মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ১১:১২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
পবিত্র আশুরা আজ বঙ্গমাতা ছিলেন বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক সহযোদ্ধা-এমপি আবু জাহির বানিয়াচঙ্গে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের তথ্য প্রেরণে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ ॥ তালিকায় রয়েছে একই পরিবারের ৪ জন আছে মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলার লোক ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ৯ জনের মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ দুর্দিনে বঙ্গবন্ধুকে অনুপ্রেরণা দিয়েছেন বঙ্গমাতা-মিজানুর রহমান শামীম জালালাবাদ এসোসিয়েশনের পুনর্বাসন কার্যক্রমে ১০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন সায়হাম গ্রুপের পরিচালক সৈয়দ ইশতিয়াক ও সৈয়দ শাফকাত হবিগঞ্জ-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী দুলাল আহমদ তালুকদার নিজামপুর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন ॥ আহ্বায়ক আসগর আলী, যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মিয়া থানা পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে সোর্স ও দালালদের অপকর্ম জ্বালানি তেল ও সারের দাম কমানোর দাবিতে হবিগঞ্জে বাসদের বিক্ষোভ

নবীগঞ্জে সাংবাদিক পরিবার নিজ বাড়িতে ঢুকতে পারছে না ॥ প্রবেশ পথে বেড়া দিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি

  • আপডেট টাইম মঙ্গলবার, ২ আগস্ট, ২০২২
  • ১৫ বা পড়া হয়েছে

মোঃ আলমগীর মিয়া, নবীগঞ্জ থেকে ॥ দীর্ঘ ৪ বছর ধরে অন্যের বাড়িতে ভাড়ায় থেকে ১০ সদস্য পরিবার নিয়ে সাংবাদিক সাগর ও তার পরিবার মানবেতর জীবন যাপন করছেন। নবীগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর মোঃ কবির মিয়া কারণে দীর্ঘ ৪ বছর ধরে সাংবাদিক সাগর এর পরিবার নিজ বসত ঘরে ঢুকতে পারছেন না। বাড়ীর রাস্তার প্রবেশ পথে বাশেঁর বেড়া দিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে রেখেছেন কাউন্সিলর। এ ব্যাপারে সাংবাদিক সাগর ও তার পরিবার সমাজপতি ও প্রশাসনের দরজায় দরজায় ধর্ণা দিয়েও কোন সুরাহা পাচ্ছেন না। ফলে আটকে আছে সাগরের বাড়ীর নির্মাণ কাজও। শেষ পর্যন্ত নবীগঞ্জ থানার মানবিক পুলিশ কর্মকর্তা ওসি ডালিম আহমদ, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আনোয়ার হোসেন মিঠু, সাবেক প্যানেল মেয়র-১ এটি এম সালাম ও নবীগঞ্জ থানার বেশ কয়েকজন অফিসারসহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় ওসি সাংবাদিক সাগরের পরিবারের প্রতিবন্ধকতার বিষয়টি পরিলক্ষিত হলে তিনি সাগরের পরিবারকে মানবিক কারনে বসত ঘরে প্রবেশের রাস্তা অপসারনের জন্য কাউন্সিলরকে অনুরোধ করেন। এতে কাউন্সিলর দু’দিনের সময় নেন। কিন্তু সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও কাউন্সিলর কবির মিয়া সাগরের বাড়ীর প্রতিবন্ধকতা রাস্তা খোলে দেন নি।
স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, নবীগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর কবির মিয়া এবং প্রতিবেশী মরহুম ছুরাব উল্লার পরিবারের সাথে বাড়ি সীমানা ও চলাচলের রাস্তা নির্মাণকে কেন্দ্র করে প্রায় ৫ বছর যাবৎ বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে মামলা মোকদ্দমা চলছে। প্রায় ৪ বছর পুর্বে মরহুম ছুরাব উল্লার ছেলে সাংবাদিক সাগরসহ তার পরিবারের লোকজন প্রভাবশালী কাউন্সিলর ও তার পরিবারের লোকজনের অত্যাচার ও নির্যাতনের কারনে বসত বাড়ীঘর পেলে এসে আত্মরক্ষা করেন। দীর্ঘ ৪ বছর ধরে সাংবাদিক সাগরের পরিবার পরিজন বাসা ভাড়া করে বসবাস করে আসছেন। নিজ গৃহে পরবাসীর মতো অবস্থা সাগরের পরিবারের। নিজের বাড়ি ঘর থাকার পরও অন্যত্র বাসাভাড়া করে বসবাস করার ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে।
দিকে প্রায় ৪ বছর ধরে খালি বাড়িঘর থাকার সুবাধে ঘরের বাশঁপালাসহ মুল্যমান মালামাল লুটপাট করে নিয়ে যায় কাউন্সিলরের লোকজন। এছাড়া সম্প্রতি সাংবাদিক সাগরের পরিবার রাস্তার প্রতিবন্ধকতা অপসারনের জন্য বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলার প্রেক্ষিতে প্রতিবন্ধকতা অপসারনের জন্য ওসি নবীগঞ্জকে আদেশ দেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মোস্তাফিজুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন রাস্তার সীমানায় দেয়া বেড়া সরিয়ে প্রতিবন্ধকতা দুর করার জন্য কাউন্সিলরকে অনুরোধ করেন। এতে কাউন্সিলর কোন তোয়াক্ষা করেন নি। এক পর্যায়ে নবীগঞ্জ থানার মানবিক অফিসার ইনর্চাজ মোঃ ডালিম আহমদ সরজমিনে গিয়ে সাংবাদিক সাগর ও তার পরিবারের লোকজনকে তাদের বাড়িঘরে প্রবেশ করতে রাস্তার প্রতিবন্ধকতা অপসারনের জন্য অনুরোধ করলে তিনি দু’দিনের সময় নেন। কিন্তু রির্পোট লেখা পর্যন্ত ৭ দিন অতিবাহিত হলেও কাউন্সিলর কবির মিয়া রাস্তার বেড়া অপসারন করেন নি।
অভিযোগ উঠেছে উক্ত কাউন্সিলর সাংবাদিক সাগরের বাড়িঘর ও জায়গা জবর দখল করার পায়তারা করে আসছেন। এছাড়া উক্ত কাউন্সিলর কবির মিয়ার বাড়ির সামনে ও আশপাশে সরকারের কোটি টাকার ভুমি রয়েছে যা কাউন্সিলরের দখলে। সরকার অনুমতি ছাড়াই সরকারী কোটি টাকার সম্পত্তি জোরপুর্বক দখল করে ভোগ করে আসছেন।
এ ব্যাপারে সাংবাদিক সাগর মিয়া বলেন, প্রায় ৭০/৮০ বছর তারা ওই বাড়িতে বসবাস করে আসছেন। এই দীর্ঘ সময় যে সব রাস্তা দিয়ে তারা চলাচল করতো, প্রভাবশালী কাউন্সিলর কবির মিয়া তা বন্ধ করে দিয়েছেন।
কাউন্সিলর কবির মিয়া বলেন, সাংবাদিক সাগরদের বাড়িতে ঢুকতে দেয়া যাবে না। কারন তাদের রাস্তা নাই। দীর্ঘ প্রায় ৭০ বছর ধরে তারা ওই বাড়ি থেকে কি ভাবে চলাচল করতো প্রশ্ন করলে তিনি জবাব দিতে অনিহা প্রকাশ করেন।
নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ডালিম আহমদ বলেন, একজন জনপ্রতিনিধির কাছে যা আশা করেছিলাম, কাউন্সিলর কবির মিয়ার কাছে তা পাওয়া যায়নি। তিনি আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ারও কথা বলেন।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com