শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:৪০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
জেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ আলেয়া-জাহির নকআউট ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের পুরস্কার বিতরণ বাংলাদেশ পুলিশ পদক পেলেন এসপি ছাইদুল হাসান শামীম সদর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মহিবুল ইসলাম শাহীনের প্রার্থীতা ঘোষণা মক্রমপুর ইউনিয়ন ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের পক্ষ থেকে হত-দরিদ্র ১৮ শিক্ষার্থীকে বিদ্যালয়ে ভর্তি শচীন্দ্র কলেজে মহান ভাষা দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন হবিগঞ্জ শহরে বিদ্যুতের ভেলকীবাজিতে নাভিশ্বাস শায়েস্তাগঞ্জে পুলিশের অভিযান চোরই মালামালসহ আটক ৩ ইরানে আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম হবিগঞ্জের হাফেজ বশীর আহমেদ মাধবপুরে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ ॥ আহত ১৮

স্বতন্ত্র প্রার্থী হচ্ছেন এমপি মজিদ খান ও মিলাদ গাজীর ভাই শাহেদ গাজী

  • আপডেট টাইম বুধবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৬৯ বা পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হচ্ছেন হবিগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট আব্দুল মজিদ খান ও হবিগঞ্জ-১ আসনের এমপি গাজী শাহ্ নওয়াজ মিলাদের ছোট ভাই গাজী মোহাম্মদ শাহেদ। গতকাল মঙ্গলবার এমপি মজিদ খান হবিগঞ্জ জেলা রির্টানিং অফিসারের কাছ থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। গাজী শাহেদ ফরমের জন্য টাকা জমা দিয়েছেন। আগামীকাল ফরম সংগ্রহ করবেন বলে জানা গেছে। এমপি আব্দুল মজিদ খান হবিগঞ্জ-২ আসনের টানা তিনবারের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তিনি এবারও এই আসন থেকে দলীয় প্রতিকে নির্বাচন করার জন্য আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছিলেন। কিন্তু দলীয় সিদ্বান্তে এই আসনে নৌকার মনোনয়ন দেয়া হয়েছে এডভোকেট ময়েজ উদ্দিন শরিফ রুয়েলকে। রুয়েল বানিয়াচং-আজমীরিগঞ্জ আসনের সাবেক এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এডভোকেট শরিফ উদ্দিন মাস্টারের ছেলে। এড. রুয়েল বর্তমানে হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদকের দায়ীত্ব পালন করছেন। অপর দিকে, হবিগঞ্জ-১ নবীগঞ্জ-বাহুবল আসনেও বর্তমান সংসদ সদস্য গাজী মো. শাহ নওয়াজ মিলাদ এবারও নৌকার মনোনয়ন চেয়েছিলেন। এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী দিয়েছে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ডা. মুশফিক হোসেন চৌধুরীকে। গাজী শাহেদ কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য। তার আপন ভাই বর্তমান এমপি মিলাদ গাজী নৌকার মনোনয়ন চেয়েও পাননি। মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার শেষ সময় আগামী ৩০ নভেম্বর। যাচাই-বাচাই ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর। আপিল ৬ থেকে ১৫ ডিসেম্বর। প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ১৭ ডিসেম্বর। প্রতিক বরাদ্ধ ১৮ ডিসেম্বর এবং এই দিন থেকে প্রচারণা শুরু হয়ে চলবে ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত। সবশেষ আগামী ৭ জানুয়ারী ভোট উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে দেশের অধিকাংশ নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করলেও বিএনপি এখনও সরকারের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com