রবিবার, ০৫ এপ্রিল ২০২০, ০৩:১৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
কর্মহীনদের খাদ্য সহায়তা প্রদান ও করোনা সচেতনতায় সকাল-সন্ধ্যা ছুটছেন এমপি আবু জাহির হবিগঞ্জে প্রশাসন ও আইনশৃংখলা বাহিনীর তৎপরতা অব্যাহত হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের উদ্যোগে বানিয়াচঙ্গে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ ডাঃ মুশফিক হোসেন চৌধুরীর প্রচেষ্টায় ঢাকাস্থ জালালাবাদ এ্যাসোসিয়েশন এর উদ্যোগে চিকিৎসকদের মাঝে ১’শ পিপিই বিতরণ হবিগঞ্জ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান মোতাচ্ছিরুল ইসলামের পক্ষ থেকে বিভিন্ন এলাকায় খাদ্রসামগ্রী বিতরণ হবিগঞ্জের এসএসসি ৯৯ ব্যাচের বন্ধুদের উদ্যোগে শ্রমজীবী মানষের মাঝে ত্রান সামগ্রী বিতরণ ওএমএস কার্যক্রমের আওতায় শহরের ৫টি দোকানে ৫ এপ্রিল থেকে ১০ টাকা কেজি চাল বিক্রি শুরু প্রশাসনের তৎপরতায় জনশূণ্য নবীগঞ্জ ত্রাণ বিতরণ হলেও বিপাকে দিনমজুর খেটে খাওয়া শ্রমজীবি মানুষ নবীগঞ্জের পৌর এলাকায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ শ্রীমঙ্গলে এক কিশোরী করোনা আক্রান্ত সন্দেহে এলাকায় লাল ঝান্ডা, ১৩৪ ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টাইনে
চাঁদাবাজির কারণে থমকে গেছে গুঙ্গিয়াজুরী হাওরে ৪০ হাজার মন ধান উৎপাদন ্॥ কৃষকদের ৪ কোটি টাকা ক্ষতির আশংকা

চাঁদাবাজির কারণে থমকে গেছে গুঙ্গিয়াজুরী হাওরে ৪০ হাজার মন ধান উৎপাদন ্॥ কৃষকদের ৪ কোটি টাকা ক্ষতির আশংকা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ সদর উপজেলার গোবিন্দপুর, আউরা, মজলিশপুর ও রামপুর গ্রামের কৃষকদের প্রায় ১৫শ একর জমি চাঁদাবাজির কারণে অনাবাদি থাকায় প্রায় ৪০ হাজার মন বোরো ধান উৎপাদন থমকে আছে। এব্যাপারে হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রে আদালত কগ-১ এ চাঁদাবাজী ও সন্ত্রাসী অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেছেন মোঃ আছির মিয়া নামে এক ব্যক্তি। মামলায় সংশ্লিষ্ট ওসিকে দ্রুত তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছে আদালত। মামলার আসামীরা হলেন- গোবিন্দপুর গ্রামের মৃত আব্দুল করিম এর পুত্র ছাদিকুর রহমান (৩২), কামাল মিয়া (৪০), জামাল মিয়া (৩৫), মহিবুর রহমান (৩০), ও মৃত হাজী হায়দর আলীর পুত্র শাহিন মিয়া। মামলায় উল্লেখ করা হয়, হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ৩নং তেঘরিয়া ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের বৃটেন প্রবাসী মোঃ ছালেক মিয়ার বিষয়াদি ও সম্পত্তি দেখা শোনা করেন মামলার বাদী আছির মিয়া। তার তত্ত্বাবধায়নেই গোবিন্দপুর, আউরা, মজলিশপুর, রাম গ্রামের কৃষকদের গুঙ্গিয়াজুরী হাওরে সেচ প্রকল্প। যেখানে প্রায় ১৫শ একর বোরো জমি চাষ করে প্রায় ৪০ হাজার মন ধান উৎপাদন করেন স্থানীয় কৃষকরা। যার সরকারী বাজার মূল্যে প্রায় ৪ কোটি টাকা। আর এই সেচ প্রকল্পের পরিচালক বৃটেন প্রবাসী ছালেক মিয়া।
সম্প্রতি এই প্রকল্পে কুদৃষ্টি করে তার ভাই গোবিন্দপুর গ্রামের ছাদিকুর রহমান গংদের। তারা সেচ প্রকল্পের কাজে বাঁধা সৃষ্টি করে, সেচ মেশিনের যন্ত্রাংশ চুরি করে নিয়ে যায়, সেচ প্রকল্পের আওতাধীন পানির ড্রেন ভরাট করে ফেলে। মামলায় আরো উল্লেখ করা হয়, গত বছরের ১১ নভেম্বর ওই সেচ প্রকল্পের ড্রেনের কাজ তদারকি কার জন্য যান মামলার বাদী আছির মিয়া। গোবিন্দপুর পঞ্চায়েত কবরস্থানের পাশে পৌছলে তার গতিরোধ করে ছাদিকুর রহমান গংরা। এ সময় আছির মিয়াকে খুন করার হুমকি দিলে, বলে সেচ প্রকল্প চালাতে হলে তাদের ২৪ ঘন্টার মধ্যে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দিতে হবে। না দিলে যেন সেচ প্রকল্প এলাকায় তকে না দেখি। এছাড়া তারা বাদীকে বিভিন্নভাবে হেয়নস্ত করেন। এমতাবস্থায় উল্লেখিত আসামীদের ভয়ে আছির মিয়া সেচ প্রকল্পের এলাকায় যাতায়াত করতে পারছেন না। বর্তমানে তিনি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন। শ্রমিকরাও প্রাণ ভয়ে তাদের কাজ বন্ধ রেখেছে। তাই ওই প্রকল্পের এলাকায় বোরো মৌসুমে প্রায় ১৫শ একর জমি পানির অভাবে বিরান ভূমিতে পরিণত হচ্ছে। এতে প্রায় ৪ কোটি টাকা আর্থিক ক্ষতির আশংকা বিদ্যমান।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com