বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১২:১১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
সাতছড়িতে বিজিবির অভিযান রকেট লাঞ্চারের ১৮টি গোলা উদ্ধার হবিগঞ্জে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ম্যারাথন এর উদ্বোধন সাতছড়ি উদ্যানে পূর্বের ৬ অভিযানে যা যা মিলেছে উদ্ধার হওয়া রকেট লাঞ্চারের গোলাগুলো খুব বিপজ্জনক আলোচনায় কাহালু ও চট্টগ্রামের ১০ ট্রাক অস্ত্র নোয়া হাটি সংবর্ধনা সভায় মেয়র সেলিম ॥ আমি হবিগঞ্জ পৌরবাসীর ভালবাসা কুড়িয়ে নিতে চাই হবিগঞ্জ পৌরসভার নব-নির্বাচিত ২ কাউন্সিলরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নবীগঞ্জে মাদকাসক্ত স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা ॥ হুমকির মুখে নিরিহ পরিবার পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়রের সঙ্গে ব্যাংকারদের শুভেচ্ছা বিনিময় নবীগঞ্জে শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন ২০২১ প্রতিযোগীতায় ॥ ২৩ বিজয়ী
রাধাপুরে সংঘর্ষে নিহত ১ বাড়ী ঘরে হামলা ভাংচুর

রাধাপুরে সংঘর্ষে নিহত ১ বাড়ী ঘরে হামলা ভাংচুর

বানিয়াচং প্রতিনিধি \ বানিয়াচঙ্গের রাধাপুর গ্রামে দু’পক্ষের সংঘর্ষে এক যুবক নিহত ও ১০জন আহত হয়েছে। সংঘর্ষের পর আসামীপরে লোকজনের বাড়ীঘরে হামলা ভাংচুর-লুটপাট করেছে প্রতিপরে লোকজন। গত মঙ্গলবার সকালে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে গুরুতর আহত দুলাল মিয়াকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে মঙ্গলবার রাতে দুলাল মিয়া মারা যায়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মক্রমপুর ইউনিয়নের রাধাপুর গ্রামের খোরশেদ আলী ও নজির মিয়ার মধ্যে পূর্ব বিরোধ ও মামলা মোকদ্দমা চলে আসছিল। এর জের ধরে গত ৮ ফেব্র“য়ারী সকালে নজির মিয়ার ভাতিজা নুর আলমসহ কয়েকজন খোরশেদ মিয়ার শষ্য ক্ষেত থেকে ঘাস কাটার কথা বলে গম কেটে নিয়ে যায়। এ সময় খোরশেদ মিয়ার লোকজন বাধা দিলে তারা গমের বস্তা নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে নুর আলম বাড়ীতে গিয়ে তাকে মারপিট করা হয়েছে বলে অভিযোগ করে। এতে নজির মিয়ার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। গত ৯ ফেব্র“য়ারী খোরশেদ মিয়া দক্ষিণ সাঙ্গর থেকে বাড়ী ফেরার পথে পূর্ব থেকে উৎ পেতে থাকা নজির মিয়ার লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রসহ তার উপর হামলা চালায়। খোরশেদ মিয়ার শোর চিৎকারে বাড়ীর লোকজন তাকে বাচাতে ছুটে আসলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে খোরশেদ মিয়ার পরে হেকিম আলীর পুত্র মিজু মিয়া (২৫), খোরশেদ মিয়ার পুত্র শরীফ উদ্দিন (১৮), মন্জব আলীর পুত্র খেলু মিয়া (৩৫), মৃত আরজ আলীর পুত্র খোরশেদ মিয়া (৫৫) ও ইদ্রিস মিয়ার পুত্র আবু তালিব (২৫) গুরুতর আহত হয়। তাদেরকে হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। অপরদিকে নজির মিয়ার পক্ষের আব্দুল হাসিমের পুত্র কুদ্দুছ মিয়া (৩৫) ও আম্বর আলীর পুত্র দুলাল মিয়া (২৬) সহ কয়েকজন আহত হয়। পরে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে দুলাল মিয়াকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টায় দুলাল মারা যায়।
এদিকে দুলাল মিয়ার মৃত্যুর সংবাদ এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে নজির মিয়ার লোকজন বেপরোয়া হয়ে খোরশেদ মিয়ার লোকজনের বাড়ী ঘরে হামলা-ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। এ সময় বাড়ীর মহিলাদের মারপিট করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। রাধাপুর গ্রামের জমির আলীর স্ত্রী রতœা বেগম (২৭) জানান, তারা আমার বাড়ীতে হামলা করে আমাকে মারপিট করে আমার বাড়ীর সকল মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। পরে আমার দুই দিনের শিশু বাচ্চাসহ আমাকে বাড়ী থেকে বের করে দেয়। খোরশেদ মিয়ার লোকজন অভিযোগ করেন, নজির মিয়ার লোকজন হেকিম আলী, ইদ্রিস আলী, জমির আলী, জোবেদ আলী, আনোয়ার আলী, খেলু মিয়া ও আব্দুল কাদিরের বাড়ীতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট করে ৭২টি গরু, ১০টি ছাগল, ২০ ভরি স্বর্ণালংকার, ৬টি ট্রাক্টর, ৬টি সেচ মেশিন, ধান-চাল, আসবাবপত্রসহ ৬০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এ সময় তারা একটি ছাগলকে পিটিয়ে মেরে ফেলে ও বাড়ীঘর ভাংচুর করে।
এ ব্যাপারে খোরশেদ মিয়ার পক্ষের দেওয়ান মিয়া জানান, আমাদের জনবল খুব কম। তারা আমাদেরকে বিভিন্ন সময় ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে নির্যাতন করেছে। আমরা এর প্রতিবাদ করায় তারা পরিকল্পিতভাবে তাদের লোককে হত্যা করে আমাদেরকে ফাসানোর পরিকল্পনা করেছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com