মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৬:২৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
ফেইসবুকে সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারণা ॥ লাখাইর সাবেক কৃষি কর্মকর্তা আহসান হাবিবের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন নবীগঞ্জের চেয়ারম্যান মুকুলের বরখাস্তের আদেশ বহাল সমৃদ্ধ দেশ গড়তে যুব সমাজকে কাজে লাগাতে হবে-এমপি আবু জাহির চাঁদাবাজির মামলায় স্বাক্ষী হওয়ায় বাস শ্রমিককে হুমকির অভিযোগ দুই লন্ডনীর বিরুদ্ধে মামলা বিএনপি নেতা নাজমুল হুদা এখন স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা পইলে সৈয়দ আহমদুল হক ফুটবল টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনাল শুরু পাঁচপাড়িয়া গ্রামে মরহুম আরফান আলী ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্ট ও আলোচনা সভা বানিয়াচঙ্গের হিয়ালায় জুয়া খেলার অপরাধে ৪ জনের প্রত্যেককে ১৫ দিন করে বিনাশ্রম কারাদ- প্রদান নবীগঞ্জের বাউসি গ্রামে দুর্বৃত্তের হামলায় রবি পরিবার গৃহহারা হবিগঞ্জ জেলা ট্রাক ও ট্যাংকলড়ী শ্রমিক ইউনিয়ন নির্বাচনে মনোনয়ন ফরম বিতরণ
পঞ্চায়েতের রায়ে সাবিনার ইজ্জতের মূল্য ধার্য্য হয়েছিল ৬০ হাজার টাকা ॥ বানিয়াচঙ্গে সম্ভ্রমহারা তরুণীর মৃত্যু ॥ হত্যা না আত্মহত্যা

পঞ্চায়েতের রায়ে সাবিনার ইজ্জতের মূল্য ধার্য্য হয়েছিল ৬০ হাজার টাকা ॥ বানিয়াচঙ্গে সম্ভ্রমহারা তরুণীর মৃত্যু ॥ হত্যা না আত্মহত্যা

মখলিছ মিয়া, বানিয়াচং থেকে ॥ বানিয়াচংয়ের পল্লীতে গ্রাম্য পঞ্চায়েতে ইজ্জতের মূল্য ৬০ হাজার টাকা নির্ধারণের ৩দিনের মাথায় তরুনীর মৃত্যু। তাকে হত্যা করা হয়েছে, নাকি আত্মহত্যা করেছে এ নিয়ে চলছে এলাকায় নানা গুঞ্জন। ঘটনাটি ঘটেছে বানিয়াচং উপজেলার ৬নং কাগাপাশা ইউনিয়নের লোহাজুড়ী গ্রামে। এলাকাবাসী, পুলিশ, জনপ্রতিনিধি সূত্রে জানা যায়, লোহাজুড়ী গ্রামের দিনমজুর চান মিয়া ওরফে নিরবরসার কন্যা সাবিনা (২০) এর সাথে একই গ্রামের নান্দু খান এর ছেলে ঝুম্মন (২৩) এর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। বিয়ের প্রলোভনে এরা দৈহিক মেলামেশার এক পর্যায়ে সাবিনা ৫ মাসের অন্তসত্বায় হয়ে পড়ে। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে গর্ভ নষ্ট করার জন্য সাবিনার উপর চাপ প্রয়োগ করা হয়। বিগত ঈদুল ফিতরের পরপরই হবিগঞ্জ সদরের কোন একটি হাসপাতালে মেয়েটিকে নিয়ে গর্ভপাত করানো হয়। এ নিয়ে গত ১৩ জুলাই লোহাজুড়ী গ্রামে এক সালিশ বৈঠকের আয়োজন করা হয়। উক্ত সালিশ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ওই গ্রামের বিশিষ্ট মুরুব্বী নজরুল ইসলাম খান। সালিশ বৈঠকে ওয়ার্ড মেম্বার আকবর হোসেন, সাবেক মেম্বার উমেদ আলী, ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মকবুল হোসেন খান, জামাল উদ্দিন খান  উপস্থিত ছিলেন। সালিশে কৃত অপরাধের জন্য নান্দু খানের পুত্র ঝুম্মনকে ২৫ হাজার টাকা, তাহের আলীর পুত্র বকুলকে ২৫ হাজার টাকা, আলতু মিয়াকে ৫ হাজার টাকা ও হাসমাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানার ৬০ হাজার টাকা সাবিনাকে প্রদানের সিদ্ধান্ত দেয়া হয়।
এদিকে পঞ্চায়েতের পরপরই সাবিনা বলে বেড়ায় আমার টাকার দরকার নেই, আমাকে বলেছে বিয়ে করবে, এখন টাকা কেন। এটা আমি মানি না। সালিশ বৈঠকের ৩দিনের মাথায় সাবিনা রহস্যজনক ভাবে মারা যায়। গতকাল বিকেলে বানিয়াচং থানার এসআই ফিরোজ আহমেদ সাবিনার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
এ বিষয়ে সালিশ বৈঠকের সভাপতি নজরুল ইসলাম খান এর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি সালিশ বৈঠকের কথা স্বীকার করে এ ঘটনার সাথে জড়িতদের ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে বলেও জানান। এ ধরনের ঘটনা সালিশ যোগ্য নয়, তারপরও আপনি কেন এ বিষয়ে সালিশ করলেন? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, মেয়েটি অত্যন্ত গরীব, তাই আমরা মেয়েটির সার্বিক দিক বিবেচনা করে ৬০ হাজার টাকা তাকে পাইয়ে দিয়েছি, যাতে গরীব মেয়েটা এ টাকাগুলো দিয়ে খেয়ে পড়ে বাঁচতে পারে।
অত্র ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ এরশাদ আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সালিশিয়ানরা আমার কাছে এসেছিলেন, আমি তাদেরকে বলে দিয়েছি এ সালিশ বৈঠকে আমি থাকতে পারবো না। কারন এটা আইনত বৈধ নয়। তিনি আরও জানান, লোক মুখে শুনেছি সালিশ বৈঠকের পরপরই নাকি মেয়েটি বিভিন্ন জায়গায় বলে বেড়িয়েছে আমার টাকার দরকার নাই, আমার ইজ্জত না থাকলে টাকা দিয়ে কি হবে। জনপ্রতিনিধি হিসেবে এ বিষয়টি আপনার কাছে কেমন মনে হয়েছে এমন প্রশ্নের জবাব চেয়ারম্যান এরশাদ আলী আরও জানান, এ ধরনের ঘটনা কখনও কাম্য হতে পারে না। মান ইজ্জতের কারনে মেয়েটি আত্মহত্যা করে থাকতে পারে বলেও তিনি ধারনা করেন।
এ ব্যাপারে বানিয়াচং থানার ওসির সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসার পর এটি হত্যা না আত্মহত্যা এ বিষয়টি জানা যাবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com