রবিবার, ২৯ মার্চ ২০২০, ০২:২৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
সচেতনতা কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন এমপি আবু জাহির বাহুবলে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী করোনা ভাইরাস : চুনারুঘাটে উপার্জনহীন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ মাধবপুরে নিন্ম আয়ের মানুষের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত আজমিরীগঞ্জে সংঘর্ষে মহিলা সহ আহত ৩০ বাহুবলে হামলায় এসআইসহ ৫ পুলিশ আহত : আওয়ামী লীগ নেতাসহ গ্রেফতার ৫ বাহুবলে করোনা প্রতিরোধে জীবানুনাশক ঔষধ স্প্রে করলো প্রশাসন নবীগঞ্জে এএসপি পারভেজ আলমের সচেতনতামূলক প্রচারনা বানিয়াচংয়ে করোনা প্রতিরোধে  করনীয় বিষয়ে যৌথ বাহিনীর প্রচারণা নবীগঞ্জে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য সামগ্রী তুলে দিলেন ইউএনও
বানিয়াচঙ্গে প্রেসক্লাবের আয়োজনে পর্যটন শিল্প বিকাশের দাবিতে উন্নয়ন ও সম্ভাবনা” শীর্ষক আলোচনা সভা

বানিয়াচঙ্গে প্রেসক্লাবের আয়োজনে পর্যটন শিল্প বিকাশের দাবিতে উন্নয়ন ও সম্ভাবনা” শীর্ষক আলোচনা সভা

মখলিছ মিয়া, বানিয়াচং থেকে ॥ বানিয়াচং প্রেসক্লাবের আয়োজনে পর্যটন শিল্প বিকাশের দাবিতে উন্নয়ন ও সম্ভাবনা” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় উপজেলা কৃষি অফিস মিলনায়তনে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বানিয়াচং প্রেসক্লাব সভাপতি হেমায়েত আলী খানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক তোফায়েল রেজা সোহেলের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, পর্যটন এখন একটি শিল্প, যা অনেক দেশের অর্থনীতির একটি প্রধান উপাদান। ইতিমধ্যে এ শিল্প বিশ্বব্যাপী একটি দ্রুত বিকাশমান খাত হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি ছাড়াও বহুমাত্রিক কর্মকান্ডের মাধ্যমে পর্যটন খাত বর্তমানে অনেক দেশেরই শীর্ষ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী শিল্পে পরিণত হয়েছে। তেমনি করে পর্যটন ক্ষেত্রের অপার সম্ভাবনাময় ইতিহাস-ঐতিহ্যের লালন ভূমি ও প্রকৃতি সৌন্দর্যে ভরপুর বানিয়াচং। এ উপজেলায় রয়েছে পৃথিবীর বৃহত্তম গ্রাম বানিয়াচং। আরও রয়েছে ঐতিহাসিক কমলারাণীর সাগরদীঘি, প্রায় ৬শ বছরের প্রাচীন বিথঙ্গলের আখড়া, লক্ষীবাওর জলাবন ও হাজার বছরের প্রাচীন মসজিদসহ নানা পুরাকীর্তি। এসব দর্শনীয় স্থানসমুহে সারবছরই দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা দর্শনার্থীদের ভিড় লেগে থাকে। কিন্তু চমৎকার একটি পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলার মতো সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও আজ পর্যন্ত এখানে গড়ে উঠেনি পর্যটন কেন্দ্রের কোনো ধরনের সুযোগ-সুবিধা। উপেক্ষিত রয়ে গেছে তৎকালীন ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর দেয়া প্রতিশ্র“তি। অথচ একটু যতœ নিয়ে দর্শনীয় স্থানগুলোকে পর্যটন শিল্পে কাজে লাগানে গেলে বানিয়াচং তথা পুরো উপজেলার চিত্র পাল্টে যেত। আর এখান থেকে সরকার ও পেতো কোটি টাকার রাজস্ব। বক্তারা আরও বলেন, ১৯৯৭ সালে তৎকালীন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঐতিহাসিক সাগরদিঘিকে পর্যটন করার ঘোষণা দিলেও দীর্ঘ ২২ বছরেও বাস্তবায়নের মুখ দেখেনি। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা বাস্তবায়নে মাননীয় পর্যটন মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন নেতৃবৃন্দ। সভায় বক্তব্য দেন যুগ্ম জেলা জজ মো. শামছুদ্দীন মাসুম, হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অ্যাডভোকেট মনসুর উদ্দিন আহমেদ ইকবাল, সাংবাদিক রুহুল হাসান শরীফ, কবি তাহমিনা বেগম গিনি, বাপা হবিগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল সোহেল, জনাব আলী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ সাফিউজ্জামান খান,আইডিয়াল কলেজের অধ্যক্ষ স্বপন কুমার দাশ, আমবাগান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক বিপুল ভূষণ রায়, জার্মান প্রবাসী দেওয়ান সালমা রাজা ও মেধবিকাশ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ভানু চন্দ্র চন্দ। আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন প্রেসক্লাব সদস্য-আব্দুল হক, মামুন, মখলিছ মিয়া, কোষাধ্যক্ষ আশিকুল ইসলাম, সাংবাদিক জীবন আহমেদ লিটন ও বড়বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির কোষাধ্যক্ষ সহিদুর রহমান প্রমুখ। আলোচনা সভায় প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ নানা শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com