সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ১১:৩৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শ্রীমঙ্গলে যুবলীগ নেতা সেলিমের উদ্যোগে সাড়ে ৫শ অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ নবীগঞ্জের বিভিন্ন গ্রামে ড. রেজা কিবরিয়ার পক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ হবিগঞ্জে শেষ হয়েছে ৫দিন ব্যাপি ইয়ূথ এসোসিয়েশন অব ইউকে এর খাদ্য সহায়তা বিতরণ নবীগঞ্জে গৃহহীন দুই বীর সেনা মুক্তিযোদ্ধাকে সেনাবাহিনীর বাসস্থান উপহার আলমগীর চৌধুরীর সৌজন্যে নবীগঞ্জে ১৬৫ পরিবারকে ঈদ উপহার প্রদান নবীগঞ্জে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা “বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ” নেতা রায়হান এর উদ্যোগে ইফতার বিতরণ এখন প্রমান করার সময় মানুষ মানুষের জন্য-মোতাচ্ছিরুল ইসলাম অনাহারী মুখ খাবার তুলে দিচ্ছেন হবিগঞ্জ ছাত্র সমন্বয় ফোরাম বাগুনিপাড়া ডিফেন্স হোল্ডার এ্যাসোসিয়েশন ঈদ উপহার বিতরন
কেন অগোছালো ব্যক্তিরা বুদ্ধিমান ও সৃজনশীল হন

কেন অগোছালো ব্যক্তিরা বুদ্ধিমান ও সৃজনশীল হন

এক্সপ্রেস ডেস্ক ॥ চাবিটা কোথায় রেখেছেন খুঁজে পাচ্ছেন না। অফিস থেকে ফিরে পার্সটা কোথায় রেখেছিলেন খুঁজতে খুঁজতে হিমশিম খাচ্ছেন। বিয়ে বাড়ি যেতে হবে, অফিস থেকে ফিরলেন এক ঘণ্টা দেরিতে। বাড়িতে মুখ ঝামটা, কর্মস্থলে অশান্তি। এলোমেলো, অগোছালো এ সব শব্দ শুনতে শুনতে রীতিমতো নিজের প্রতি হতাশা  জন্মে গেছে। হতাশা কাটান। উঠে দাঁড়ান। কারণ মনোবিদরা বলছেন, এ রকম এলোমেলো-অগোছালো প্রকৃতির মানুষরা আসলে বুদ্ধিমান এবং সৃজনশীল হন। তাঁরা এই ধরনের সমস্যাকে ‘ক্রনিক ডিসঅর্গানাইজেশন’ বলছেন। এর ১০ টি কারণ হিসাবে তারা জানিয়েছেন :
১। একটি পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে, অগোছালো ব্যক্তিরা কোনও সমস্যার সমাধানের ক্ষেত্রে প্রচলিত ধারার বাইরে গিয়ে তা করেছেন।
২। এ রকম অগোছালো ব্যক্তিদের সৃজনশীলতাও অনেক বেশি। তারা কল্পনাও করেন একটু অন্য ঢঙে। ফলে স্বাভাবিক কর্ম অগোছালো হয়ে যায়।
৩। তাদের আগ্রহের সীমানাও অনেক বিস্তৃত। রোজকার কাজের পাশাপাশি একটু অন্য ধরনের সৃজনশীল কাজ যেমন, লেখালিখি, ছবি আঁকার মতো কাজও তাঁরা করে থাকেন।
৪। অগোছালো ব্যক্তিরা সরলরেখা পথে চিন্তা-ভাবনা করেন না। মনোবিদরা জানাচ্ছেন, আমাদের মস্তিষ্কের বামদিকের অংশ সরলরেখা পথে চিন্তা-ভাবনা করে আর ডানদিকের অংশ ভাবে একটু অন্য ভাবে। অগোছালো ব্যক্তিরা কোনও তথ্যকে বিশ্লেষণ করার সময় তাদের মস্তিষ্কের ডানদিকের অংশ দিয়ে সে কাজ করেন।
৫। মনোবিদরা জানাচ্ছেন, এ ধরনের ব্যক্তিরা নানান রকমমের মানুষের সঙ্গে মিশতে ভালবাসেন। যার ফলে তাঁরা নানা কিছু শিখতে পারেন, তাঁদের অভিজ্ঞতার ঝুলিও সমৃদ্ধ হয়।
৬। শেখার আগ্রহ, জানার ইচ্ছা অগোছালো ব্যক্তিদের অনেক বেশি হয় বলেই মনোবিদরা জানাচ্ছেন।
৭। এই ধরনের ব্যক্তিদের সাধারণত সময় জ্ঞান থাকে না। এর কারণ হিসাবে মনোবিদরা জানাচ্ছেন, আগের কাজটি এতো মন দিয়ে করতে থাকেন যে পরের কাজের জায়গায় সময়মত পৌঁছতে পারেন না।
৮। মনোবিদদের মতে, অনেক সময় দেখা গেছে অগোছালো ব্যক্তিদের স্কুলের পরীক্ষার ফল ভাল হয় না। কারণ, হোমওয়ার্ক বা পরীক্ষার প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেয়ে তাদের গল্প বা নাটক লিখতেই ভাল লাগে।
৯। মনোবিদদের একটি পরীক্ষায় দেখা গেছে, এই ধরনের ব্যক্তিরা একটু মুখরা হয় এবং নিজের বক্তব্যকে দৃঢ় ভাবে প্রকাশ করে।
১০। অগোছালো ব্যক্তিদের প্রোফইল পরীক্ষা করে স্ট্যান্ডফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা জানাচ্ছেন, এই ধরনের মানুষরা সব সময় নতুন কিছু শিখতে চায়।
আনন্দবাজার পত্রিকা

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com