মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ১০:৪৩ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
পবিত্র আশুরা আজ বঙ্গমাতা ছিলেন বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক সহযোদ্ধা-এমপি আবু জাহির বানিয়াচঙ্গে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের তথ্য প্রেরণে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ ॥ তালিকায় রয়েছে একই পরিবারের ৪ জন আছে মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলার লোক ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ৯ জনের মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ দুর্দিনে বঙ্গবন্ধুকে অনুপ্রেরণা দিয়েছেন বঙ্গমাতা-মিজানুর রহমান শামীম জালালাবাদ এসোসিয়েশনের পুনর্বাসন কার্যক্রমে ১০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন সায়হাম গ্রুপের পরিচালক সৈয়দ ইশতিয়াক ও সৈয়দ শাফকাত হবিগঞ্জ-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী দুলাল আহমদ তালুকদার নিজামপুর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন ॥ আহ্বায়ক আসগর আলী, যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মিয়া থানা পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে সোর্স ও দালালদের অপকর্ম জ্বালানি তেল ও সারের দাম কমানোর দাবিতে হবিগঞ্জে বাসদের বিক্ষোভ

হবিগঞ্জ জেলায় বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত

  • আপডেট টাইম শনিবার, ২ জুলাই, ২০২২
  • ২৯ বা পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। কালনী ও কুশিয়ারা নদীর পানি এখনো বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী মিনহাজ আহমেদ শোভন জানান, কালনী ও কুশিয়ারা নদীর ভাটিতে পলিমাটি জমা হওযায় পানি কমতে সময় লাগছে। এছাড়া টানা বৃষ্টি ও উজানের ঢলে চলতি মাসে নতুন করে বন্যা হতে পারে।
পাউবো সূত্রে জানা গেছে, বন্যায় হবিগঞ্জ সদর উপজেলার গোপালপুরে ২০ মিটার, বানিয়াচংয়ের সুজাতপুর এলাকায় ৬০ মিটার খোয়াই নদীর বাঁধ ভেঙেছে। অপরদিকে আজমিরিগঞ্জে কুশিয়ারা নদীর বাঁধের নিকলীরঢালা এলাকায় ২০ মিটার, বদলপুর বাজারের কাছে ১০ মিটার ও নবীগঞ্জের চরগাঁওয়ে বিবিয়ানা নদীর বাঁধের ৮০ মিটার অংশ ভেঙে গেছে।
হবিগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শাকিল মোহাম্মদ ফয়সাল জানান, হবিগঞ্জ, বানিয়াচং আজমিরিগঞ্জ নবীগঞ্জ উপজেলায় ২৯ কিলোমিটার সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এসব সড়ক মেরামতে প্রায় ১৫০ কোটি টাকা প্রয়োজন।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) সূত্রে জানা গেছে, ১৮৭ কিলোমিটার রাস্তা, ৬৮ মিটার ব্রিজ ও কালভার্ট বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল বাছির জানান, সড়ক মেরামতে ৮২ কোটি ৭৪ লাখ, পাঁচটি ব্রিজের জন্য ৫ কোটি ১০ লাখ টাকা প্রয়োজন হবে।
কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত উপপরিচালক মো. আশেক পারভেজ জানান, বন্যায় ১৫ হাজার ৬২৮ হেক্টর আউশ, ১৪ হাজার ৬৩০ হেক্টর বোনা আমন ধান, ১ হাজার ৭৪৩ হেক্টর শাকসবজি ও ৪৫ হেক্টর অন্যান্য ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে ৮৮ হাজার ৫৪ মেট্রিক টন ধান ও সবজি এবং ২২৫ মেট্রিক টন অন্যান্য ফসল নষ্ট হয়েছে। জেলায় ১ লাখ ৩ হাজার ১৩০ জন কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।
জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা প্রকাশ রঞ্জন বিশ্বাস জানান, বন্যায় ২ কোটি ৬৯ লাখ ৫২ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে।
জেলা মৎস্য সম্পদ কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, জেলায় ৫ হাজার ৮৫৩ জন খামার মালিকের ১৩৯ কোটি ৮৫ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে।
জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, ৩৭০টি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্যায় প্লাবিত হয়। অপরদিকে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ রুহুল্লাহ জানান, জেলায় ৯৪টি স্কুল কলেজ মাদরাসা বন্যা কবলিত হয়।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com