শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ১১:১৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
চুনারুঘাটে মুখে কস্টেপ ও হাত-পা বাঁধা অবস্থায় টমটম চালকের লাশ উদ্ধার মন্দরী গ্রামে মাছ ধরা নিয়ে সংঘর্ষ ॥ মহিলাসহ আহত ২৫ ॥ টেটাবিদ্ধ ৫ জনকে সিলেট হাসপাতাল প্রেরণ অলি-আউলিয়াদের মাধ্যমে এই জনপদে ইসলাম প্রতিষ্ঠিত হয়েছে-এমপি আবু জাহির বাহুবলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু আজমিরীগঞ্জে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে রাতভর নাচ-গানের মাধ্যমে জন্মদিন পালন করলেন ভাইস চেয়ারম্যান সজীব হবিগঞ্জ সদর উপজেলা হারভেস্টার মালিক সমিতির কমিটি গঠন নবীগঞ্জ পৌরসভার জাতীয় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন দিবস উদযাপন কুখ্যাত ডাকাত মুখলিছ গ্রেপ্তার পুলিশের মাসিক সভায় সদর থানার ওসি গোলাম মর্তুজা, এসআই মমিনুলকে সম্মাননা প্রদান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে যুবককে ছুরিকাঘাত ॥ শহরে উত্তেজনা

টঙ্গিরঘাট ও রামনগর গ্রামে জলমহাল দখল নিয়ে সংঘর্ষ ॥ আহত শতাধিক

  • আপডেট টাইম শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৬ বা পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সদর উপজেলার তেঘরিয়া ইউনিয়নের টঙ্গিরঘাট ও রামনগর গ্রামবাসীর মধ্যে জলমহাল থেকে মাছধরা নিয়ে দফায় দফায় সংঘর্ষে মহিলাসহ শতাধিক লোক আহত হয়েছে। শুধু তাই নয় হাসপাতালে এসেও তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। তখন চিকিৎসা দিতে দেরি হওয়ায় ডাক্তার ও ব্রাদারদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে তারা পালিয়ে রক্ষা পায়।
খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ হাসপাতালে এলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। গুরুতর আহত ও টেটাবিদ্ধ ১০ জনকে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে ১০ টা পর্যন্ত দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। খবর পেয়ে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার (ওসি) গোলাম মর্তুজার নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্থানীয়দের সহযোগিতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
জানা যায়, টঙ্গিরঘাট এলাকার জমসেদ আলী ও আফজল মিয়ার মাঝে জলমহাল দখল নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। গতকাল সকালে বাগাডলি জলমহালে দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে মাছ ধরতে নামে। এতে একে অপরের ওপর হামলা, পাল্টা হামলা চালায়। এক পর্যায়ে উভয় পরে মধ্য সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে উভয়পক্ষের শতাধিক লোক আহত হয়।
সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে সেবলু মিয়া, জমশেদ আলী, সমশেদ আলী, কিতাব আলী, আজিজুর রহমান, ইয়াসিন মিয়া, নানু মিয়া, মনিরুল হক, আলামিন, ইমন আলী, কালাম মিয়া, সাইদুর রহমান, আব্দুল কাদির, আয়াত আলী, এনামুল হক, কুদ্দুছ আলী, এখলাছ মিয়া, আলা উদ্দিনসহ অন্তত ৩০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
এদিকে, হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে এসেও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে উভয় পক্ষ। পরে সদর থানার একদল পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার (ওসি) গোলাম মর্তুজা জানান, আমিসহ সদর থানার একটি টিম ঘটনাস্থলে রয়েছি। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com