বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০, ০৪:৫১ অপরাহ্ন

বানিয়াচঙ্গে গ্রামবাসীর উদ্যোগে ৩০টি গ্রাম লকডাউন

বানিয়াচঙ্গে গ্রামবাসীর উদ্যোগে ৩০টি গ্রাম লকডাউন

মখলিছ মিয়া ॥ বানিয়াচং উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেট তৈরী করে নিজ নিজ এলাকা লকডাউন করে দিচ্ছেন স্থানীয়রা। বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন ও মৃত্যুর হার বেড়ে যাওয়ায় এখন পর্যন্ত প্রায় ৩০টির বেশী গ্রামকে লকডাউন করা হয়েছে। ৮এপ্রিল বুধবার বানিয়াচং উপজেলা সদরের ৪টি ইউনিয়ন ঘুরে দেখা যায় বিভিন্ন পাড়া-মহল্লার প্রবেশ পথে বাঁশ বেধে লকডাউন করে দিয়েছে এলাকার জনসাধারণ ও গ্রামের যুবকরা। নিজেদের এলাকা লকডাউন করে এলাকার বাসিন্দারা স্বেচ্ছায় অবরুদ্ধ জীবনযাপন করছে। উপজেলার ১ নং ইউনিয়নের দক্ষিণ নন্দীপাড়া গিয়ে দেখা যায়, মহল্লার প্রতিটি প্রবেশ মুখে বাঁশ বেঁধে ব্যারিকেড দিয়ে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে গ্রামবাসী। সেখানে দাঁড়িয়ে আছেন কয়েকজন যুবক। ওই এলাকার লোকজন জানান, ‘করোনা ঠেকাতে সড়ক দিয়ে সবধরনের যান চলাচল বন্ধ করতে এবং গ্রামকে সুরক্ষিত রাখতে বহিরাগতদের প্রবেশ ঠেকাতে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। গ্রামের বাইরের কাউকে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না এবং গ্রামবাসী জরুরি প্রয়োজন ছাড়া গ্রামের বাইরে বের হচ্ছেন না।’ একই ইউনিয়নের দাশপাড়া মহল্লায় গিয়ে দেখা যায়, এলাকার প্রবেশ মুখ বাঁশের বেড়া দিয়ে আটকে দিয়েছেন গ্রামের যুবকরা। ওই মহল্লার বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম জানান, করোনা ঠেকাতে যানবাহন চলাচল ও গ্রামের মানুষের চলাচল সীমিত করতেই এই উদ্যোগ নিয়েছেন এলাকাবাসী। তবে প্রশাসনের সকল যানবাহন ও ত্রানসামগ্রী বিতরণের জন্য চলাচলকারী যানবাহন লকডাউনের আওতামুক্ত থাকবে বলে জানান তিনি। এদিকে উপজেলা সদরের পুরান তোপখানা মহল্লা করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে স্বেচ্ছায় লকডাউন করে দিয়েছে সেখানকার বাসিন্দারা। এখানে কারও শরীরে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ দেখা যায়নি। তবুও আগাম সতর্কতা হিসেবে এই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী। তারা জানান, বর্তমানে দেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। তাই নিজেদের রক্ষার স্বার্থে আমরা আমাদের মহল্লা লকডাউন করে দিয়েছি। ফলে এই মহল্লায় বাইরে থেকে কেউ প্রবেশ করতে পারছে না। আর এখানকার বাসিন্দারাও একান্ত প্রয়োজন ছাড়া মহল্লার বাইরে যাচ্ছেন না। ওই মহল্লার সচেতন যুবকরা এলাকার মুরুব্বীদের সাথে পরামর্শ করে মহল্লার তিনটি প্রবেশ পথে বাঁশের প্রতিবন্ধকতা ও নোটিশ টাঙিয়ে দিয়েছেন। তাতে লেখা আছে ‘করোনা ভাইরাসের সচেতনতা বাড়াতে পুরান তোপখানা মহল্লা লকডাউন।’ এছাড়াও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে উপজেলা সদরের আরও অসংখ্য পাড়া-মহল্লা স্থানীয়রা এভাবে লকডাউন করে দিয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মামুন খন্দকারের সাথে কথা হলে তিনি জানান, বিভিন্ন পাড়া মহল্লার লকডাউন করার কথা শুনেছি। তবে এটা তারা নিরাপত্তার স্বার্থে করেছেন। সরকারি কোনো নির্দেশনা নেই। আর এখনো পুরো বানিয়াচংকে লকডাউনের আওতায় আনতে হবে এমন কোন ঘোষণা আসেনি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com