সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০১:৫৪ অপরাহ্ন

নবীগঞ্জে দুই খুন, জনমনে আতংক পুলিশের নজরদারীতে একাধিক খুনী

নবীগঞ্জে দুই খুন, জনমনে আতংক পুলিশের নজরদারীতে একাধিক খুনী

এম এ বাছিত, নবীগঞ্জ থেকে ॥ নবীগঞ্জে একদিনের ব্যবধানে দুটি খুনের ঘটনা নিয়ে জনমনে আতংক দেখা দিয়েছে। উপজেলার দুই প্রান্তে অবস্থিত ইনাতগঞ্জ ও গোপলার বাজার পুলিশ ফাঁড়ি এলাকায় পৃথক দু’টি খুনের ঘটনায় তোলপাড় চলছে। নিরাপদ আবাসস্থলে (নিজ গৃহে) আলোচিত দুই খুনের সাথে জড়িত কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। এর মধ্যে একটি খুনের ঘটনায় মামলা হলেও অপর ঘটনায় এখনো মামলা হয়নি। মায়ের কোলের পর নিরাপদ আশ্রয়স্থল নিজগৃহে খুনের ঘটনায় বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। পুলিশের দাবি, ঘটনার সাথে জড়িত একাধিক খুনী নজরদারীতে রয়েছে। যে কোন মুহুর্তে তাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। রহস্য উদঘাটন ও খুনীদের গ্রেফতারে আইন শৃংখলা বাহিনীর একাধিক টিম মাঠে তৎপর রয়েছে। সার্বিক বিষয় মনিটরিং করছে হবিগঞ্জ পুলিশ সুপার কার্যালয়। এছাড়াও বুধবার রাতে উপজেলা শহরের বাংলাবাজার এলাকায় হাত, পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় এক শ্রমিককে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় লোকজন। আশংকাজনক অবস্থায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। অল্পের জন্য মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষাপায় ওই যুবক।
এদিকে রহস্যজনক দু’টি খুনের ঘটনা ছাড়াও রাতের আধারে অস্তিতিশীলতা নিয়ে বিপাকে রয়েছে পুলিশ প্রশাসন। রহস্য উদঘাটন ও খুনের সাথে জড়িত দুর্বৃত্তদের গ্রেফতারে আইন শৃংখলা বাহিনীর একাধিক সংস্থা মাঠে তৎপর রয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে শীঘ্রই নৃশংস দুই খুনের ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার বিষয়ে মনিটরিং করছে হবিগঞ্জ পুলিশ সুপার কার্যালয়।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের ইছবপুর গ্রামে নিজ গৃহে খুন হন নীলু সূত্রধর (৬০) নামের এক বৃদ্ধা। দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে ঘটনাস্থলেই খুন হন তিনি। এসময় তার মেয়ে শিল্পী সূত্রধর (৩০) গুরুতর আহত হয়। তাদের আর্ত চিৎকারে প্রতিবেশী লোকজন এগিয়ে আসলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে হবিগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করে। আশংকাজনক অবস্থায় আহত শিল্পীকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল পুলিশ প্রহরায় ভর্তি করা হয়। নিহত নীলু সূত্র ধরের একমাত্র পুত্র কুয়েত প্রবাসী জীবন সূত্রধর বৃহস্পতিবার দেশে আসার পর তাঁর মা নীলু সূত্রধরকে স্থানীয় শ্মশানে দাহ করা হয়। এরিপোর্ট লিখা পর্যন্ত এনিয়ে থানায় কোন মামলা হয়নি। চাঞ্চল্যকর ঘটনায় নিহত নীলুর পুত্র জীবন সূত্রধর বলেন, তাদের সাথে কারো কোন পারিবারিক শত্র“তা ছিলনা। তিনি তাঁর মায়ের খুনীদের শাস্তি দাবি করেন। এঘটনায় পুলিশ অধিকতর তদন্ত শুরু করেছে। হবিগঞ্জ পুলিশের সহকারী সুপার পারভেজ আলম চৌধুরী বলেন, রহস্য উদঘাটনে আইন শৃংখলা বাহিনীর একাধিক সংস্থা মাঠে তৎপর রয়েছে। বুধবার দিবাগত রাতে উপজেলার দিনারপুর পরগণার দেবপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ হোসেনপুর গ্রামে যুক্তরাজ্য প্রবাসীর সহোদর আব্দুল কাদির নামের এক যুবককে (৩৫) তার নিজ গৃহে শ্বাসরোধে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ময়না তদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার তাকে সমাহিত করা হয়। এনিয়ে ওই এলাকায় তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে। নিহত আব্দুল কাদির ওই গ্রামের মৃত আমীর উদ্দিনের পুত্র। এনিয়ে নবীগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় প্রতিপক্ষের লোকজন পরিকল্পিত ভাবে বালিশ চাপা দিয়ে তাকে হত্যা করেছে মর্মে অভিযোগ করা হয়। নিহতের ভাই আবুল হাসান বাদী হয়ে ৪ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামী করে থানায় মামলা করেন। একই গ্রামের মৃত কালা মিয়ার পুত্র সফিক মিয়া গংদের সাথে জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের হিসেবে তাদের বিরুদ্ধে হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগ উঠে। পরপর দু’টি চাঞ্চল্যকর ঘটনা নিয়ে জনমনে আতংক দেখা দিয়েছে। এনিয়ে নবীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন বলেন, রহস্যজনক এসব ঘটনা নিয়ে নিরলস ভাবে কাজ করছে পুলিশ। দুর্বৃত্তদের অনেকেই নজরদারীতে রয়েছে। দ্রুত রহস্য উদঘাটন এবং খুনিদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com