শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৩০ অপরাহ্ন

অনুমোদন ছাড়াই করাত কলে সয়লাব লাখাই

  • আপডেট টাইম মঙ্গলবার, ৭ মার্চ, ২০২৩
  • ১২৭ বা পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সরকারের অনুমোদন ছাড়াই প্রধান সড়ক দখল করে লাখাই উপজেলার প্রায় অর্ধশত স’মিলে (করাত কল) চলছে রমরমা অবৈধ ব্যবসা। এসব মিলে সাবাড় হচ্ছে বনজ, ফলজসহ নানা প্রজাতির গাছ। অনুসন্ধানে জানা যায়, অনুমোদনহীন এসব মিল থেকে বন বিভাগের এক শ্রেণির অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়মিত মাসোহারা আদায় করায় সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব। বন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বন আইন ১৯২৭ ও তৎপ্রণীত স’মিল (লাইসেন্স) বিধিমালা ২০১২ অনুযায়ী কোনো স’মিল মালিক লাইসেন্স না নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবে না। লাইসেন্স নেয়ার পর থেকে প্রতিবছর তা নবায়ন করতে হবে। জানা যায়, মিল চালানোর ক্ষেত্রে সরকারের সুনির্দিষ্ট বিধান থাকলেও এ উপজেলায় এ চিত্র একেবারেই বিপরীত। এসব মিল মালিকরা ১৫-২০ বছর যাবত অনুমোদন ছাড়াই চালাচ্ছে স’মিল। লাইসেন্সবিহীন স’মিলগুলো বন্ধ করার কোনও উদ্যোগও চোখে পরেনি। এসব মিল চত্বরে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ মজুত করে রাখা হয়েছে। কাক ডাকা ভোর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত এসব মিলে বিরামহীন চলছে কাঠ কাটার কাজ। এ ছাড়া স’মিলের শব্দে এলাকার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। শুধু ফুরুক মিয়ার স’মিলই নয়। এ সড়কের পাশে আরও বেশ কয়েকটি স’মিল রয়েছে। যারা প্রধান সড়কের ওপর বড় বড় গাছ ফেলে রেখেছে দিনের পর দিন। সচেতন মহল মনে করেন, এভাবে সরকারের অনুমোদন বিহীন করাত কল (স’মিল) চলায় একদিকে পরিবেশ হচ্ছে নষ্ট হচ্ছে, বন উজাড় হচ্ছে, অপরদিকে সরকার হারাচ্ছে মোটা অংকের রাজস্ব। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া জরুরি। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা সুলতানা জানান, বিষয়টি জরুরি ভিত্তিতে খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com