রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৫৯ অপরাহ্ন

নবীগঞ্জে পিতাকে পুকুরে ফেলে নির্মমভাবে হত্যা ॥ মেয়ে ও প্রতিবেশীসহ আটক-২

নবীগঞ্জে পিতাকে পুকুরে ফেলে নির্মমভাবে হত্যা ॥ মেয়ে ও প্রতিবেশীসহ আটক-২

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ নবীগঞ্জে বৃদ্ধ পিতাকে পুকুরে ফেলে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে পুত্র। সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে আউশকান্দি ইউনিয়নের সদরাবাদ গ্রামে হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে। নিহত বৃদ্ধ পিতার নাম মুক্তার উল্লা (৬৫)। ঘাতক পুত্রের নাম জীবন। সে শেরপুর মাইওয়ান ইলেক্ট্রনিক্স এর দোকানের কর্মচারী। বাড়ি বিক্রির ঘটনার জের ধরেই পিতাকে হত্যা করা হয় বলে নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। এ ঘটনায় নিহতের যুবতি কন্যা ডালিনা বেগম (২২) ও প্রতিবেশী রাফি আহমদ (৩০) নামের যুবককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আটক করেছে।
1(1)নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মুক্তার উল্লাহ প্রায় বছর খানেক পূর্বে দুবাই থেকে বাড়ি আসেন। তার ২ছেলে ও ৩ মেয়ে। বড় ছেলে সুমন সিলেট শহরে সিকিউরিটির কাজ করে। ঘাতক পুত্র জীবন শেরপুর মাইওয়ান ইলেক্ট্রনিক্স দোকানের শ্রমিকের কাজ করে। বর্তমানে কোন রকম চলছিল তাদের জীবন সংসার। সংসারের ভরণপোষন ও একটি মেয়ের বিবাহ দিতে গিয়ে বাড়ির কিছ জায়গা বিক্রয়ের সিদ্ধান্ত নেন মুক্তার উল্লাহ। এই জায়গা বিক্রি নিয়ে পিতা পুত্রের মধ্যে গত ২সপ্তাহ ধরে মনোমালিন্য চলে আসছিল। গত সোমবার রাতে প্রতিবেশী রাফি আহমদ এর বাড়িতে গিয়েছিলেন মুক্তার উল্লাহ। ওই সময়ে তারই জামাতা একই গ্রামের আজির উদ্দিন (৩৫) তার শ্বশুরকে বিষয়টি মিমাংশা করার কথা বলে বাড়িতে নিয়ে যান। পিতাকে দেখার সাথে সাথেই পুত্র জীবন ছুরা হাতে নিয়ে পিতাকে ধাওয়া করে। এক পর্যায়ে পিতা মুক্তার উল্লাহ বাড়ির পুকুরে পড়ে যান। এ সময় পুকুরে ফেলেই জীবন তার পিতাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে রক্তমাখা ছোরা হাতে নিয়ে বুক ফুলিয়ে বীর দর্পে পালিয়ে যায়। এ সময় বাড়ির লোকজনের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে পুকুরের পানি থেকে ডুবন্ত লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে।
নিহতের স্ত্রী নাজমা বেগম বলেন, আমার স্বামী বিদেশ থেকে আসার পর অনেক লক্ষ টাকা খুইছেন। অবশেষে তার এ জায়গা বিক্রিকে আমরা কেউ মেনে নিতে পারিনি। তবে, আমার কুলাঙ্গার পুত্র তার বাপকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। আমি মা হয়েও তার ফাঁসি চাই। Nabgionj
গ্রামের সাবেক মেম্বার মোঃ আলম মিয়া, একে ফজলু, কামরুল ইসলাম স্বপন, আমীর আলীসহ অনেকেই বলেন, এমন হত্যাকাণ্ডের সংবাদ পেয়ে আমরা গ্রামবাসী তাৎক্ষনিক ছুটে আসি। এই হৃদয়বিদারক হত্যাকাণ্ডে আমরা গ্রামবাসী গভীর শোকাহত ও মর্মাহত। আমরা গ্রামবাসী খুনি জীবনের ফাঁসি দাবী করছি।
আরেকটি সূত্র জানায়, পুলিশের হাতে আটক রাফি আহমদ মৌলভীবাজার পাঁতাকুড়ি অফসেট প্রেসের একজন কম্পিউটার অপারেটর। মুক্তার মিয়ার তার বাড়িতে বসেই কিছু জায়গা বিক্রির আলাপ আলোচনা করছিলেন। এ ছাড়াও গ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী কামরুল ইসলাম স্বপন ও আমির আলীসহ আরো কয়েক জনের নিকট তিনি বাড়ির ৭২শতক ভূমির মালিকার মধ্যে ২০শতক জায়গা বিক্রয়ের কথাবার্তা বলে আসছিলেন। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে তার পুত্র জীবন। আর এতে করেই পিতাকে সে হত্যা করে।
এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানা ওসি আব্দুল বাতেন খাঁন বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় থানায় এখনো কোন মামলা হয়নি, প্রস্তুতি চলছে। তবে জিজ্ঞাসাবারে জন্য ২জনকে আটক করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2021 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com