শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ১০:৫৭ পূর্বাহ্ন

বাহুবলে একুশে বই মেলার ২য় দিন

বাহুবলে একুশে বই মেলার ২য় দিন

বাহুবল প্রতিনিধি ॥ বাঙালির ইতিহাস আর বাংলা ভাষার ইতিহাস একই অঙ্গের দুটি বৃত্তের ইতিহাস। একটি ছাড়া যেন অপরটির অস্তিত্ব কল্পনা করা যায় না। বাংলা অতি প্রাচীন দেশ, বাঙালি একটি প্রাচীন জাতি, আর বাংলা ভাষা একটি প্রাচীন ভাষা। অতি প্রাচীনকালে আজ থেকে পাঁচ হাজার বছর পেছনে ফিরে গেলে বঙ্গ নামে একটি দেশের উল্লেখ পাওয়া যায়। সে সময় থেকে খ্রিষ্টীয় ৭ম শতক পর্যন্ত প্রাচীন বঙ্গভূমি কয়েকটি জনপদে বিভক্ত ছিল। আজকের এই বাহুবল অঞ্চল সমতটেরই অন্তর্গত ঘটে। বাংলাদেশ আমার আপনার জন্মভূমি, মাতৃভূমি। মা জন্ম দেয়, আর মাতৃভূমি লালন করে ছায়া দিয়ে বড় করে। এক সময় মায়ের দাবি ফুরিয়ে আসে, কিন্তু জন্মভূমির দাবি শেষ হয় না। গতকাল রবিবার বিকালে বাহুবল উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত সপ্তদশ একুশে বইমেলার ২য় দিনে “বাংলা ভাষার ইতিহাস ও ঐতিহ্য” বিষয়ে আলোচনা সভায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ এমরান জাহান মূখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত হয়ে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
তিনি আরও বলেন, আমাদের বাংলা ভাষার মধ্যে বিদেশী ভাষার প্রভাব রয়েছে। যেভাবে বিদেশী মানুষ বাঙালির মধ্যে মিশে জাতিকে সমৃদ্ধ করেছে, যেমনি বিদেশী শব্দ বাংলা ভাষায় মিশে বাংলা ভাষাও আজ বৃদ্ধি লাভ করেছে। আমাদের কবি রবীন্দ্রনাথ থেকে নজরুল কাব্য রচনায় দেশী বিদেশী শব্দ ব্যবহার করে বাংলা ভাষাকে আরও সমৃদ্ধ করেছেন। আমাদের নিত্যদিনের কাজ কর্মে ব্যবহৃত কয়েকটি শব্দ আছেন যেমন, মোটা (মুণ্ড শব্দ), কোর্ট-কাচারি (ইংরেজি ও ফারসি শব্দ), সাবান, তামাক, জানালা, পাতি হাস (পতুর্গিজ শব্দ)। গবেষণায় জানা যায়, বাংলা ভাষায় এই রূপ বিদেশী শব্দের মিশ্রণ ঘটেছে শতকরা আট ভাগ। ভাষার ইতিহাস অনেক লম্বা। এই ইতিহাস সম্পর্কে জানতে হলে বই পড়তে হবে। আর এই বইয়ের জন্য আসতে হবে এমন জমজমাট বই মেলা। আসুন সবাই মিলে মেলায় এসে বই ক্রয় করি এবং অন্যকে বই ক্রয় করতে উৎসাহিত করি। বাহুবল উপজেলায় এতো বড় পরিসরে মেলার আয়োজন দেখে আমি মুগ্ধ। আমার জানামতে বাংলাদেশের আর কোন উপজেলাই এতো বড় বই মেলার আয়োজন হয় না। এটা আপনাদের ঐতিহ্য ও গৌরবের বিষয়। গত ১৭ বছর ধরে চলমান এই মেলাই প্রমাণ করে বাহুবলবাসী বই প্রেমী। আপনাদের বই মেলার এই আয়োজন অব্যাহত রাখতে ক্রেতার উপস্থিতি আরও বৃদ্ধি পেতে হবে। ছোট্ট একটি উপজেলায় এমন জমজমাট বই মেলা আয়োজনের সাথে জড়িত সকলকে আমার পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ রইল।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও মেলা উদযাপন কমিটির সভাপতি মোঃ জসীম উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আশিষ কর্মকারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আলোচনা উপ-কমিটির আহ্বায়ক ও বাহুবল মডেল প্রেসক্লাবের সভাপতি মোঃ নূরুল ইসলাম নূর।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com