শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০২:৪৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
প্রসঙ্গ নিম্বর টাওয়ার ॥ ৫০ লাখ টাকা ঘুষ দাবি! নবীগঞ্জের ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা আবিদ আলী বরখাস্ত হবিগঞ্জে জমে উঠেছে ঈদ বাজার ॥ স্বাস্থ্যবিধি পালনে প্রশাসন কঠোর বাংলাদেশি-আমেরিকান দুই ভাই তীর্থ ও তন্ময়ের সাফল্য খোশ আমদেদ মাহে রমজান ॥ আজ ২৫ রমজান লোকড়ায় অর্থ সহায়তা বিতরণ করলেন এমপি আবু জাহির বানিয়াচংয়ের ঐতিহ্যবাহী ঠাকুরানী দিঘী রক্ষায় এলাকাবাসীর অভিযোগ ॥ ড্রেজার মেশিন জব্দ খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় জেলা যুবদলের দোয়া ও ইফতার মাহফিল বানিয়াচংয়ে অভ্যন্তরীণ বোরে ধান সংগ্রহের উদ্বোধন রিচি গ্রামে ট্রাক্টরের চাপায় স্কুল ছাত্র নিহত শায়েস্তাগঞ্জ নতুন ব্রীজে বাস উল্টে ১৫ জন যাত্রী আহত
বর্তমান সরকার ক্ষমতায় গিয়ে দেশের গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে-জি কে গউছ

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় গিয়ে দেশের গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে-জি কে গউছ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আলহাজ্ব জি কে গউছ বলেছেন, হাজারো চক্রান্ত করেও দেশবাসীর হৃদয় থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের নাম মুছে ফেলা যাবে না। তিনি বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল বিএনপি প্রতিষ্ঠা করে দেশ ও দেশের মানুষের মানুষের কল্যাণে কাজ করেছেন। তিনি বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান অত্যন্ত কঠিন সময়ে দেশের দায়িত্ব নিয়েছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত এ দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে দিয়ে আওয়ামীলীগ একদলীয় বাকশালী শাসন কায়েম করেছিল। ঠিক সেই সময়ে শহীদ জিয়াউর রহমান দেশের দায়িত্ব নিয়ে দেশকে অরাজকতা থেকে মুক্ত করেছিলেন, দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। সাংবাদিকদের কলমের স্বাধীনতা দিয়েছিলেন, ৪টি পত্রিকা থেকে হাজার হাজার পত্রিকা চালুর সুযোগ করে দিয়েছিলেন, মানুষের বাক-স্বাধীনতা ফিরিয়ে দিয়েছিলেন, দেশের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।
তিনি গতকাল মঙ্গলবার বাদ মাগরিব শায়েস্তানগরস্থ বিএনপির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন-১/১১ এর সময় মইনুদ্দিন-ফখরুদ্দিনের পৃষ্টপোষকতায় আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় গিয়ে দেশের গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। দেশে আবারও একদলী শাসন কায়েম করেছে, মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়েছে, বাক-স্বাধীনতা হরণ করেছে, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা কেরে নিয়েছে, বিচার ব্যবস্থাকে কুগিত করেছে, দেশের সকল প্রতিষ্ঠানে দলীয়করণ করেছে। এই অবস্থা থেকে উত্তোরণের জন্য বিএনপির চেয়ারপার্সন ও সাবেক ৩ বারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া সংগ্রাম করে যাচ্ছেন। খালেদা জিয়ার হাত ধরেই দেশের গণতন্ত্র ফিরে আসবে, মানুষের ভোটাধিকার ফিরে আসবে।
জি কে গউছ বলেন- পুলিশের ব্যারিকেট সৃষ্টি করে বিএনপির আন্দোলন দমিয়ে রাখা যাবে না। মামলা-হামলার ভয় উপেক্ষা করেই বিএনপি রাজপথে আছে, ভবিষ্যতেও থাকবে। কোন তন্ত্রমন্ত্র দিয়ে বিএনপিকে ধ্বংস করা যাবে না। ইতিহাস সাক্ষি, কোন স্বৈরশাসক চিরদিন ক্ষমতায় থাকতে পারেনি। ফেরাউন-নমরুদের যেমন পতন হয়েছে, আওয়ামীলীগেরও পতন হবে।
তিনি বলেন- বিএনপি ইচ্ছে করলেই পুলিশের ব্যারিকেট ভেঙ্গে মিছিল-সমাবেশ করতে পারে, সেই শক্তি বিএনপির রয়েছে। কিন্তু বিএনপি চরম ধৈর্য্যরে পরিচয় দিচ্ছে। তবে এর মানে এই নয় যে বিএনপি ঘরে বসে থাকবে। আন্দোলনের মাধ্যমেই আওয়ামীলীগের পতন নিশ্চিত করা হবে।
জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মিজানুর রহমান চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন বিএনপি নেতা এডভোকেট শামছু মিয়া চৌধুরী, এডভোকেট মঞ্জুর উদ্দিন শাহীন, এডভোকেট নুরুল ইসলাম, এমজি মোহিত, আব্দুল হান্নান ফরিদ, আজিজুর রহমান কাজল, এডভোকেট এস এম বজলুর রহমান, নুরুল ইসলাম নানু, মিয়া মোঃ ইলিয়াছ, গীরেন্ড চন্দ্র রায়, মফিজুর রহমান বাচ্চু, কামাল সিকদার, এডভোকেট আফজাল হোসেন, আজম উদ্দিন, হাবিবুর রহমান হাবিব, নাজমুল হোসেন বাচ্চু, মাহবুবুল হক হেলাল, এস এম আব্দুল আউয়াল, মর্তুজা আহমেদ রিপন, জালাল আহমেদ, এডভোকেট মোঃ ইলিয়াছ, সৈয়দ মুশফিক আহমেদ, সফিকুর রহমান সিতু, আমিনুল ইসলাম বাবুল, রুবেল আহমেদ চৌধুরী, শাহ রাজীব আহমেদ রিংগন, মিজানুর রহমান চৌধুরী, শাহ ফারুক আহমেদ, আব্বাস উদ্দিন, জালাল উদ্দিন সজলু, এডভোকেট গুলজার খান, মুর্শেদ আলম সাজন, শেখ মামুন, সৈয়দা লাভলী সুলতানা, আফরোজা চৌধুরী, মোহাইমিন চৌধুরী ফুয়াদ, তুহিন খান, সোহেল এ চৌধুরী, আব্দুল খালেক, লিটন মিয়া, সুব্রত দাস বৈষ্ণব, ফরিদ মিয়া, মজনু মিয়া, আশরাফুল আলম সবুজ, তাজুল ইসলাম তাজু, মাহবুবুল আলম মান্না, মিজানুর রহমান সুমন প্রমুখ।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com