শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ০১:১০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
ভারতীয় নাগরিকের পিটুনীতে বাংলাদেশী খুন ॥ লাশের অপেক্ষায় স্বজনরা বানিয়াচংয়ের বিভিন্ন বাজারে সেনাবাহিনীর জনসচেতনতামূলক প্রচারাভিযান শ্রীমঙ্গলে ৬৭ টি মামলায় ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা নবীগঞ্জে সরকারের অর্থ সহায়তার তালিকায় নারী কাউন্সিলরের পরিবারের ৬ সদস্যের নাম শচীন্দ্র লাল সরকারের সমাধীতে জেলা সিপিবি, উদীচী, কিবরিয়া ফাউন্ডেশন, সচেতন নাগরিক কমিটি ও মাতৃছায়া কেজি এন্ড হাইস্কুলের পুষ্পস্তবক অর্পন দৈনিক খোয়াই পত্রিকার সার্কুলেশন ম্যানেজার সাইফুলের পিতার ইন্তেকাল নবীগঞ্জে ভাতিজার হাতে চাচা খুন শ্রীমঙ্গলে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শ্রীমঙ্গল পৌরসভার কাউন্সিলর আব্দুল আহাদের মৃত্যু বানিয়াচঙ্গের হাওর থেকে অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার হবিগঞ্জে জমি নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১
১০ টাকার চাল কেনার কার্ড আমাকে কেউ দিল না”

১০ টাকার চাল কেনার কার্ড আমাকে কেউ দিল না”

কিবরিয়া চৌধুরী, নবীগঞ্জ থেকে ॥ “কোনো দিন খাবার জুটে, কোনো দিন জুটেনা”। অথচ আমাকে ১০ টাকার চাল কেনার কার্ড কেউ দিল না‘। ক্ষোভ এবং দীর্ঘশ্বাস ফেলে এসব কথা বলছিলেন নবীগঞ্জ উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের কুর্শি গ্রামের অসহায় দিনমজুর রিক্সাচালক বাহার আলী (৫২)। তিনি কুর্শি গ্রামের গাংপাড়ে প্রায় দেড় শতাংশ জায়গার মধ্যে ভাঙ্গা ঘরে প্রায় ১০ বছর ধরে বসবাস করে আসছেন। এর আগে কুর্শি গ্রামের ভিতরে বসবাস করতেন তিনি। সকালে বের হয়ে সারা দিন রিক্সা চালিয়ে চাল ডাল কিনে স্ত্রী সন্তান মিলে ৮ সদস্যের জীবিকা নির্বাহ করেন তিনি।
বাহার আলী বলেন, ‘সারাদিন এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে রিক্সা চালিয়ে আয় হয় ২৫০ থেকে ৩’শ টাকা। দৈনিক এই আয়ে ৪০ টাকা কেজিতে ৩ কেজি চাল ১২০ টাকায় কিনতে হয়। বাকি টাকায় শাক সবজি কিনে জীবন চালাতে হয়। টাকার স্বল্পতায় ইচ্ছা থাকার পরও বছরে একদিনও ভাল খাবার জোটে না। তার প্রশ্ন, ‘এই আর্থিক দূরাবস্থায় আমি কি সরকারের ১০ টাকার চাল কেনার কার্ড পাওয়ার উপযোগী নই? অথছ সরকার আমাদের মত অসহায় মানুষের জন্যই এই কর্মসূচি চালু করেছে। কিন্তু যারা কার্ড তৈরী করেছেন ‘অনেকের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কার্ড পাইনি। কেউ এই কার্ড পাওয়ার সুযোগ করে দেয়নি। আমাকে যদি ১০ টাকায় চাল কেনার কার্ড দেওয়ার ব্যবস্থা করা হতো তাহলে দিনের সামান্য উপার্জনের টাকা বাঁচিয়ে মাঝে মধ্যে মাছ মাংস কিনে খাওয়াতে পারতাম বাচ্ছাদের।
জানা গেছে, সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় ১০ টাকায় প্রতি কেজি চাল কেনার কার্ড সারা দেশের মতো নবীগঞ্জের কুর্শি ইউনিয়নে চালু করা হয়। এই কর্মসূচিতে কুর্শি ইউনিয়নে প্রায় ১হাজার ৮৮জনের মাঝে ১০ কেজির কার্ড বিতরণ করা হয়। অসহায় বাহার আলী খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির এই কার্ড পাওয়ার উপযোগী হলেও কেউ এই অসহায় মানুষটিকে চোখে দেখেননি।
এ ব্যাপারে উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা জানান, এসব কার্ড বাছাই নিজ নিজ ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরা করে থাকেন। অসহায় বাহার আলী ১০ টাকার চাল কেনার কার্ড না পাওয়ার ব্যাপারে কুর্শি ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ফারছু মিয়া মোবাইল ফোনে বার বার চেষ্টা করে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। কুর্শি ইউনিয়নের সাবেক এক সদস্য বলেন, ‘তিনি (চেয়ারম্যান) অসহায়দের বাদ দিয়ে স্বাবলম্বীদের মাঝে এ কার্ড দিয়েছেন। এ কারণে অনেক গরীব অসহায় মানুষ ১০ টাকার চাল কেনার খাদ্যবান্ধব কার্ড পায়নি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com