রবিবার, ০৫ এপ্রিল ২০২০, ১২:৫৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
কর্মহীনদের খাদ্য সহায়তা প্রদান ও করোনা সচেতনতায় সকাল-সন্ধ্যা ছুটছেন এমপি আবু জাহির হবিগঞ্জে প্রশাসন ও আইনশৃংখলা বাহিনীর তৎপরতা অব্যাহত হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের উদ্যোগে বানিয়াচঙ্গে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ ডাঃ মুশফিক হোসেন চৌধুরীর প্রচেষ্টায় ঢাকাস্থ জালালাবাদ এ্যাসোসিয়েশন এর উদ্যোগে চিকিৎসকদের মাঝে ১’শ পিপিই বিতরণ হবিগঞ্জ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান মোতাচ্ছিরুল ইসলামের পক্ষ থেকে বিভিন্ন এলাকায় খাদ্রসামগ্রী বিতরণ হবিগঞ্জের এসএসসি ৯৯ ব্যাচের বন্ধুদের উদ্যোগে শ্রমজীবী মানষের মাঝে ত্রান সামগ্রী বিতরণ ওএমএস কার্যক্রমের আওতায় শহরের ৫টি দোকানে ৫ এপ্রিল থেকে ১০ টাকা কেজি চাল বিক্রি শুরু প্রশাসনের তৎপরতায় জনশূণ্য নবীগঞ্জ ত্রাণ বিতরণ হলেও বিপাকে দিনমজুর খেটে খাওয়া শ্রমজীবি মানুষ নবীগঞ্জের পৌর এলাকায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ শ্রীমঙ্গলে এক কিশোরী করোনা আক্রান্ত সন্দেহে এলাকায় লাল ঝান্ডা, ১৩৪ ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টাইনে
করোনা ভাইরাস ॥ চীন ফেরত শিক্ষার্থী নিয়ে হবিগঞ্জে স্বাস্থ্য বিভাগের লুকোচুরি

করোনা ভাইরাস ॥ চীন ফেরত শিক্ষার্থী নিয়ে হবিগঞ্জে স্বাস্থ্য বিভাগের লুকোচুরি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মরণব্যাধি ‘করোনা ভাইরাস’ আক্রান্ত সন্দেহে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন চীন ফেরত মেডিকেল শিক্ষার্থী মো. রায়হান আহমেদের পরিক্ষা নিরিক্ষা শেষ হলেও রিপোর্ট নিয়ে লুকোচুরি করছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।
গতকাল সোমবার সকালে সিভিল সার্জন ডা. একেএম মোস্তাফিজুর রহমান জানিয়েছিলেন রাতে তার পরিক্ষা নিরিক্ষার ফলাফল পাওয়া যাবে। তখনই এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবেন। কিন্তু রাতে রিপোর্ট পাওয়ার কথা জানালেও কি পেয়েছেন তা তিনি জানাতে চাননি। এ নিয়ে সংবাদকর্মীসহ সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হচ্ছে। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, রায়হান আহমেদ হবিগঞ্জ শহরের শায়েস্তানগর এলাকার বাসিন্দা আব্দুন নূরের ছেলে। তিনি চীনের জিয়াংসু শহরে একটি মেডিকেল কলেজে পড়াশোনা করতেন। ৮ ফেব্রুয়ারী তিনি দেশে আসেন। ১৪ ফেব্রুয়ারী জ¦র, কাশি ও ঘাড় ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলেও দু’দফায় হাসপাতাল ছেড়ে পালিয়ে যান তিনি। কিন্তু পুলিশের মাধ্যমে খোঁজে এনে তাকে ১৬ ফেব্রুয়ারী সদর হাসপাতালের ৫ম তলায় আইসোলেশন ওয়ার্ডে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছে। নির্ধারিত চিকিৎসক-নার্স ব্যতিত অন্য কেউ রোগীর পাশে যাওয়ার বিষয়ে বিধিনিষেধ থাকলেও নিরাপত্তার অভাবে যেকেউ সেখানে যাতায়াত করতে পারছেন।
সিভিল সার্জন ডা. একেএম মোস্তাফিজুর রহমান জানান, তার পরিক্ষা নিরিক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। রিপোর্ট টেলিফোনে জানানো হয়েছে। আপাতত তার যে জ¦র তাতে মনে হচ্ছেনা করোনা ভাইরাস। তবুও তাকে তত্ত্বাবধানে রাখতে হবে। সে বাড়িতে থাকবে। তবে তার খাবার জিনিসপত্র, ঘুমানোর স্থান এবং টয়লেট সবকিছুই আলাদা করে রাখতে হবে। অন্তত তার অবজারভেশন পিরিয়ড পর্যন্ত তার সবকিছু আলাদা থাকবে। তবে পরিক্ষার ফলাফল সম্পর্কে তিনি কিছু বলতে রাজি হননি।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com