শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০৮:০১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
চেয়ারম্যান পদে দোয়া ও সমর্থন প্রত্যাশী নবীগঞ্জ শহরে ভয়াবহ সংঘর্ষের ঘটনায় ৩০০ জনের বিরুদ্ধে পুলিশ এসল্ট মামলা পৃথক সভায় এমপি আবু জাহির পবিত্র রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের নির্দেশনা নবীগঞ্জে খেলতে গিয়ে আগুনে দ্বগ্ধ ৭ শিশু ॥ সিলেট প্রেরণ নবীগঞ্জ পৌরসভার আয়োজিত অমর একুশে বইমেলা সমাপ্ত নবীগঞ্জে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে মসজিদের নামে ভূমি দখলের চেষ্টা ॥ সংঘর্ষের আশঙ্কা রমজানে শহরের পানি সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে পৌর পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ১টি গাছ থেকে খেজুরে রস সংগ্রহ গোপলার বাজার ব্যবসায়ী কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত আলী আকবর সভাপতি নুরুল আমিন সম্পাদক চুনারুঘাট পৌর ছাত্রদলের সদস্য সচিব গ্রেফতার

হবিগঞ্জ পৌর মহাশ্মশান ঘাটের সামনে মার্কেট নির্মাণ নিয়ে সৃষ্ট ভুল বোঝাবুঝির অবসান করলেন এমপি আবু জাহির

  • আপডেট টাইম রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
  • ৮৬ বা পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ পৌর মহাশ্মশান ঘাটের সামনে পৌরসভার মার্কেট নির্মাণ নিয়ে সৃষ্ট ভুল বোঝাবুঝির অবসান করেছেন সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির। এখন থেকে মহাশ্মশান ঘাটের প্রবেশমুখে নবনির্মিত মার্কেটের ১২টি দোকানের মাসিক ভাড়া পাবে মহাশ্মশান কমিটি। এই টাকা শ্মশানের উন্নয়নে ব্যয় করা হবে। শুক্রবার সন্ধ্যায় স্থানীয় কালীবাড়িতে পৌর মহাশ্মশান ঘাট ও শ্রীশ্রী শ্মশান কালী মন্দির পরিচালনা কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত বিশেষ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ ঘোষণা দেন। সেই সাথে ভবিষ্যতে এই জায়গাটি মহাশ্মশানের নামে স্থায়ী বন্দোবস্ত আনার ক্ষেত্রে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি। তিনি আরও বলেন, হবিগঞ্জ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির শহর। এই সম্প্রীতি রক্ষায় আমরা সকলেই আন্তরিক। বর্তমান সরকারের আমলে আমরা হবিগঞ্জ পৌর মহাশ্মশান ঘাটের উন্নয়নে ব্যাপক কাজ করেছি। আপনাদের দাবির প্রেক্ষিতে আমরা পৌরসভার যে জায়গাটি মহাশ্মশানের ব্যবহারের জন্য দিয়েছিলাম, সেটি কমিটি দীর্ঘদিনেও উদ্ধার করতে পারেনি। বর্তমান পৌর মেয়র আতাউর রহমান সেলিম বেদখল সেই জায়গাটি উদ্ধার করে কমিটির সাথে আলোচনা করেই মার্কেট নির্মাণ করেছে। এখানে হকারদের পুনর্বাসন হওয়ায় শহরের একটি মূল্যবান জায়গা উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। আমি নিশ্চয়তা দিয়ে বলতে চাই, আমি থাকা অবস্থায় হবিগঞ্জে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের স্বার্থ কোন ভাবেই ক্ষুন্ন হতে দেবো না। সভায় বর্তমান বৈশ্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় সবাইকে সাশ্রয়ী হওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। সভায় পৌর মেয়র আতাউর রহমান সেলিম বলেন, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর কারো অনুরোধ ছাড়াই নিজ উদ্যোগে পৌর মহাশ্মশান ঘাটে সাড়ে ৮ লাখ টাকার উন্নয়ন কাজ করেছি। মহাশ্মশান ঘাটের সেবকের মাসিক বেতনের ব্যবস্থা করেছি। মহাশ্মশান কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করেই বেদখল ভূমি উদ্ধার করে মার্কেট নির্মাণ করা হয়েছে। সঠিক তথ্য সবার জানা না থাকার কারণেই ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছিল। এই মার্কেট কারো ব্যক্তিগত লাভের জন্য নয়, পৌরসভার বৃহৎ স্বার্থ রক্ষায় নির্মাণ করা হয়েছে। আমরা ঐক্যবদ্ধ ছিলাম, আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো। মহাশ্মশান ঘাট পরিচালনা কমিটির সভাপতি সুখলাল সূত্রধরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আতাউর রহমান সেলিম। সাধারণ সম্পাদক নবকুমার চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অ্যাডভোকেট পূণ্যব্রত চৌধুরী বিভু, অ্যাডভোকেট অহীন্দ্র কুমার দত্ত চৌধুরী, জগদীশ চন্দ্র মোদক, ডাঃ দেবপদ রায়, শংকর পাল, ডাঃ অসিত কুমার দাশ, অ্যাডভোকেট সুধাংশু সূত্রধর, শঙ্খ শুভ্র রায়, অধ্যক্ষ পার্থ প্রতিম দাশ, কাউন্সিলর গৌতম কুমার রায় প্রমুখ। হবিগঞ্জ পৌর মহাশ্মশান ঘাটের সামনে পৌরসভার মার্কেট নির্মাণ নিয়ে সৃষ্ট ভুল বোঝাবুঝির অবসান করায় এমপি অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহিরকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান সনাতন ধর্মাবলম্বী নেতৃবৃন্দ।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com