রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৫:০৬ পূর্বাহ্ন

একদিকে পহেলা বৈশাখের ডামাঢোল অপরদিকে হাওর পাড়ে কৃষকদের কান্না!

একদিকে পহেলা বৈশাখের ডামাঢোল অপরদিকে হাওর পাড়ে কৃষকদের কান্না!

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আমাদের জাতিসত্ত্বার মৌলিক ও অনন্য পরিচয় এবং বাঙালির প্রভূত রূপায়ণ ও রাষ্ট্রীয় পরিচয়ের অমোঘ উপাদান এই পয়লা বৈশাখ। দেশের মূল স্তম্ভ কৃষক সমাজ আজও বাংলা বর্ষপঞ্জি অনুসরণ করে, ফসল রোপন ও ঘরে তোলার পালাও চলে সেই পঞ্জিকা অনুসারে। ফসলি সাল গণনার জন্য একদা যে বাংলা সনের উৎপত্তি তা সুদীর্ঘকাল ধরে শহর-বন্দর, গ্রাম থেকে প্রত্যন্ত অঞ্চলে এদেশের মানুষের হৃদয়ে নিজস্ব সংস্কৃতি হিসেবে শক্ত আসন গেড়ে বসেছে। বাংলা নববর্ষে ব্যবসায়ীদের ‘হালখাতা’ রীতি এখনও এদেশের নিজস্ব সংস্কৃতির আমেজ নিয়ে টিকে রয়েছে। খেরোখাতায় পুরাতন হিসেব মিটিয়ে নতুন বছরে নতুন করে সবকিছু শুরু করার জন্য এদিন ব্যবসায়ীরা সংশ্লিষ্টদের দাওয়াত দিয়ে এখনও মিষ্টিমুখ করান।
বৈশাখকে স্বাগত জানাতে কয়েকদিন ধরেই প্রশাসনসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে।
কিন্তু এতকিছুর পরও উল্টো পিটে বৈশাখের আরেকটি নাম রয়েছে। তা হচ্ছে, কালবৈশাখ। কালবৈশাখের ছোবল শহরে তেমন একটা না পড়লেও প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চল আর দরিদ্র মানুষরা এর ছোবল টিকই টের পায়। প্রকৃতি যখন ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করে তখন অনেকই নি:স্ব হয়ে যায়। এবারের বৈশাখও কৃষকদের জন্য মোটেই সুখকর নয়। বৈশাখ যখন দ্বারে উকি মারছিল তখনই অকাল বন্যায় ভেঙ্গে দিয়েছে তাদের স্বপ্নসাধ। স্বপ্নের ফসল হারিয়ে অনেক কৃষক আজ নি:স্ব। যেখানে বৈশাখে আনন্দ করার কথা সেখানে অশ্র“ গড়িয়ে পড়ছে কৃষকদের বুকে। হাওর পাড়ে চলছে কৃষকদের কান্না আর হাহাকার। শহরে বসবাসকারী কিংবা আয়েশে যারা জীবনযাপন করছেন তারা কি স্বপ্নহারা কৃষকদের সমবেদনা জানাবেন না-কি একদিনের আনন্দ করেই বৈশাখকে স্বাগত জানাবেন। যারা হাড়ভাঙ্গা খাটুনি দিয়ে অন্ন যোগায় তাদের মুখে যেখানে হাসি নেই সেখানে শুধুমাত্র আনন্দ উল্লাসের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকা কতটুকু মানানসই হবে তা ভেবে দেখার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানাচ্ছি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com