বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৫:৪১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
নবীগঞ্জে সিএনজি ভাড়াকে কেন্দ্র করে শ্রমিক ও গ্রামবাসীর সংঘর্ষ ॥ ৩০ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ ॥ আহত অর্ধশত ॥ ৭০টি সিএনজি ভাংচুর নৈতিক স্খলনের অভিযোগে ২ জন আইনজীবি বহিস্কার জনসংখ্যাকে জনসম্পদে রূপান্তরিত করতে চায় আওয়ামী লীগ সরকার দৈনিক হবিগঞ্জ এক্সপ্রেস পত্রিকার সাবেক সম্পাদক চিন্ময় আচার্য্য’র মাতা শেফালী আচার্য্যরে পরলোকগমন জার্মান, ফ্রান্স, ইতালি ও সুইজারল্যান্ডে যাচ্ছেন রোটারিয়ান মোদারিছ আলী টেনু নবীগঞ্জে গণফোরামের দেবপাড়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড কমিটি গঠন বানিয়াচংয়ের আলেম সমাজ ও তৌহিদী জনতার বিক্ষোভ ॥ সাদপন্থীদের ইজতেমা জীবন দিয়ে হলেও প্রতিহত করার ঘোষণা হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের ৮ ইউনিটের সম্মেলন স্থগিত পৌরসভা পরিদর্শন করেছেন সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মশিউর রহমান বানিয়াচংয়ে সরকারী খাল কেটে মাটি উত্তোলন ॥ ২ জনের কারাদন্ড
বন্দুক যুদ্ধে দুর্ধর্ষ ডাকাত বানিয়াচংয়ে ঝিলকি নিহত ॥ ৪ পুলিশ আহত, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

বন্দুক যুদ্ধে দুর্ধর্ষ ডাকাত বানিয়াচংয়ে ঝিলকি নিহত ॥ ৪ পুলিশ আহত, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

মখলিছ মিয়া, বানিয়াচং থেকে ॥ বানিয়াচংয়ে পুলিশের হাতে আটক দুর্ধর্ষ ডাকাত সাইফুল ইসলাম ওরফে ঝিলকি (৩২) বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে। তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী অস্ত্র উদ্ধার করতে গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর রাতে ঝিলকিকে নিয়ে পুুলিশ বানিয়াচং-শিবপাশা সড়কের আনজইন ব্রীজের নিকট গেলে ডাকাত-পুলিশ গুলাগুলিতে ডাকাত ঝিলকি নিহত ও ৪ পুলিশ আহত হয়। নিহত ঝিলকি উপজেলা সদরের মাদারীটুলা গ্রামের মৃত মতিউর রহমানের ছেলে। ঝিলকির বিরুদ্ধে ১টি হত্যা মামলা, ৪টি ডাকাতি মামলা, ১টি চুরির মামলা ও ৪টি দ্রুত বিচার আইনের মামলা রয়েছে। বানিয়াচং থানায় তার বিরুদ্ধে ৮টি গ্রেফতারী পরোয়ানা মুলতবী আছে।
পুলিশ জানায়, বুধবার বিকালে ডজনখানেক মামলার ওয়ারেন্টভূক্ত পলাতক দুর্ধর্ষ ডাকাত সাইফুল ওরফে ঝিলকিসহ আরো কয়েকজন ডাকাত তার ভায়রা কাগাপাশা ইউনিয়নের ইছবপুর গ্রামের ইসমত আলীর বাড়ীতে অবস্থান করার খবর পেয়ে বানিয়াচং থানার ওসি মোজাম্মেল হকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে বাড়িটি ঘেরাও করে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতরা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে পুলিশ ঝিলকি ও মস্তোফা নামে দুই   ডাকাতকে আটক করতে সক্ষম হলেও তাদের সহযোগী অন্য ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরে গ্রামবাসী বানিয়াচং উপজেলার আতুকুড়া গ্রামের আব্দুস সত্তারের ছেলে আজম (৩৫) ও একই উপজেলার পাহাড়পুর গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে মনু মিয়া (৩৩) নামে আরও দুই ডাকাতকে পাকড়াও করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। পরে আহত অবস্থায় তাদেরকে হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এদিকে ঝিলকির দেয়া তথ্যমতে বানিয়াচং থানার একদল পুলিশ অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও সহযোগী ডাকাতদের গ্রেফতার করার জন্য বানিয়াচং শিবপাশা রোডের আনজইন এলাকায় অভিযান পরিচালনা কালে রাত প্রায় সোয়া ৩ টার দিকে আনজইন দিঘীরপার সংলগ্ন ব্রীজের উপর পৌছামাত্র রাস্তার দু’পাশ’থেকে ঝিলকীর সহযোগী সশস্ত্র ডাকাতদল রাস্তা ব্যারিকেড দেয় এবং ঝিলাককে ছিনিয়ে নেয়ার লক্ষ্যে রাস্তার দু’পাশের হাওর’থেকে পুলিশকে লক্ষ করে ডাকাতরা এলোপাতারি গুলি করতে থাকে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও ১৫ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছুড়ে। গুলাগুলির এক পর্যায়ে ঝিলকি গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হয়। তাকে হবিগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন। গুলাগুলিতে আহত এসআই ওমর ফারুক মোড়ল, এএসআই প্রদীপ কুমার দাশ, এএসআই হারুন মিয়া ও এএসআই বিশ^জিৎকে বানিয়াচং হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ১টি পাইপগান, ৩ রাউন্ড তাজা গুলি, ৮াট গুলির খোসা, ৫ রাউন্ড ব্যবহৃত গুলি ও ৪ টি রামদা উদ্ধার করেছে। ডাকাত ঝিলকি নিহত হওয়ার খবরে এলাকায় স্বস্তি ফিরে এসেছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com