মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ০২:৫৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
মাধবপুরে অসহায় দুইশত পরিবার ঘরে বসে পেল খাদ্য সামগ্রী হবিগঞ্জের প্রাইভেট ডাক্তারদের মধ্যে পিপিই বিতরণ করেছেন ডাঃ মুশফিক হোসেন চৌধুরী করোনা সঙ্কটের মধ্যে চুনারুঘাটে মশার উৎপাত মাধবপুরের জগদীশপুরে ত্রান বিতরণ ডাঃ ফাতেমা খানম হবিগঞ্জে আলেম সমাজের সাথে এমপি আবু জাহির এর মতবিনিময় ॥ করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বিধি-বিধান মেনে চলার সিদ্ধান্ত নবীগঞ্জ অগ্নিকান্ডে ২ ভিক্ষুকের ঘর পুড়ে ছাই প্রশাসনের তৎপরতায় জনশূণ্য নবীগঞ্জ ত্রাণ বিতরণ হলেও বিপাকে দিনমজুর খেটে খাওয়া শ্রমজীবি মানুষ মাধবপুরে স্কুল ছাত্রীর গোসলের দৃশ্য ধারনের প্রতিবাদ করায় বাড়ি ঘরে হামলা আহত ৮ মাধবপুরে বন্য শুয়োরের আক্রমনে আহত ১০
বানিয়াচংয়ে মিঠাপুরে রাস্তা নির্মাণের টাকা নিয়ে হরিলুট ফুঁসে উঠছে গ্রামবাসি

বানিয়াচংয়ে মিঠাপুরে রাস্তা নির্মাণের টাকা নিয়ে হরিলুট ফুঁসে উঠছে গ্রামবাসি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বানিয়াচং উপজেলার পুকড়া ইউনিয়নের চাউন্দাকান্দি থেকে মিঠাপুর গ্রাম পর্যন্ত রাস্তার মাটি ভরাট কাজ নিয়ে ব্যাপক দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে ওই গ্রামের শত শত জনগন ফুসেঁ উঠে আত্মসাতকারীদের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে জানা যায়, ওই রাস্তার মাটি ভরাট কাজের জন্য কাবিখা প্রকল্পের ৮ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। কিন্তু ওই প্রকল্পের সভাপতি জগতবিন্দু দাশ ও সেক্রেটারী প্রবীন্দ্র চন্দ্র দাশ ৬ মেট্টিক টন টাউল উত্তোলন করে নামে মাত্র ৩৫ হাজার টাকার কাজ করে বাকী টাকা আত্মসাত করেন। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় ওই গ্রামের শত শত জনগন ও শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নি¤œমানের কাজ হওয়ায় অতিকষ্টে পায়ে হেটে হবিগঞ্জ বানিয়াচংয়ে স্কুল-কলেজসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাজে যেতে হচ্ছে। এছাড়া যেটুকু রাস্তা হয়েছে তাও আবার ১২ ফুট প্রস্থ এর স্থলে ৮ ফুট, আড়াই ফুট উচ্চতার স্থলে ১ ফুট করে নির্মাণ করা হয়েছে। ফলে সামান্য বৃষ্টিতেই কাদাঁ ও পানিতে তলিয়ে যায়। ওই রাস্তার মধ্যে সাকু না দেয়ার কথা থাকলেও অতিরিক্ত বিল উত্তোলন করতে তাদের মনগড়া মতে একটি সাকো তৈরি করা হয়েছে। গ্রামবাসি ওই সাকো দিয়ে চলাচল করতে অনেকেই পড়ে আহত হয়। গ্রামবাসি জানান, বানিয়াচং উপজেলার পিআইও কর্মকর্তা সরজমিনে গিয়ে দুর্নীতির সত্যতা পেয়ে তাদেরকে ১ সপ্তাহের মধ্যে সম্পূর্ণ কাজ শেষ করার নির্দেশ দেন। কিন্তু প্রায় মাস খানেক অতিবাহিত হলেও প্রতারকরা এর কোন সমাধান করেনি। পিআইও কর্মকর্তা রহস্যজনক কারণে নিরব হয়েছেন। তাকে বারবার বলার পরও কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেন না। গ্রামবাসি যে কোন সময় এ ব্যাপারে ফুঁসে উঠে কঠিন কর্মসূচি দিতে পারে। কোন ধরণের অনাকাঙ্গিত ঘটনা ঘটলে এর দায়ভার কর্তৃপক্ষকেই নিতে হবে বলে হুশিয়ারী দেন এলাকাবাসী। এ ব্যাপারে পিআইও কর্মকর্তার সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com