সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৪২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
প্রেমিকার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করায় তেঘরিয়ার খোকনকে গলা টিপে হত্যা ॥ প্রেমিকা ও তার বন্ধু ও বান্ধবী গ্রেফতার হবিগঞ্জ জেলাকে মডেল হিসেবে গড়ে তুলতে চান জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহান খোশ আমদেদ মাহে রমজান সার-বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে এমপি আবু জাহির ॥ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ না করে রাস্তায় বের হওয়া মানেই জীবনের ঝুঁকি ব্রি ৮৮ জাতের নতুন ধান আগাম কাটতে পেরে বেজায় খুশি কৃষক হবিগঞ্জে স্বাস্থ্য-বিধি লঙ্ঘনের করায় ৪০ জনকে জরিমানা ঠিকাদারের বিরুদ্ধে সুতাং বাজারের পুরাতন ব্রীজের রাড বিক্রির অভিযোগ ॥ ট্রাক বোঝাই রড আটক বানিয়াচংয়ে ব্র্যাক সিড এর ধান কর্তন সহায়তা কর্মসূচি ল্যাবএইড হাসপাতালে ৮ কেজি ওজনের টিউমার অপসারণ সংবাদ সম্মেলন দাবী ॥ গ্রাম্য মাতব্বরদের ইন্ধনে বানিয়াচংয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় নারী আহত
লাখাইয়ে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১ ॥ আহত ২০ ॥ আটক ৪

লাখাইয়ে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১ ॥ আহত ২০ ॥ আটক ৪

স্টাফ রিপোর্টার ॥ লাখাই উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ওয়াহিদ মিয়া (৪০) নামের এক ব্যক্তি নিহতসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এ সংঘর্ষ চলে। সংঘর্ষে বাড়ি ঘর ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ ঘটে।
স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, মুড়াকড়ি ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামের ৬নং ওয়ার্ডের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও মেম্বার মুজিবুর রহমানের সাথে মেম্বার প্রার্থী হিরা মিয়া ও কটন মিয়ার নির্বাচনী বিরোধসহ আধিপত্য নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। সম্প্রতি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মুজিবুর রহমানের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে কটন মিয়া ও হিরা মিয়া পরাজিত হয়। এরপর থেকে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এর জের ধরে গতকাল বৃহস্পতিবার উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে ফিকলের আঘাতে ঘটনাস্থলেই ওয়াহিদ মিয়ার মৃত্যু হয়। ফিকলের আঘাতটি ওয়াহিদ মিয়ার চোখ দিয়ে প্রবেশ করে মাথার পেছন থেকে বের হয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় ধনু মিয়া (৫০), ফুরুক মিয়া (৪৫) ও বারিক মিয়া (২০) কে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর মাঝে ধনু মিয়াকে টেটাবিদ্ধ অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। খবর পেয়ে লাখাই থানার ওসি মোজাম্মেল হকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ফের সংঘর্ষ এড়াতে ওই গ্রামে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। গ্রেফতার আতংকে ওই গ্রাম পুরুষশূণ্য হয়ে পড়েছে। এ বিষয়ে ওসি জানান, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে তাদের মাঝে সংঘর্ষ হয়েছে।
এদিকে রাতেই লাখাই থাকার ওসি মোজ্জামেল হকের নেতৃতৃত্বে একদল পুলিশ লক্ষীপুর গ্রাম অভিযান চালিয়ে হত্যাকান্ডের ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে আনছার মিয়া, শেরু মিয়া, সুজন মিয়া, খসরু মিয়াকে গ্রেফতার করেছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com