সংবাদ শিরোনাম : 

 **  নবীগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ অধ্যক্ষকে ছুরিকাঘাতকারী মুন্না কারাগারে **  নবীগঞ্জে জ্যোকের কামড়ে শিশুর অবস্থা আশঙ্কাজনক **  নবীগঞ্জ পৌরসভার নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগের তদন্ত ২৬ জুলাই **  হবিগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত **  মারিয়া বেগমের ম্যানচেস্টার মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি থেকে স্নাতক ডিগ্রী লাভ **  বানিয়াচংয়ে ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা নিয়ন্ত্রণহীন **  নবীগঞ্জে মালিকানাধীন ভূমি দখলের অপচেষ্টা **  শহরের আবাসিক হোটেলে দেহ ব্যবসা ॥ যুবক-যুবতী আটক **  চুনারুঘাটে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে কৃষকের মৃত্যু **  ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুর রহমানে উপর হামলার প্রতিবাদে জেলা চাউল কল মালিক সমিতির নিন্দা প্রকাশ **  লাখাইয়ে ৩ সন্তানের জননীর আত্মহত্যা **  রাষ্ট্রপতির সাথে শাহজাহান কবির ও স্ত্রী তাসলিমা কবির খানের সৌজন্য সাক্ষাত **  বানিয়াচঙ্গে নজমুল হাসান জাহেদ একাডেমীর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকালে স্যার ফজলে হাসান আবেদ ॥ কোটি ছেলে-মেয়েকে প্রাইমারী শিক্ষায় শিক্ষিত করেছে ব্র্যাক **  নবীগঞ্জে লন্ডন প্রবাসীর বাড়িতে দুর্বৃত্তদের হামলা ১০ জন আহত ॥ নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার লুটের অভিযোগ

চুনারুঘাট মক্তবের জায়গা দখলের চেষ্টা ॥ আদালতের শোকজ

চুনারুঘাট প্রতিনিধি ॥ চুনারুঘাট উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের গোবর খলা গ্রামের মৃত খুর্শেদ আলীর পুত্র শওকত হায়দার সবুজ দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন নিরীহ মানুষজন ও মক্তব মসজিদের জায়গা প্রতারণা করে দখলের চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। এলাকাবাসী জানান ভূমি দস্যু সবুজ গোগাউড়া গ্রামের মফিজ উল্লার স্ত্রী মমিন চান বানুর দানকৃত মক্তবের ভূমি দীর্ঘদিন যাবৎ দখলে নেয়ার জন্য পায়তারা করে আসছে। এ অবস্থায় নিরূপায় হয়ে নেওয়া বেগম গংরা বাদী হয়ে সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে গত ১ জানুয়ারী একটি স্বত্ব মামলা দায়ের করেন। মামলা করার পরেও থামেনি শওকত হায়দার সবুজের ভূমি দস্যুতা। গতকাল বিচারক কাজী আল ফারাবী সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলাটি দীর্ঘ শুনানীর পর ভূমি দস্যু সবুজকে আগামী ১০ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য আদেশ প্রদান করেন। এ আদালতে মোকদ্দমার বাদী উক্ত মামলায় উল্লেখ করেন, তার বাবা মোতওয়াল্লী মৃত আব্দুল হাই। নানা মফিজ উল্লা ও নানী মমিন চাঁন মক্তবের নামে এস,এ ৫০৬নং খতিয়ানের ৩৪৭৫ দাগের ৪৫ শতক, এস,এ-৫৩৯ নং খতিয়ানে ৩৪৯৮ দাগে ১০ দশ শতক। এস,এ ৩৪৯২ দাগে ১৫০ শতক, এস,এ-৩৪৭২ দাগে ২৯ শতক একই মৌজার ৭১ খতিয়ানে ৩৫১৮নং দাগে ২১ শতক ভূমিসহ মোট ২৩৪ শতক বিগত ২৩/১০/১৯৭৩ইং তারিখে রেজিষ্ট্রিকৃত ৩৩৮৬/৭৩ইং নং ওয়াকফ্ দলিল সম্পাদন করে ওয়াকফ্ দলিলের শর্ত মোতাবেক ওয়াকফ্ দাতা নিজে মোতাল্লী ও তার মৃত্যুর পর তার স্ত্রী মমিন চান বানু। মমিন চান বানুর মৃত্যুর পর তার ওয়ারিশ আব্দুল হাই। আব্দুল হাই এর মৃত্যুর পর ভূমি দাতার অঙ্গীকার মতে অত্র মোকদ্দমার বাদী মোতাওয়াল্লী হিসেবে যথাযথ দায়ীত্ব পালন করে আসিতেছেন। বাদী জানান যে, তার মা বৃদ্ধা হওয়ায় যথাযথ দায়ীত্ব পালন করতে না পারায় স্থানীয় এলাকাবাসী ও আশেপাশের লোকজন রেজুলেশন করে দলিল মোতাবেক উক্ত নেওয়া বেগমের পুত্র রুবেল মিয়াকে ওয়ারিশ মোতাবেক মক্তবের মোতাওয়াল্লী হিসাবে দায়ীত্ব প্রদান করেন। এলাকাবাসী জানান ইতিপূর্বেও সবুজ মিয়া বিভিন্ন নিরীহ লোকজনের জায়গা-জমি জোরে বলে প্রতারণা করে দখল করে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে রফা দফা করে নেয়।

Powered by WordPress | Designed by: search engine rankings | Thanks to seo services, denver colorado and locksmiths

Design & Developed BY PopularServer.Com