বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়ার হত্যাকান্ড ॥ ১৭ বছরেও সম্পন্ন হয়নি বিচার কার্যক্রম ৬ বছরে স্বাক্ষ্য হয়েছে ৪৪ জনের বানিয়াচংয়ে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও সদস্যদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবিগঞ্জে নতুন করে আরো ৭১ জন করোনায় আক্রান্ত ৫ পলাতক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ সদর হাসপাতালে নবজাতক চুরির ঘটনায় এক পিতার মামলায় অপর পিতা কারাগারে হবিগঞ্জে হঠাৎ বৃষ্টিতে শীতের তীব্রতা বেড়েছে পাইকপাড়ায় মর্ডান বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ ॥ আহত ১০ চুনারুঘাটে গাঁজাসহ চোরাকারবারি ছাত্তার আটক ॥ ৯টি গরু উদ্ধার মক্রমপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন ॥ কাজী বাশার সভাপতি, শেখ আরিফ সাধারণ সম্পাদক মনোনীত বানিয়াচংয়ে মাস্ক পরিধানে প্রশাসনের পক্ষে সচেতনতামূলক অভিযান

মক্রমপুরে ১৪৪ ধারা অপেক্ষা করে জোরপূর্বক প্রবাসীর জায়গা দখল করে স্থাপনা নির্মাণ

  • আপডেট টাইম বুধবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৫১ বা পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বানিয়াচং উপজেলার মক্রমপুরে ১৪৪ ধারার নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে এক প্রবাসীর জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণ করছেন কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি। ওই জায়গার মালিক দেশে অবস্থান না করায় সুযোগ নিচ্ছেন প্রভাবশালীরা। সূত্রে জানা যায়, ওই গ্রামের মৃত জাহির উদ্দিনের পুত্র জানে আলম নিঃসন্তান অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। জীবনদশায় তিনি স্ত্রী, ২ ভাই ও ১ বোন রেখে যান। মৃত জানে আলম এর জায়গার উপর কু-নজর পড়ে প্রতিবেশী খাইরুল মিয়া গংদের। মৃত জানে আলমের ২ ভাই বিদেশ থাকার সুবাধে ওই জায়গাটি দখলে তিনি খাইরুল মিয়া গংরা বিভিন্ন ফন্দি পায়তারা করে। সেখানে একটি ঘর নির্মানেরও উদ্যোগে নেয় তারা। এক পর্যায়ে মৃত জানে আলমের বোন তাদের জায়গা অবৈধভাবে দখলের চেষ্টার অভিযোগ এনে একই গ্রামের খুশেদ মিয়ার পুত্র খায়রুল মিয়া (২৭) ও জহুর আলী (৩৮) এর বিরুদ্ধে একটি মোকদ্দমা দায়ের করে। মামলা নং- (বানি-৭২৭/২০২১)। ওই মামলার প্রেক্ষিতে উপরোক্ত জায়গায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। কিন্তু আদালতের রায় অমান্য করে গত সোমবার (৬ ডিসেম্বর) বিকালে খাইরুল মিয়া গংরা মৃত জানে আলমের জায়গায় জোরপূর্বক দখল করে ঘর নির্মাণ করে। প্রত্যক্ষদর্শী রহিম মিয়া বলেন, এই জায়গার প্রকৃত মালিক জানে আলম এবং তার ভাইরা। জানে আলম এর ২ ভাই আবুল কাশেম ও আনোয়ার আলম বিদেশ থাকায় তাদের এই জায়গাটি বেদখল হয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, এ বিষয়ের গ্রামে মুরুব্বিয়ানরা সালিশ বৈঠক করলেও খায়রুল মিয়া ও আলী আব্দুল আলীরা মুুরুব্বীয়ানের কথা না শুনে জোরপূর্বক দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করেছে। অভিযুক্ত খাইরুল মিয়ার ভাই আব্দুল আলী বলেন, এই জায়গার মালিক আমরা। আমাদের নিকট কাগজপত্র রয়েছে। ১৪৪ ধারা জারি থাকা অবস্থায় কি করে তারা ঘর নির্মাণ করছেন এমন প্রশ্ন করলে তিনি এড়িয়ে যান। এ বিষয়ে সুজাতপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই গোলাম কিবরিয়ার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, কেউ যদি আইন ভঙ্গ করে নিশ্চয়ই তার শাস্তি হবে। আমি ছুটিতে আছি, ফিরে এসে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com