সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ০২:৪৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শ্রীমঙ্গলে যুবলীগ নেতা সেলিমের উদ্যোগে সাড়ে ৫শ অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ নবীগঞ্জের বিভিন্ন গ্রামে ড. রেজা কিবরিয়ার পক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ হবিগঞ্জে শেষ হয়েছে ৫দিন ব্যাপি ইয়ূথ এসোসিয়েশন অব ইউকে এর খাদ্য সহায়তা বিতরণ নবীগঞ্জে গৃহহীন দুই বীর সেনা মুক্তিযোদ্ধাকে সেনাবাহিনীর বাসস্থান উপহার আলমগীর চৌধুরীর সৌজন্যে নবীগঞ্জে ১৬৫ পরিবারকে ঈদ উপহার প্রদান নবীগঞ্জে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা “বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ” নেতা রায়হান এর উদ্যোগে ইফতার বিতরণ এখন প্রমান করার সময় মানুষ মানুষের জন্য-মোতাচ্ছিরুল ইসলাম অনাহারী মুখ খাবার তুলে দিচ্ছেন হবিগঞ্জ ছাত্র সমন্বয় ফোরাম বাগুনিপাড়া ডিফেন্স হোল্ডার এ্যাসোসিয়েশন ঈদ উপহার বিতরন
সুতাং এলাকার ৪ মাদ্রাসার ছাত্র নিখোঁজের ২৪ ঘন্টার মধ্যে উদ্ধার

সুতাং এলাকার ৪ মাদ্রাসার ছাত্র নিখোঁজের ২৪ ঘন্টার মধ্যে উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাহুবলে চার শিশু হত্যার শোক কাটতে না কাটতেই এবার হাফিজি মাদ্রাসার নিখোজ ৪ শিশু ছাত্রের সন্ধান পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৩ জন বালিখাল থেকে আর ১ জন স্বেচ্ছায় বাড়ি চলে এসেছে।
শিশুরা হচ্ছে-বাহুবল উপজেলার পশ্চিম শাহাপুর প্রকাশিত চারগাঁও গ্রামের আহমদ রশিদ মনু-এর পুত্র তানভীর রশিদ রাফি (১৩), তার ভাগিনা একই উপজেলার আব্দানারায়ন গ্রামের আব্দুল আহাদের পুত্র ইমতিয়াজ আহমেদ (১২), শায়েস্তাগঞ্জ থানার দরিয়াপুর গ্রামের আব্দুল আওয়ালের পুত্র সুহানুর রহমান (১১) ও নবীগঞ্জ উপজেলার সুজাপুর গ্রামের আব্দুল্লাহর ছেলে আজহারুল ইসলাম নয়ন (১২)। এরা সবাই হবিগঞ্জ সদর উপজেলার শায়েস্তাগঞ্জ থানার সুতাংবাজার এলাকার বাছিরগঞ্জ পূর্ব নোয়াগাঁও হাফিজিয়া মাদ্রাসার আবাসিক ছাত্র। গত শুক্রবার ১১ মার্চ বিকেলে এরা নিখোঁজ হয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, নিখোঁজ ৪ ছাত্র শুক্রবার বিকেলে পাঞ্জাবি বানানোর কথা বলে মাদ্রাসা থেকে বের হয়ে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার শায়েস্তাগঞ্জে যায়। এরপর থেকে তারা রাত পর্যন্ত মাদ্রাসায় যায়নি। বিষয়টি রাতেই মাদরাসার মুহতামিম হাফেজ মোজাক্কির হোসাইন মোবাইল ফোনে ছাত্রদের অভিভাবকদের জানান। এ খবর পাওয়ার পর প্রত্যেক অভিভাবকই সম্ভাব্য সকল স্থানে শিশুদের খোঁজাখুঁজি শুরু করে কোথায় তাদের পাওয়া যায়নি। গতকাল শনিবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে নিখোঁজ শিশু রাফি’র পিতা বাহুবল উপজেলা খেলাফত মজলিসের সাধারণ সম্পাদক আহমদ রশিদ মনু শায়েস্তাগঞ্জ থানায় একটি জিডি করেন।
শিশুরা জানায়, এরা পারাবত ট্রেনে শায়েস্তাগঞ্জ থেকে সিলেট যায়। সেখানে শাহ জালাল (রঃ) এর মাজার জিয়ারত করে। রাতে পুনরায় ট্রেনে করে শায়েস্তাগঞ্জ আসে। সুহানুর রহমান বাড়ি চলে যায়। এবং তানভীর রশিদ রাফি, তার ভাগ্নে ইমতিয়াজ আহমেদকে নিয়ে আজহারুল ইসলাম নয়ন এর ফুফুর বাড়ি বানিয়াচঙ্গ উপজেলার বালিখাল চলে যায়। পরে তাদের আত্মীয় স্বজন খবর পেয়ে তাদের বাড়ি নিয়ে যায়। পরে পুলিশ ৪ শিশুকে তাদের আত্মীয় স্বজনের জিম্মায় দেয়।
এ ব্যাপারে পূর্ব নোয়াগাঁও হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক হাফেজ মওলানা সেলিম আহমদ জানান, শুক্রবার মাদ্রাসা বন্ধ ছিল। জুমআর নামাজের পর থেকে ৪ ছাত্রকে পাওয়া যায়নি। তিনি জানান, স্থানীয়রা ওইদিন বিকেলে তাদের হবিগঞ্জ সদর উপজেলার সুতাং বাছিরগঞ্জ এলাকায় দেখতে পান। এ সময় ছাত্ররা জানায়, তারা শায়েস্তাগঞ্জে পাঞ্জাবি বানানোর জন্য যাচ্ছে। এরপর থেকে তাদের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।
এদিকে  নিখোঁজ হওয়া ৪ শিশুর মধ্যে একজনের পিতা আহমদ রশিদ মনু বলেন, আমার ছেলে রাফি, ভাগিনা ইমতিয়াজ ও তাদের সহপাঠী সুহানুর এবং নয়ন সহ বেশ কিছু শিশু ওই মাদ্রাসার আবাসিক ছাত্র। মাদরাসা কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে থেকে তারা হাফিজি পড়াশুনা করে। গত মঙ্গলবার আমার পুত্র বাড়ি এসেছিল। ওই দিনই বিকেল বেলা আবার চলে যায়।
নিখোঁজ শিশু সাহনুরের বাবা আব্দুল আউয়াল জানান, শুক্রবার বেলা ২টায় তার সাথে ওই শিশুদের শায়েস্তাগঞ্জ নছরতপুর এলাকায় দেখা হয়। এসময় তারা জানিয়েছিল পাঞ্জাবি বানানোর জন্য শায়েস্তাগঞ্জ স্টেশন রোড এলাকায় যাচ্ছে। রাতে মাদ্রাসা থেকে তাকে ফোন করে জানানো হয়, তার ছেলেসহ অন্যরা মাদ্রাসায় ফিরে যায়নি।
এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম জানান, তিনি বিষয়টি শুনেছেন। খতিয়ে দেখার জন্য মাদ্রাসায় পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com