বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০৪:২০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
২০ হাজার মানুষের গ্রামে একটি রাস্তাও পাকা নেই ॥ চরম দুর্ভোগ সাবেক মেয়র জিকে গউছের নামে ভূয়া ইউটিউব চ্যানেল ॥ থানায় জিডি নবীগঞ্জে সাংবাদিক আজাদের মায়ের ইন্তেকাল ॥ বিভিন্ন মহলের শোক নবীগঞ্জে বিদ্যুতপৃষ্টে বৃদ্ধের করুন মৃত্যু ইদুর নিধন অভিযান উপলক্ষে নবীগঞ্জে আলোচনা সভা বানিয়াচঙ্গে সাংবাদিকদের সাথে নবাগত ওসি’র মতবিনিময় কারিতাস সিলেট অঞ্চলের উদ্যোগে বিশ্ব সাদাছড়ি নিরাপত্তা দিবস পালন শায়েস্তাগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত কুদরত নিহত ॥ ৬ পুলিশ আহত বাহুবলের সাবেক চেয়ারম্যান মুদ্দত আলীর বিরুদ্ধে মেয়াদোত্তীর্ণ কাগজ দিয়ে মাটি, বালু উত্তোলনের অভিযোগ আজমিরীগঞ্জে ইমামের পিছনে বসা নিয়ে সংঘর্ষ ॥ মহিলাসহ আহত ১০
চুনারুঘাটে কিশোরীকে হত্যা ॥ চাচাতো ভাইকে আসামী করে মামলা দায়ের

চুনারুঘাটে কিশোরীকে হত্যা ॥ চাচাতো ভাইকে আসামী করে মামলা দায়ের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ চুনারুঘাট সীমান্তের দুধপাতিল গ্রামের কিশোরী তামান্নাকে হত্যার আগে ধর্ষন করা হয়েছে। তারপর তার শরীর থেকে খুলে নেয়া হয়েছে স্বর্নের কিছু গহনা কিন্তু হাতের ঘড়ি হাতেই ছিলো। বোরখাসহ বিভিন্ন ধরনের কাপড় মরদেহের পাশেই পড়েছিলো। বাম গাল ও চিবুকে কামড়ের দাগ রয়েছে। তবে পুলিশ এখনো নিশ্চিত নয়, কে বা কারা, কি কারনে হত্যা করেছে কিশোরী তামান্নাকে।
এ ব্যাপারে কিশোরীর বাবা আব্দুল হান্নান তামান্নার চাচাতো ভাই আলমগীরকে আসামী করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। রাতে নিহত তামান্নার চাচা আব্দুল হাসিমসহ তার ৩ ছেলেক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। তাদেরকে পরে ছেড়ে দেয়া হয়। আর সন্দেহভাজন আসামী আলমগীরকে মঙ্গলবার রাতে তার শ্বশুরবাড়ি মীরপুর থেকে আটক করেছে বলে তার আত্মীয়রা জানিয়েন। তবে পুলিশ এ বিষয়ে এখনই কোন কথা বলতে চাইছে না।
এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, সীমান্তের গাজীপুর ইউনিয়নের দুধপাতিল গ্রামের আঃ হান্নানের কিশোরী কন্যা তামান্না আক্তার প্রিয়া (১৫) প্রতিদিনের মতো সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার সময় বাড়িতেই ছিলো। তামান্নার ছোট ভাই টুটুল চাচা আব্দুল হাসিমের ঘরে পড়তে যায়। তামান্না ছোট ভাইকে রাত ৯টা পর্যন্ত পড়ার টেবিলে বসা থাকার তাগাদাও দিয়ে আসে। রাত ৯টার পর থেকে তামান্না নিখোঁজ থাকে। এ সময় তার বাবা হান্নান বাড়িতে ছিলেন না। পরের দিন মঙ্গলবার সকাল প্রায় ১০টার দিকে বাড়ি থেকে দেড় কিলোমিটার দুর একটি বৃক্ষ বাগানে তামান্নার লাশ পড়ে থাকতে দেখে প্রথমে আমিনা নামের এক মহিলা বিষটি স্থানীয় লোকজনকে জানায়। খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকালে পুলিশ তামান্নার মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরন করে।
এলাকাবাসিরা জানান, তামান্নার মা সেলিনা খাতুন দেড় বছর যাবৎ বিদেশে রয়েছেন। বাড়িতে ভাই টুটুল (৮) এবং বাবা আঃ হান্নান (৩৫) কে নিয়ে তামান্না ছোট একটি ঘরে বসবাস করতো। তামান্নার বাবা হান্নান মদে আসক্ত। জোয়াও খেলেন বলে জানান এলাকার লোকজন। এদিকে তামান্নার চাচাতো ভাই, আলমগীরকে নিয়ে এলাকায় রয়েছে নানান ধরনে আলোচনা।
এলাকাবাসিরা জানান, আলমগীর তার বউ-বাচ্চা নিয়ে সপ্তাহ খানেক আগে বাড়িতে আসেন। তিনি ঢাকায় একটি পোষাক কারখানায় কাজ করেন। ঘটনার দিন আলমগীর বউকে শ্বশুর বাড়ি পাঠিয়ে দিয়ে তিনি এলাকায় থেকে যান। আলমগীর এর আগে আরো ২টি বিয়ে করেছেন। নারীর প্রতি তার দুর্বলতা রয়েছে বলে জনশ্র“তি রয়েছে। পুলিশ সেই আলমগীরকে মীরপুরস্থ তার শ্বশুর বাড়িতে হানা দিয়েছে। তবে আলমগীরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কি না তা এখনো স্পষ্ট নয়। তবে আলমগীরের মা বলেছেন, তার ছেলেকে আটক করা হয়েছে। এদিকে পুলিশ বলছে, তামান্নাকে হত্যার আগে ধর্ষন করা হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।
পুলিশ সুত্র জানান, ময়না তদন্তে তামান্নাকে গন ধর্ষন করা হয়েছে কিনা, তামান্না গর্ববতী ছিলো কিনা এবং তামান্নাকে কিভাবে হত্যা করা হয়েছে সে বিষয়ে রিপোর্ট চাওয়া হয়েছে। এ ছাড়া পুলিশ তামান্নার বাবাকেও সন্দেহের তালিকায় রেখে তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে। পাড়া প্রতিবেশীরা জানান, তামান্না শান্ত স্বভাবের ছিলো। সে পাড়ার কারো সাথে তেমন চলা ফেরা করতো না। সে কখনো মোবাইল ফোন ব্যবহার করেছে বলে কেউ দেখেন নি। কিশোরী তামান্না খুনের ঘটনায় এলাকার লোকজন নিরব ভুমিকা পালন করছেন। তামান্নার চাচা চাচীদের কাছ থেকে কোন তথ্যই বের করা যাচ্ছেনা। সবার মুখে তালা। এদিকে কিশোরী তামান্না হত্যার রহস্য উদঘাটনে র‌্যাবসহ নানা বাহিনী মাঠে কাজ করছে।
পুলিশ সুত্র জানান, তামান্না হত্যার রহস্য উদঘাটনে তারা তৎপর এবং তারা রহস্য উদঘাটনের অনেকটা এগিয়েছেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com