রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৩০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
সাতছড়ি উদ্যান পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব লাখাই উপজেলার কৃষ্ণপুর গণহত্যা দিবস পালিত শিবপাশা নবদম্পতির আত্মহত্যার চেষ্টা আজমিরীগঞ্জের কাকাইলছেও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের নার্স ও সহকারীর বিরুদ্ধে এন্তার অভিযোগ দূর্গাপূজা উপলক্ষ্যে নতুন শাড়ি ও মাস্ক বিতরণ করেছেন গিরেন্দ্র চন্দ্র রায় চুনারুঘাট উপজেলা যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত নবীগঞ্জে সিএনজি চোর চক্রের সদস্য গ্রেফতার ॥ সিএনজি ফিরিয়ে দেয়ার নামে ১ লাখ টাকাও হাতিয়ে নেয় নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সাংবাদিক সরওয়ার ও মুজিবের উপর মিথ্যা মামলা দায়েরে নিন্দা হবিগঞ্জে ৯/১১ ব্যাচের বন্ধুদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে মিলন মেলা বিএনপির মতবিনিময় সভায় জিকে গউছ ॥ মানুষের ভোটাধিকার ছিনতাই করে আ.লীগ গণতন্ত্র ধ্বংস করেছে

কনে জানেনা বিয়ের খবর ভাগনীকে বউ সাজিয়ে বিয়ে ॥ প্রতিকার চেয়ে ইউএনও বরাবর অভিযোগ

  • আপডেট টাইম মঙ্গলবার, ৩ আগস্ট, ২০২১
  • ২৬ বা পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কনে জানেনা বিয়ের খবর। ভাগনীকে বউ সাজিয়ে বিয়ে করেছে এক প্রতারক। ঘটনাটি ঘটেছে বানিয়াচং উপজেলার তকবাজ খানী গ্রামে। এ ঘটনায় বানিয়াচংয়ের সর্বত্র রসালো আলোচনা হচ্ছে। অনেকে এ ঘটনাটি শুনার পর বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। প্রতিকার চেয়ে ভূক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ভূক্তভোগী মেয়েটির বিয়ে ভেঙ্গে দেওয়া। মেয়েটি ও তার পরিবারকে সামাজিকভাবে হেয় করতে এরকমই এক অভিনব প্রতারনামূলক ভূয়া বিয়ের কাবিননামা তৈরি করা হয়েছে। বিয়ের নিবন্ধন যিনি করেছেন সেই কাজীর সামনে বিয়ের কনে উপস্থিত না হওয়া স্বত্ত্বেও মিথ্যা স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য নিয়ে বিয়ে নিবন্ধন করেছেন কাজী। ভূয়া বিয়ের নিবন্ধক হবিগঞ্জ পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাজী মাওঃ নজমুল হোসেন। আর ভূয়া বিয়ের বর মোঃ আসাদ খান। বানিয়াচং উপজলার তকবাজখানী গ্রামের মৃত আব্দুস শহীদ খানের ছেলে। ভূক্তভোগী মেয়েটির পরিবার আগামী ৮ আগস্ট পারিবারিকভাবে বিয়ের দিন ধার্য্য করেছেন। পূর্ব থেকেই মেয়েটির সাথে বখাটেপনা ও উত্যক্ত করে আসছিলা অভিযুক্ত ছেলেটি। উত্যক্ত করার অভিযাগে ইতিমধ্যে বিচার-শালিসে ছেলেটিকে শাসিয়ে দেওয়া হয়। এর পূর্বে আরও একটি বিয়ে বাতিল হয়েছে ছেলেটির মিথ্যা অভিযাগে। কাজীর সহযোগিতায় অভিনব প্রতারনার মাধ্যম বিয়ের কাবিননামা তৈরি করায় ভূক্তভোগী মেয়ে ও তার পরিবার একেবারেই হতবাক হয়ে পড়েছেন। এ ব্যাপার ভূক্তভোগী ও তার পরিবার থেকে জালিয়াতির মাধ্যমে ভূয়া বিয়ে নিবন্ধন ও প্রতারনার দৃষ্টান্তমূলক বিচার চেয়েছেন।
এ ব্যাপার অভিযুক্ত আসাদ খানের মোবাইল ফোনে কল করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। এ ব্যাপারে এফিডভিটকারী এডভোকেট পবিত্র কুমার দাশ স্বীকার করেন তিনি যাবতীয় ডকুমেন্টস দেখেই স্বাক্ষর করেছেন। তিনি কনে মেয়েকে দেখেন নি। কাজী মাওলানা মোঃ নাজমুল হোসেন বিয়ে নিবন্ধনের কথা স্বীকার করে জানান, অবশ্যই মেয়েটি আমার অফিসে এসেছে। আমি ভূয়া বিয়ের নিবন্ধন করি নি।
এ বিষয়ে বানিয়াচং উপজলা নির্বাহী মাসুদ রানা’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ওই মেয়েটি একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। এ বিষয়ে তদন্ত চলমান। তিনি আরো বলেন, প্রাথমিকভাবে এ পর্যন্ত তথ্য উপাত্ত দেখে মনে হচ্ছে কাজী মেয়েকে ছাড়াই বিয়ের কাবিন নামার কাজটি সম্পন্ন করেছেন। ইতিমধ্যে যে ছেলে এ কাজটি করেছে সে লিখিতভাবে জানিয়েছে অন্য একটি মেয়ে সম্পর্কে তার ভাগনী হয় তাকে বউ সাজিয়ে কাজী অফিসে নিয়ে সে বিয়ের নিবন্ধনের কাজটি করিয়েছে। এ বিষয়ে অধিকতর তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত হয়ে কাজীসহ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Design and Development BY ThemesBazar.Com