সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৩:১৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
প্রেমিকার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করায় তেঘরিয়ার খোকনকে গলা টিপে হত্যা ॥ প্রেমিকা ও তার বন্ধু ও বান্ধবী গ্রেফতার হবিগঞ্জ জেলাকে মডেল হিসেবে গড়ে তুলতে চান জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহান খোশ আমদেদ মাহে রমজান সার-বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে এমপি আবু জাহির ॥ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ না করে রাস্তায় বের হওয়া মানেই জীবনের ঝুঁকি ব্রি ৮৮ জাতের নতুন ধান আগাম কাটতে পেরে বেজায় খুশি কৃষক হবিগঞ্জে স্বাস্থ্য-বিধি লঙ্ঘনের করায় ৪০ জনকে জরিমানা ঠিকাদারের বিরুদ্ধে সুতাং বাজারের পুরাতন ব্রীজের রাড বিক্রির অভিযোগ ॥ ট্রাক বোঝাই রড আটক বানিয়াচংয়ে ব্র্যাক সিড এর ধান কর্তন সহায়তা কর্মসূচি ল্যাবএইড হাসপাতালে ৮ কেজি ওজনের টিউমার অপসারণ সংবাদ সম্মেলন দাবী ॥ গ্রাম্য মাতব্বরদের ইন্ধনে বানিয়াচংয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় নারী আহত
দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক সুশান্তসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মাহি’র ৫ কোটি টাকার মানহানি মামলা

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক সুশান্তসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মাহি’র ৫ কোটি টাকার মানহানি মামলা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জের দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক সুশান্ত দাশ গÍপ্তসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে ৫ কোটি টাকার মানহানি মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে বিজ্ঞ বিচারক শাহিনুর আক্তারের আদালতে এ মামলাটি দায়ের করেন হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান মাহি। মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছে আদালত। মামলার অন্যান্য আসামী হলেন-মাধবপুরের ধর্মঘর ইউনিয়নের মালঞ্চপুর গ্রামের জহিরুল ইসলামের ছেলে নুর আলম ওরফে শাহীন, তার ভাই মাহতাবুর আলম জাপ্পি, পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক নুরুজ্জামান মানিক, বার্তা সম্পাদক রায়হান উদ্দিন সুমন, স্টাফ রিপোর্টার তারেক হাবিব, সোনালী প্রিন্টিংস ও মুদ্রাকার এর পরিচালক শোয়েব চৌধুরী, হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লুকড়া ইউনিয়নের যাদবপুর গ্রামের শাহজাহান মিয়ার স্ত্রী নাজিরা বেগম ও তার স্বামী শাহজাহান মিয়া। মামলার এজাহারের তিনি উল্লেখ্য করেন আসামীরা আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় বিভিন্ন সময় মানহানিকর সংবাদ প্রকাশ করে এবং তা ফেসবুকের মাধ্যম প্রচার করে সমাজের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের সম্মানহানী করে আসছেন। ব্ল্যাকমেইলিং এর মাধ্যমে নিরীহ লোকজনকে হয়রানী করাই তাদের পেশা এবং নেশা। আসামীরা মানহানি এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার আসামীও। মামলার ১ ও ৭নং পরস্পর যোগসাজসে বিভিন্ন সময় আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত সংবাদ প্রকাশ ও প্রচার করে আমার সম্মানহানী করে। মামলার ৮ ও ৯নং আসামী জাল দলিল সৃষ্টি করিয়ে সংবাদপত্রে মিথ্যা ও তথ্য সরবরাহ করে আমার সম্মানহানী করে। গত ২৪ জুলাই দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রনোদিত ও মিথ্যাভাবে হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি-সেক্রেটারীর কান্ড মাধবপুর ছাত্রলীগের সেক্রেটারী পদ দিতে ২০ লাখ টাকা লেনদেন শীর্ষক সংবাদ প্রকাশ করে। যাহা আদৌ সত্য নয়। ২ দিন পর অথাৎ ২৬ জুলাই আবারও দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় “পদ দেয়ার প্রলোভন হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি-সেক্রেটারীর আর্থিক কেলেংকারী ফাঁসের পর আরেক কান্ড, মাধবপুর উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা মাহতাবুর আলম জাপ্পিকে পুলিশ পরিচয়ে হুমকি” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। যাহা আদৌ সত্য নয়। পরবর্তীতে ২৮ জুলাই দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবেঃ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা, হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান মাহির বিরুদ্ধে এবার জমি দখলের অভিযোগ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। এছাড়া গত ৭ আগস্ট একই বিষয়ে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগ বরাবরে অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি, জেলা ছাত্রলীগের সদ্য স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাহি’র বিরুদ্ধে জায়গা দখলের ঘটনায় তোলপাড়” বাস্তবে সংবাদে উল্লেখিত জমির বায়নাসূত্রে মালিক আমার ভাই এরশাদ মিয়া। এ ব্যাপারে আদালতে কবলা পাওয়ার জন্য মামলা চলমান রয়েছে। এই মামলার ৮নং আসামী মোছাঃ নাজিরা বেগম আদালতে পক্ষভূক্ত হওয়ার জন্য আবেদন করলে বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা ১ম আদালত তার আবেদন খারিজ করে। বিজ্ঞ বিচারক আদেশে নাজিরা বেগমের দলিলকে ভূয়া বলে উল্লেখ্য করেন। কিন্তু ৮ ও ৯নং আসামী উক্ত মিথ্যা সংবাদে ভুল তথ্য পরিবেশন করে আমার সম্মানহানী করে। গত ১০ আগস্ট দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় মূর্তিমান আতংক হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সাইদুর-মাহি, জাপ্পির ২০ লাখ টাকার পর এবার রুপমের কাছ থেকে সাড়ে ৩ লাখ টাকা হাতানোর তথ্য ফাঁস, প্রহসনের বিচার আখ্যা দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা জাপ্পির ভাইয়ের” বাস্তবে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি। স্বয়ং রুপম হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে এ ধরণের ঘটনা অস্বীকার করেছেন। অস্বীকার করার পরও গত ১৪ আগস্ট দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির আরেক নাটক, পদ দেয়ার প্রলোভনে অর্থ হাতানোর পর অপকর্ম ডাকতে রুপমকে দিয়ে জোরপূর্বক সংবাদ সম্মেলন শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। যাহা আদৌ সত্য নয়। গত ২৩ আগস্ট দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় “দিনভর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হাস্যরস, গরু চুরি মামলার চার্জশীটভূক্ত আসামী জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান মাহি’ বাস্তবে আমি কোন গরু চুরির ঘটনায় জড়িত ছিলাম না এবং উল্লেখিত মামলার এজাহার এবং এফআইআর এও আমার কোন নাম ছিল না। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উদ্দেশ্য প্রনোদিত ভাবে চার্জশীটে আমার নাম সংযুক্ত করে দেয়। যেহেতু, আমি ঘটনাতে সংযুক্ত ছিলাম না তাই বিজ্ঞ আদালত উক্ত মামলার রায় প্রদানকালে আমাকে বেকসুর খালস প্রদান করেন। কিন্তু জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা হয়েছে। গত ২৬ আগস্ট িৈদনক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে “হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাহি’র সহযোগি ইয়াবা মামুনের অডিও ফাঁস শিরোনামে একটি স্ট্যাটার্সে প্রদান করে। বাস্তবে মামুন একজন রাজনৈতিক কর্মী হলেও আমার ব্যক্তিগত সহযোগী নয়। তিনি এজাহারের আরো উল্লেখ্য করেন আসামীরা একের পর এক মিথ্যা এবং উদ্দেশ্য প্রনোদিত সংবাদ এবং ফেসবুকে প্রচারের ফলে আমার পারিবারিক, সামাজিক ও পেশাগত ভাবে প্রায় ৫ কোটি টাকার ক্ষতি সাধন করেছে। আসামীগণ ইচ্ছাকৃত ভাবে আমাকে সামাজিক পারিবারিক ও পেশাগত ভাবে মানহানি করার জন্য উক্ত মিথ্যা সংবাদ ও স্ট্যাটাস প্রকাশ করায় বিষয়টি আমার দৃষ্টি গোচর হওয়ার প্রয়োজনীয় গ্রহণে সামান্য বিলম্ব হয়েছে উল্লেখ্য করেন তিনি। এছাড়াও তিনি আরো উল্লেখ্য আসামীরা প্রত্যেকটি সংবাদ সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রনোদিত, মিথ্যা ও ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে। প্রতিটি সংবাদ বাদীকে সামাজিক ও পারিবারিক সম্মানহানি করা হয়েছে। তিনি আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে অবশেষে আদালতে বিচার প্রার্থী হন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com