শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১০:০৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
শ্রমিক নেতার উপর হামলার ঘটনায় ॥ আজ থেকে হবিগঞ্জ-বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ ও নবীগঞ্জ রোডে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট হবিগঞ্জ ও শায়েস্তাগঞ্জে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বাড়ানো হয়েছে এলপি গ্যাসের দাম ॥ জরিমানা বামকান্দিতে মক্তবে পড়তে গিয়ে কিশোরী ধর্ষণের শিকার ॥ গ্রাম্য কোন্দলে ফাঁসানো হয়েছে’-আটক মোয়াজ্জিন চুনারুঘাটে ডিবির অভিযানে সরঞ্জামসহ ৫ জুয়াড়ি আটক বাহুবলে এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী’র শীতবস্ত্র বিতরণ চুনারুঘাট থানার ওসি রাশেদুল আলী আশরাফ সুনামগঞ্জে বদলী মাধবপুরে পাল মৃৎশিল্পীদের আধুনিকায়নের উপর দক্ষতা বৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত জগতপুরে নিহত হান্নানের দাফন সম্পন্ন ॥ সিএনজি চালককে সনাক্তের চেষ্টা হবিগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ সড়কে মাটি বোঝাই ট্রাক্টর চাপায় যুবক নিহত হবিগঞ্জে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

কালিয়ারভাঙ্গায় প্রতিবন্ধির হত্যার ঘটনার কয়েকদিন পর নিরীহ ব্যক্তিদের জড়ানোর অপচেষ্টা

  • আপডেট টাইম রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ২৩ বা পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নবীগঞ্জের কালিয়ারভাঙ্গা গ্রামে গত ২৯ নভেম্বর দুই মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তির মধ্যে ঝগড়ার এক পর্যায়ে একজনের লাঠির আঘাতে অপর ব্যক্তির মৃত্যু হয়। যা ওই এলাকাবাসী ও পুলিশের বরাতে হবিগঞ্জের প্রায় সবকটি গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়। কিন্তু ঘটনার কয়েকদিন পর একে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টা করছে একটি কুচক্রী মহল। বিষয়টির সাথে ওই এলাকার কিছু নিরপরাধ ব্যক্তিকে জড়িয়ে ফায়দা লুটবার চেষ্টা করা হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে কালিয়ারভাঙ্গা গ্রামের বিভিন্ন শ্রেণী ও বয়সের লোকজনের সাথে কথা বললে তারা জানান, ওই গ্রামের হাজী বাড়ি এলাকার মানসিক ভারসাম্যহীন মন্নান মিয়া ও ইদু মিয়া ঘটনার দিন একই সাথে একটি হাওরে এক সাথে ছিলেন। ওই সময় কোন একটা বিষয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া বেঁধে যায়। এসময় ইদু মিয়ার লাঠি দিয়ে মন্নান মিয়ার মাথায় আঘাত করেন। এতে গুরুতর আহত মন্নান মিয়াকে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে পরদিন মঙ্গলবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ ঘটনার কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীও ছিলেন।
এর মধ্যে স্কুল ছাত্র জানান, গরু চরানোর সময় সময় হঠাৎ ইদু মিয়া লাঠি দিয়ে মন্নান মিয়াকে আঘাত করলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। দেখার পর সে চিৎকার করে। এক পর্যায়ে হাওরে থাকা অন্য লোকজন ও পথচারীরা এগিয়ে এসে আহত মন্নান মিয়াকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠান। টুক চানপুর গ্রামের কয়েকজন প্রবীণ ব্যক্তি জানান, ওই দুই ব্যক্তি জন্ম থেকেই মানসিকভাবে অসুস্থ। যে কারণে তাদের বিয়ে পর্যন্ত হয়নি। তারা দুজন আবার একইসাথে সবসময় চলাফেরা করেন। ওইদিন একজন আরেকজনের পায়ে গোবর ছুড়ে মারা নিয়ে দুজনের মধ্যে ঝগড়া বেঁধে যায়। এ সময় ইদু মিয়া লাঠি দিয়ে মন্নানকে মাথায় আঘাত করেন। এই ঘটনা পুরো এলাকার সকলেই অবগত। স্থানীয়রা জানান, ইদু মিয়া লাঠির আঘাতে মন্নান মিয়া মারা গেছেন বলেই পুরো এলাকার মানুষ জানেন। কিন্তু এখন শোনা যাচ্ছে কয়েকজন নিরপরাধ ব্যক্তিকে এর সাথে জড়ানোর চেষ্টা করছেন কতিপয় লোক। সত্য ঘটনাকে ধামাচাপা দেয়া অন্যায়। এ ব্যাপারে কালিয়ারভাঙ্গা ইউপি সদস্য শফি আহমেদ বলেন, ইদু মিয়া ও মন্নান মিয়া দুজনই মানসিক প্রতিবন্ধী। তাদের নামে প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ডও আছে। ইদু মিয়ার আঘাতে মন্নান মিয়ার মৃত্যু হয়েছে। যা আমরা সকলেই জানি। কিন্তু এখন শোনা যাচ্ছে কয়েকজন নিরপরাধ মানুষের নামে থানায় মামলা বা অভিযোগ দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। যেহেতু দুজনই মানসিক প্রতিবন্ধী তাই আমরা স্থানীয়ভাবে বিষয়টি সুন্দরভাবে সমাধানের চেষ্টা করছি।
এ নিয়ে ১২নং কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক চৌধুরী জানান, আঘাতকারী ও নিহত ব্যক্তি দুজনই মানষিক প্রতিবন্ধি। কিন্তু এখন টাকার লোভে আরও কয়েকজনকে এই ঘটনায় হয়রানির চেষ্টা চলছে। বিষয়টি নিয়ে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ডালিম আহমেদ জানান, এখন পর্যন্ত মন্নান মিয়ার মৃত্যু নিয়ে কোন মামলা হয়নি। তবে অভিযোগ দেয়া হতে পারে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com