মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ১২:২৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
নবীগঞ্জে ভিজিএফ’র ২ লাখ টাকা ছিনতাইকারী মনির পুলিশের খাচাঁয় শহরতলীর কাকিয়ারআব্দায় গাইড ওয়াল নির্মাণ ॥ ফুসে উঠেছে এলাকাবাসী মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এগিয়ে যাচ্ছে দেশ-এমপি আবু জাহির নিউইয়র্কে নবীগঞ্জের সন্তান পুলিশ সুপার আব্দুল ওয়াহাবকে সংবর্ধনা নবীগঞ্জের জহুরপুরে সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা ॥ অভিযুক্ত আবু সামা গ্রেপ্তার মাধবপুরে পুলিশের পৃথক অভিযানে গাঁজা ও বিয়ার সহ ৪ জন আটক নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের কার্য নির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত নবীগঞ্জে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলার আসামী আসিফ ৪ মাস পর গ্রেফতার নবীগঞ্জে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধু’র মৃত্যুর ঘটনায় মামলা ॥ স্বামী গ্রেফতার নবীগঞ্জের করাগাও গ্রামের যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সমাজসেবক আব্দুল হাকিমের ইন্তেকাল ॥ বিভিন্ন মহলের শোক
ত্রাণ বিতরণকে কেন্দ্র করে বিএনপির দু’পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, সড়ক অবরোধ

ত্রাণ বিতরণকে কেন্দ্র করে বিএনপির দু’পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, সড়ক অবরোধ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ লাখাই উপজেলার বন্যা ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের ত্রাণ বিতরণকে কেন্দ্র গতকাল সকাল থেকে রাস্তা অবরোধ ও ত্রাণ বিতরণে দলীয় নেতৃবৃন্দকে অংশগ্রহণ করতে বাধা প্রদান করেছে বিএনপির অপর একটি বিক্ষুব্ধ গ্র“প। লাখাই উপজেলায় বন্যায় ক্ষতি লোকজনের মধ্যে গতকাল ত্রাণ বিতরণ করতে আসেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম DSC00027খান ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আজিজুল বারী হেলাল। গতকাল সকাল সাড়ে ১০টায় লাখাই উপজেলার কয়েকটি স্থান ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ত্রাণবিরণের জন নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু গতকাল সকাল ৯টার দিকে জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আমিনুর রশীদ এমরান ও এমজি মোহিত এর নেতৃত্বে বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদলসহ কয়েকটি অঙ্গ সংগঠনের একাংশের নেতৃবৃন্দে শহরের কোর্ট ষ্টেশনস্থ গোলচত্বরে অবস্থান নেন। এ সময় ত্রাণ বিতরণে অংশ নিতে লাখাই যেতে চাইলে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের বাধা প্রদান করা হয়। হবিগঞ্জ সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী বেলাল সহ বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদলসহ অঙ্গ সংগঠনের অসংখ্য নেতাকর্মীরা লাখাই যেতে চাইলে বাধা প্রদান করা হয়। এ সয়ম অনেক নেতাকর্মীকে লাঞ্ছিত করা হয়। কেউ কেউ বাধা উপেক্ষা করে যেতে চাইলে হামলার শিখার হন। সকাল ১০ টার টিকে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা অবস্থান নেন লাখাই সড়কের রিচি ইউনিয়ন অফিস প্রাঙ্গণে। পরে তারা অবস্থান নেন দুর্লভপুর-ছোট বহুলা সড়কের পয়েন্টে। কোন অবস্থাতেই যেন বোন নেতাকর্মী লাকাই যেতে না পারে সে জন্য ওই সড়কে চলাচলকারী যানবাহনের প্রতি কড়া নজর রাখা হয়। কোন মাইক্রো ওই এলাকা দিয়ে গেলেই এর গতিরোধ করে চেক করা হয়। দুপুর ১২ টার দিকে যুবদলের একদল নেতা-কর্মী দুর্লভপুর গ্রামের ভেতর দিয়ে লাখাই যেতে চাইলে দুর্লভপুর সড়ক পয়েন্টে বাধার সম্মূখিন হন। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। উভয় পক্ষের মধ্যে দীর্ঘ বাদ প্রতিবাদের পর স্থানীয় মুরুব্বীদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আমিনুর রশীদ এমরান ও এমজি মোহিত এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা জানান, বিএনপির ত্রাণ বিতরণ সম্পর্কে কারো সাথে কোন পরামর্শ করা হয়নি। কাউকে কিছু জানানো হয়নি। মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের বাদ নিয়ে ব্যক্তি বিশেষের আমন্ত্রণে ত্রাণ বিতরণের আয়োজন করা হয়েছে। ত্রাণ বিতরণের বিষয়টিও জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দের নিকট গোপন রাখা হয়। জি কে গউছ একক ভাবে এ আয়োজন করেন। কেন এই গোপনীয়তা কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের নিকট থেকে এর উত্তর জানার জন্য বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা রাস্তায় অবস্থান নেয়। এ বিষয়ে বিএনপি নেতৃবৃন্দ এসে তাদের ব্যাখ্যা দিলে আর কোন সমস্যা হতো না।
এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জি কে গউছ বলেন, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের পরামর্শ অনুযায়ী ত্রাণ বিতরণের আয়োজন করা হয়েছে। জেলা পর্যায়ে কাউকে দাওয়াত দেওযার দায়িত্ব আমাকে কেন্দ্র থেকে দেয়া হয়নি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com