রবিবার, ১৬ Jun ২০১৯, ০৭:০৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শহরে লাইসেন্সবিহীন শতাধিক মোটরসাইকেল আটক বানিয়াচংয়ের বেতাকান্দিতে জলমহালে বিষ দিয়ে ৫ লাখ টাকার মাছ নিধন এমপি মিলাদ গাজীকে স্বাগত জানিয় নবীগঞ্জে মোটর সাইকেল শুভাযাত্রা মুক্তিযোদ্ধাদের আবাসন প্রকল্প রক্ষার্থে প্রধানমন্ত্রী দৃষ্টি আকর্ষণ মূলক সংবাদ সম্মেলন হবিগঞ্জে সাদ পন্থিদের ইজতেমা বন্ধ করায় আলেম-ওলামা ও প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা মাধবপুরে দাড়িয়ে থাকা ট্রাকে চলন্ত বাসের ধাক্কা ॥ হেলপার নিহত হবিগঞ্জ জেলা গণপূর্ত বিভাগের ঠিকাদার কল্যাণ সমিতির আহ্বায়ক কমিটি গঠন ॥ আব্দুর রহমান আহ্বায়ক শামীম সদস্য সচিব দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে টিটু’র গণসংযোগ অব্যাহত সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিতে পৌরবাসীর জন্য কাজ করব-মেয়র প্রার্থী মিজান গোপায়া ইউনিয়ন কৃষকলীগের কমিটি গঠন
স্ত্রীর মামলায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক স্বামী আটক

স্ত্রীর মামলায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক স্বামী আটক

আজিজুল ইসলাম সজীব ॥ হবিগঞ্জ সদর উপজেলায় স্ত্রীর দায়েরকৃত মামলায় সাজাপ্রাপ্ত ৬ বছরের পলাতক আসামী স্বামী নন্দ লাল (৩০) কে সদর থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে। সে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ৪নং পেলে ইউনিয়নের আউশপাড়া গ্রামের রামচরনের পুত্র।
সোমবার দিবাগত রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সদর থানার এএসআই বিল্লাল হোসেনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ নন্দ লালের নিজ বাড়ি থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে।
পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, নন্দ লাল গত ২০০৮ সালে বঙ্গ-শিবপাশা গ্রামের শৈলী লাল এর সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তার উপর শুরু হয় নির্যাতন বাবার কাছ থেকে টাকা এনে দেওয়ার জন্য। প্রথম দিকে শৈলী তার বাবার কাছ থেকে প্রায় ৮০ হাজার টাকা এনে দেয়। কিন্তু তার উপর কিছু দিন পর থেকেই আবারও টাকা এনে দিতে নির্যাতন করে নন্দ লাল। এনি কয়েকবার গ্রাম্য মোড়লদের নিয়ে বিচার নালিশ হয়। কিন্তু এতে নির্যাতনের পরিমাণ আরো বেলে যায়। পরে সে আবার অন্য এক মেয়ে প্রাণ কোম্পানীর মহিলা শ্রমিকের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে।
এ খবর পেয়ে শৈলী তার পিত্রালয়ে চলে যায়। পরে নারী-শিশু নির্যাতন দমন আইনে তার স্বামী নন্দ লাল এর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।
উক্ত মামলায় সে পলাতক ছিল। বিয়ের ২ বছরের মাথায় ২০১০ সালে শৈলী লাল আর সহ্য করতে না পেরে বাবার বাড়ি চলে যায় এবং স্বামীর উপর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করে। পরে মামলার ধারাবাহিকভাবে চলতে থাকে কিন্তু নন্দ লাল মামলার আসামি হলেও তার মনে মামলা দায়ের করলেও কোন সময় শেষ করার আগ্রহ প্রকাশ করে নি। এদিকে উক্ত মামলায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিজ্ঞ আদালতের নন্দ লাল সাক্ষ্য প্রমাণে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় আদালত নন্দ লালকে ১ বছর ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com