সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১০:০৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
মাধবপুরে শিক্ষা কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান হোম কোয়ারেন্টাইন শেষ ॥ সুস্থ্য আউশকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন সিনিয়র শিক্ষক ফখরু মিয়া স্যার আর নেই নবীগঞ্জের শ্রীমতপুর গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাড়ীঘরে হামলা ও ভাংচুর ॥ ৩ মহিলা আহত করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে চুনারুঘাটে সেনাবাহিনীর প্রচারাভিযান বিশ্বাসের জায়গাটা ছোট হয়ে আসছে নবীগঞ্জে প্রস্তুতিকালে তিন ডাকাত আটক, অস্ত্র উদ্ধার খাবার পৌছে দিয়ে মানুষকে ঘরে থাকার আহবান জানাচ্ছেন এমপি আবু জাহির নবীগঞ্জে প্রবাসীদের কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতে কাজ করছে সেনাবাহিনী ও প্রশাসন মাধবপুরে চিনে ফেলায় টমটম চালককে খুন ॥ আদালতে ৩ কিশোর কিলারের স্বীকারোক্তি স্তব্ধ রাতে ত্রাণ নিয়ে অসহায় মানুষের বাড়ি বাড়ি চুনারুঘাটের ইউএনও
বিরোধী নেতা খালেদা জিয়ার ঘোষণা ২৯ ডিসেম্বর ঢাকা অভিমুখে অভিযাত্রা

বিরোধী নেতা খালেদা জিয়ার ঘোষণা ২৯ ডিসেম্বর ঢাকা অভিমুখে অভিযাত্রা

এক্সপ্রেস ডেস্ক ॥ আগামী ২৯শে ডিসেম্বর ঢাকা অভিমুখে অভিযাত্রার জন্যে বিরোধীদলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দেশবাসিকে আহবান জানিয়ে বলেছেন, এ অভিযাত্রা হবে নির্বাচনী প্রহসনকে ‘না’ বলতে ও গণতন্ত্রকে ‘হা’ বলতে। প্রহসনের নির্বাচন বন্ধ করে বিরোধীদলের সঙ্গে সরকারকে আলোচনায় বসার আহবান জানিয়ে বিরোধীদলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া বলেন, আমরা আলোচনায় বসতে রাজি। তা না হলে গণতন্ত্র ধংস হবে। এটা ইলেকশন নয়, সিলেকশন। জনগণের সঙ্গে এর কোনো সম্পৃক্ততা নেই। বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচন নয়, আসন ভাগাভাগির প্রহসন চেয়েছেন। আসন ভাগাভাগির আপনি (প্রধানমন্ত্রী) কেউ নন। এটা জনগণের অধিকার। সে অধিকার আপনি কেড়ে নিয়েছেন। আওয়ামী লীগের ‘অপশাসনে’ দেশে কান্নার রোল পড়লেও তারা ক্ষমতা ধরে রাখতে ‘নির্বিকার’। নির্বাচন স্থগিত করে নির্দলীয় সরকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে পঞ্চম দফা অবরোধের পর গতকাল মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে বেগম জিয়া এ কথা বলেন। খালেদা জিয়া বলেন, প্রতিদিন বিনাবিচারে নাগরিকদের প্রাণ কেড়ে নেয়া হচ্ছে। সারাদেশে কান্নার রোল, নির্বিকার শুধু সরকার। ৫ জানুয়ারির ‘একতরফা’ নির্বাচনের বিরোধিতাও করেন বিএনপি চেয়ারপারসন। তিনি বলেন, যে কোনো মূল্যে ক্ষমতা আঁকড়ে ধরে রাখতেই এটা করা হচ্ছে। বিরোধী দল সবরকমের সমঝোতার জন্যে চেষ্টা করেছে। রাষ্ট্রপতির কাছে গেলেও তিনি সমঝোতার কোনো উদ্যোগ নেননি। সরকার গঠনে জনগণের কোনো ভোটের প্রয়োজন হয়নি। এটা কোনো ইলেকশন নয়, নির্লজ্জ সিলেকশন। তিনি বলেন, জনগনের ভোট ছাড়া নির্বাচিত সরকার বৈধ হবে না। প্রসাশন এই সরকারের নির্দেশ মানতে বাধ্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া।  খালেদা জিয়া বলেন, তিনদফা আলোচনার  পরও সরকারের কঠোর মনোভাবের কারণে সমঝোতা সম্ভব হয়নি। তারা কেবল লোক দেখানোর জন্য আলোচনায় এসেছিলেন। এর মাধ্যমে তারা অসৎ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে এগিয়ে গেছে। তারা আলোচনার অঙ্গীকার করেও আলোচনা থেকে সরে এসেছে। প্রহসনের নির্বাচন করে সরকারের মেয়াদ বাড়ানোই এই সরকারের লক্ষ্য। তিনি বলেন, আমাদের জানানোও হয়নি। আমরা সংবাদ মাধ্যম থেকে জেনেছি যে, দশম সংসদ নির্বাচনে আর আলোচনার সুযোগ নেই। শুধু বিএনপি নয়, দেশের উল্লেখযোগ্য রাজনৈতিক দলগুলোই নির্বাচন বর্জন করেছে। বিভিন্ন জনমতে দেখা গিয়েছে, দেশের শতকরা ৮০ ভাগ মানুষ আমাদের দাবির সাথে একমত। গুলশানে খালেদা জিয়ার নিজ কার্যালয়ে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৫.৫৩টায় সংবাদ সম্মেলন  শুরু হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আর. এ. গণি, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, লে. জে (অব.) মাহবুবুর রহমান, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, বেগম সারোয়ারি রহমান, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান। ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী, উপদেষ্টা ড. ওসমান ফারুক, রিয়াজ রহমান, ফজলুর রহমান পটল, সাবিহউদ্দিন আহমেদ। ১৮ দলের মধ্যে এলডিপি সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ, বিজেপি চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, কল্যাণ পার্টির সভাপতি মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মো: ইব্রাহিম।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com