটনায় কোন নির্দোষ মানুষ যেন হয়রানীর শিকার না হয় সে বিষয়েও পুলিশ দৃষ্টি রাখবে বলে তিনি জানান। উল্লেখ্য, সুবিদপুর ইউনিয়নের আলমপুর গ্রামের রিপন ও সুহেল মিয়া নামে দুই যুবকের মধ্যে গত কয়েক দিন ধরে মোবাইল কেনাবেচা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে শুক্রবার বিকেলে দু’জনের মধ্যে তর্কবিতর্ক ও হাতাহাতি হয়। এর জেরে উভয়পরে লোকজন গত শুক্রবার দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে সংঘর্ষে মামুন মিয়া (২৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। সে ওই গ্রামের আমীর আলীর পুত্র। দুই ঘন্টাব্যাপী এ সংঘর্ষে অন্তত অর্ধশত লোক আহত হয়েছে। বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম চৌধুরী গতকাল নিহত মামুন মিয়ার বাড়ীতে যান। এসময় তিনি নিহত মামুন মিয়ার পরিবারের লোকজনের কাছে গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন। এ বিষয়ে বানিয়াচং থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মোঃ কবির হোসেন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ প্রতিনিধিকে জানান, নিহত মামুন মিয়ার দাফন সম্পন্ন হয়েছে। এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি, তবে মামলা দায়ের প্রস্ততি চলছে। এছাড়া আসামী গ্রেফতারে বানিয়াচং থানার একাধিক টীম মাঠে আছে বলে তিনি অবহিত করেন।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com