সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৩:৪৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
আজ ঐতিহাসিক ৭ মার্চ হবিগঞ্জে ড্যান্ডি নেশায় ঝুঁকছে টোকাই শিশুরা প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলীর সাথে মেয়র সেলিমের শুভেচ্ছা বিনিময় নয়া জেলা প্রশাসক ইসরাত জাহানের দায়িত্ব গ্রহণ এমপি পুত্র ইফাত জামিলের আইন বিষয়ে ¯œাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন হবিগঞ্জ পৌর নির্বাচন ৭দিন আগে অনুষ্ঠিত হলেও শহরে বিরাজ করছে নির্বাচনী আমেজ! পোষ্টারে পোষ্টারে ছেয়ে আছে হবিগঞ্জ শহর ! এগুলো পরিস্কারের দায়িত্ব কার ? জন দূর্ভোগ ॥ নবীগঞ্জ-মুক্তাহার ব্রীজ বানিয়াচংয়ে প্রেমিকের ব্যবসা প্রতিষ্টানে প্রেমিকার অনশন ॥ সালিশে নিষ্পত্তির শর্তে মুরুব্বীদের জিম্মায় নবীগঞ্জে খোলা জায়গায় পশু জবাই করে বিক্রি ॥ পরিবেশ দুষিত হচ্ছেন পত্রিকায় লিখে কোন লাভ হবে না। কর্তারা তাদের ম্যানেজ নবীগঞ্জে অসহায় ব্যক্তির অর্ধশতাধিক গাছ কর্তন
নবীগঞ্জে ফসলি জমির মাটি যাচ্ছে ইটভাটায় ॥ উর্বরতা হারাচ্ছে জমি, হুমকির মুখে পরিবেশ

নবীগঞ্জে ফসলি জমির মাটি যাচ্ছে ইটভাটায় ॥ উর্বরতা হারাচ্ছে জমি, হুমকির মুখে পরিবেশ

এটিএম সালাম, নবীগঞ্জ থেকে ॥ নবীগঞ্জে ফসলি জমির মাটি অবাধে ইটভাটায় যাচ্ছে। এতে একদিকে জমির উর্বরতা শক্তি নষ্ট হচ্ছে, অপরদিকে হুমকির মুখে পড়ছে পরিবেশ। এক্ষেত্রে নিয়মনীতির কোন তোয়াক্কাই করা হচ্ছেনা। এসব দেখভাল করার দায়িত্বে সংশ্লিষ্ট সরকারী কর্তৃপক্ষেরও কোন ভূমিকা নেই।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, নবীগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় বেশ কিছু ইটভাটা রয়েছে। এসব ইটভাটার মালিকরা গ্রামের সহজ সরল মনা জমি মালিকদের টাকার লোভ দেখিয়ে জমির উপরিভাগের মাটি কিনে নিচ্ছে। জমি থেকে মাটি বেচা-কেনা করার জন্য সৃষ্টি হয়েছে মধ্যস্বত্তভোগী এক শ্রেণির দালাল। দালালরা কম দামে জমির মাটি কিনে ইটভাটায় উচ্চ দামে বিক্রি করে থাকে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘরে সাধারণ মানুষের সাথে আলাপ করে জানা গেছে, প্রতি বছরের শীতের শুরুতে জমে উঠে এই ফসলি জমির মাটির বেচা-কেনার ব্যবসা। কৃষকরা জানান, জমির উপরিভাবে মটির উর্বরতা থাকে। এই উপরিভাগ থেকে মাটি নেয়ার ফলে উর্বরতা শক্তি নষ্ট হয়ে যায় এবং ওই জমিতে কোন ফসলই হয়না।
বিশেষজ্ঞদের মতে, জমির উর্বরা শক্তি উপরের ১২ থেকে ২০ ইঞ্চির মধ্যে থাকে। তাই উপরের মাটি বিক্রি করায় জমির উর্বরা শক্তি পুরোপুরি নষ্ট হয়ে যায়। এলাকার সমাজ সচেতন মহল দাবি করছেন, প্রতি বছর যে হারে ফসলি জমির মাটি বিক্রি হচ্ছে তা ভাল লক্ষণ নয়। এতে একদিকে যেমন ফসলি জমির উর্বরতা নষ্ট হচ্ছে আর অন্য দিকে পরিবেশের ভারসাম্য ও বিনষ্ট হচ্ছে। তাছাড়া ভবিষতে দেশে খাদ্য ঘাটতি ও দেখা দিতে পারে। পরিবেশের ভারসাম্য ও খাদ্য ঘাটতি মোকাবেলায় ফসলী জমির মাটি বিক্রি বন্ধ করা অতি জরুরী বলে তারা মতামত প্রকাশ করেন। গতকাল নবীগঞ্জ উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের সমরগাঁও এলাকায় এমনই এক জমি থেকে মাটি কেটে গাড়ীতে লোড করার দৃশ্য নজরে আসে এই প্রতিবেদকের। এসময় স্থানীয়দের সাথে আলাপকালে জানান, এই মাটি স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার নিজেই বিক্রি করছেন গোল্ড নামের একটি ইট ভাটায়। এ  ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ দুলাল উদ্দিন বলেন, ফসলী জমি থেকে মাটি কাটার ফলে জমির জৈব পদার্থ কমে যায়। এতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। এই জমিগুলোতে কয়েক বছর ভালো ফসল উৎপাদন হবে না। তাছাড়া পরিবেশের ও ভারসাম্যতা ক্ষতির সম্মুখিন হবে। দেশে চাহিদা মতো খাদ্য উৎপাদনের সার্থে ফসলী জমি থেকে মাটি কাটা বন্ধ করা জরুরী।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com