শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:৩৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
বানিয়াচং-হবিগঞ্জ সড়কে সিএনজি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে শিশুর মৃত্যু ॥ আহত ৩ গণভবনে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা জানালেন জেলা আওয়ামীলীগের নতুন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নবীগঞ্জে কম দামে পেঁয়াজ ক্রয় করতে থানার সামনে ভীড় হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে অ্যাডভোকেট আলমগীর চৌধুরীর চমক মাথায় কাপনের কাপড় ও হাতে লাঠি নিয়ে জেলা ছাত্রদলের বিক্ষোভ হবিগঞ্জ লায়ন্স ক্লাবের নেতৃবৃন্দ ভারতের চেন্নাইয়ে মিনি ইন্টারন্যাশনাল লায়ন্স কনভেনশনে যোগদান করবেন হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের নয়া সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলমগীর চৌধুরীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ সাংবাদিক ইমদাদকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে বানিয়াচংয়ে মানববন্ধন মাধবপুর পৌরসভা ও চৌমুহনী ইউনিয়নে তরুণ শিল্পপতি সৈয়দ সাজ্জাদ আহমেদের দরিদ্রদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ নবীগঞ্জ পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড বিএনপির নির্বাচন কমিশন গঠন
মাধবপুরের বেজুরা গ্রাম পুরুষশূূন্য

মাধবপুরের বেজুরা গ্রাম পুরুষশূূন্য

মাধবপুর প্রতিনিধি ॥ মাধবপুরের বেজুড়া গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্র“পে দুই দিন ব্যাপী সংঘর্ষে মহিলা সহ দুই পক্ষের ২ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় বেজুরা গ্রাম এখন পুরুষশুন্য। শুক্রবার সকালে সরজমিনে বেজুরা উত্তর গ্রামে কোনো পুরুষ লোকের দেখা পাওয়া যায়নি। তারা গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র পালিয়েছে। অপরাধী গ্রেফতার সহ শান্তি বজায় রাখতে গ্রামে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। ২খুনের ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকেলে পুলিশ দু-পক্ষের শির্ষ নেতা সহ ৭জনকে গ্রেফতার করে শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাটিয়েছে।
জানা যায়, উপজেলার বেজুড়া গ্রামের উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মোঃ আরজু মেম্বারের ভাতিজা তাজু মিয়া ও মহিবুল্লাহর ভাতিজা মইনুল মিয়ার মধ্যে গত বুধবার বিকেলে গ্রামে ক্রিকেট খেলার সময় তর্কবিতর্কের জের ধরে দু’পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এর জের ধরে গত বৃহষ্পতিবার সকালের দিকে উভয় পক্ষের কয়েকশত লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বেজুড়া গ্রামে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে মহিবুল্লাহর পক্ষের খুর্শেদ আলীর মেয়ে রিনা বেগম (১৫) ও আরজু মেম্বারের পক্ষের ইউনুস মিয়ার ছেলে জালাল মিয়া (৫০) ঘটনাস্থলে নিহত হয়।
স্থানীয় লোকজন জানায়, আহতদের মধ্যে ফুল মিয়া, আলী আকবর সহ কয়েকজনের অবস্থা আশংকা জনক। সংঘর্ষের সময় রেন ুমিয়ার ২টি, জমসিদ মিয়ার ৪টি, মামুন মিয়ার ২টি, সাহজাহান মিয়ার ২টি, কবির মিয়ার ২টি ও মনু মিয়ার ১টি ঘর সহ কয়েকটি ঘর ভাংচুর হয়েছে বলে জানা যায়। এ ব্যাপারে থানায় পৃথক দু’টি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।
ঘটনার পর পুলিশ আরজু মিয়া মেম্বার (৬০), হাজি মহিবুল্লাহ (৫৫), সায়েদ আলী (৫৫), মাসুদ খান (৩২), হাজী বাদশা মিয়া (৭০), আলফু মিয়া (৮০) ও আব্দুল কাদির (৩৫) কে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। এদিকে সিলেটের ডিআইজি মিজনুর রহমান, হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক জয়নাল আবেদীন, পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র সহ অন্যান্য কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পরিদর্শন কালে ডিআইজি মিজানুর রহমান খুনিদের গ্রেফতার করে আইনের হাতে সোপর্দ করতে পুলিশকে নির্দেশ দেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com