সোমবার, ০১ Jun ২০২০, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
এমপি আবু জাহির এর প্রচেষ্টায় হবিগঞ্জে হতে যাচ্ছে করোনা পরীক্ষার ল্যাব জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক নবীগঞ্জে মাসিক আইনশৃংঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত লাখাইয়ে পরীক্ষায় ফেল করায় কিশোরী আত্মহত্যা করোনায় চুনারুঘাটে সেলুন ব্যবসায়ীরা দিশেহারা নবীগঞ্জে এসএসসি পরীক্ষায় পাশের হার ৭৯.৩১% জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭৬ জন ভারতীয় নাগরিকদের হাতে নিহত বাংলাদেশীর লাশ ৬ দিন পর বিজিবির কাছে হস্তান্তর হবিগঞ্জে দুই গ্রামবাসির সংঘর্ষে আহত ৫০ নবীগঞ্জে পুলিশের হস্তক্ষেপে সংঘাত থেকে রক্ষা পেল গ্রামবাসী বানিয়াচঙ্গে কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টা ॥ লম্পট গ্রেফতার
বাহুবলে সংঘর্ষের ঘটনায় লিডারসহ উভপক্ষের ৩’শ জনের বিরুদ্ধে মামলা গ্রেফতার ১০ ॥ পুরুষ শূন্য ৫ টি গ্রাম

বাহুবলে সংঘর্ষের ঘটনায় লিডারসহ উভপক্ষের ৩’শ জনের বিরুদ্ধে মামলা গ্রেফতার ১০ ॥ পুরুষ শূন্য ৫ টি গ্রাম

বাহুবল প্রতিনিধি ॥ শুক্রবার বাহুবলে ঢাকা-সিলেট মহা-সড়ক বন্ধ করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে শতাধিক লোক আহত হওয়ার ঘটনায় গতকাল ৩০০ জনের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। গতকাল বিকাল সাড়ে ৪টা এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে। অন্যান্য আসামী গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত আছে। গ্রেফতার এড়াতে গা ঢাকা দেয়ায় ৫টি গ্রাম পুরুষ শূন্য হয়ে পড়েছে। থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে গ্রামগুলোতে।
পুলিশ সূত্র জানায়, বাহুবল উপজেলার চারগাঁও প্রকাশিত ভৈরবীকোণা গ্রামের তাজুল ইসলাম চৌধুরী ও ইউপি মেম্বার আব্দুর রহিম ওরপে ময়না মিয়ার নেতৃত্বাধিন রুপের মাঝে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে ইতোপূর্বে মামলা-হামলার ঘটনাও ঘটেছে। উক্ত বিরোধের জের ধরে গত শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার চারগাঁও প্রকাশিত ভৈরবীকোণা গ্রামের পাশে ঢাকা-সিলেট মহা-সড়কের উপর উভয় পরে ৩০০/৩৫০ লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করলে সংঘর্ষকারীরা পুলিশের উপর ছড়াও হয়। এ সময় সরকারি পিকঅ্যাপ (নং- হবিগঞ্জ ঠ-১১-০০০৪) ভাংচুর হয়। আহত হয় ৫ পুলিশসহ উভয় পরে শতাধিক লোক। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে পুলিশ অর্ধশতাধিক টিয়ার সেল ও সর্টগানের গুলি ছুড়ে। শুক্রবার ভোর রাতে পুলিশের এসআই মজিবুর রহমান বাদী হয়ে তাজুল ইসলাম চৌধুরী ও আব্দুর রহিম ওরপে ময়না মিয়াসহ ৩০০ লোকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।
এ মামলায় পুলিশ যশপাল গ্রামের মৃত ফিরোজ উল্লার পুত্র আরজু মিয়া (৪৫), আকবর আলীর পুত্র সামছুল হক (৩০), সফর আলীর পুত্র শাহিন মিয়া (৩৫), আব্দাপটিয়া গ্রামের উলফত উল্লার পুত্র আব্দুল হাই (৩৫), আব্দুস ছালামের পুত্র নূরে আলম (২০), দৌলতপুর গ্রামের আজগর আলীর পুত্র রেনু মিয়া (২৭) ও কচুয়াদি গ্রামের মৃত মঈন উল্লার পুত্র আছকির (২৮) কে বাহুবল থানা পুলিশ এবং পশ্চিম শাহাপুর গামের মৃত আব্দুল গণির পুত্র রাজ্জাক মিয়া (৬৫), খুজারগাঁও গ্রামের আব্দুল ছত্তারের পুত্র আপ্তাব আলী (২৮) ও হরিপাশা গ্রামের দরছ আলীর পুত্র মহিদ মিয়া (২১)কে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতদের মাঝে প্রথম ৬ জনকে গতকাল শনিবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আছকির মিয়া আটক অবস্থায় বাহুবল হাসপাতালে চিকিৎসাধিন এবং অন্য ৩জন হবিগঞ্জ সদর থানার তত্ত্ববধানে আছে।
এদিকে মামলার অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত থাকায় গ্রেফতার এড়াতে চারগাঁও গ্রামভূক্ত ভৌরবীকোণা, হাবিজপুর, আব্দাপটিয়া, পশ্চিম শাহাপুর ও যশপাল গ্রামের অধিকাংশ পুরুষ আত্মগোপন করেছেন। এতে গ্রামগুলো কার্যতঃ পুরুষ শূন্য হয়ে পড়েছে। সর্বত্র থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে, বাহুবল মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই খায়রুজ্জামান বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলার এজাহারভূক্ত ১০জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com