রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৬:০৩ অপরাহ্ন

নবীগঞ্জের কসবা গ্রামে আবারো খুন চরম উত্তেজনা ॥ পুলিশ মোতায়েন

নবীগঞ্জের কসবা গ্রামে আবারো খুন চরম উত্তেজনা ॥ পুলিশ মোতায়েন

এটিএম সালাম, নবীগঞ্জ থেকে ॥ নবীগঞ্জের বহুল আলোচিত কসবা গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় আজিজুল ইসলাম (৩০) নামে এক যুবক খুন হয়েছে। সে ওই গ্রামের মৃত আব্দুল করিম এর পুত্র। ট্রিপল মার্ডারের ঘটনায় কিছুদিন শান্ত থাকার পর এ খুনের ঘটনায় গ্রামে আবারো চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। গতকাল শনিবার বিকেল ৫টার দিকে আজিজুল ইসলামের উপর হামলার ঘটনাটি ঘটে।
Untitled-1 copy.jpgqw]সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বিকেল ৫টার আজিজুল ইসলাম স্থানীয় বান্দের বাজার থেকে বাড়ি যাবার পথে প্রতিপক্ষের লোকজন আজিজুলের উপর হামলা চালায়। হামলাকারীরা তার শরীরে গলাসহ বিভিন্ন স্থানে রামদা দিয়ে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে। করলে সে গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন।
পূর্ব বিরোধের জের ধরেই এ খুনের ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে। এলাকাবাসী জানান, গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুটি পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এক পক্ষের নেতৃত্বে রয়েছেন ফারুক আহমদ ও অপর পক্ষে স্বপন আহমদ। কয়েক বছর ধরে চলে আসা বিরোধের জের ধরে অসংখ্য সংঘর্ষ, হামলা, লুটপাট, অগ্নিসংযোগসহ খুনের ঘটনা ঘটেছে। উভয় পক্ষে একাধিক মামলা মোকদ্দমাও রয়েছে। সর্বশেষ গত বছরের প্রথম দিকে ফারুক আহমদ পক্ষের হামলায় ৩টি খুনের ঘটনা ঘটে। গত শুক্রবার বিকেলে সহকারী পরিচালক র‌্যাব-৯ কোম্পানী কমান্ডার মাঈন উদ্দিন চৌধুরী কসবা গ্রামে অভিযান চালিয়ে ট্রিপল মার্ডার মামলার ৩নং আসামী ফারুক আহমদ ও ছমির হোসেনকে গ্রেফতার করেন। এর জের ধরেই গতকাল শনিবার আজিজুল ইসলাম খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে গ্রামবাসী জানান।
এদিকে আজিজুল ইসলামের মৃত্যুর খবর এলাকায় পৌছুলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। নিহতের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। নিহতের মা কলই বিবি, বোন আফিয়া বেগম ও নীলু বেগমসহ স্বজনদের আহাজারিতে এলাকার বাতাস ভারি হয়ে উঠে। ঘটনার খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনর্চাজ মোঃ আব্দুল বাতেন খাঁন ও ইনাতগঞ্জ ফাঁড়ি পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এই ঘটনার জের ধরে যে কোন সময় বড় ধরণের সংঘর্ষের আশংকা করছেন এলাকাবাসী। তবে রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতারের খবর পাওয়া যায়নি। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে অফিসার ইনর্চাজ মোঃ আব্দুল বাতেন খান বলেন, ঘটনার পর পরই জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয়েছে। কাউকে না পাওয়ায় গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এলাকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com