বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৮:১২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
মাধবপুরে দু’মাদক ব্যবসায়ীর কারাদন্ড হবিগঞ্জে শাজাহান খানের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্টিত নবীগঞ্জ-আউশকান্দি সড়কে ট্রাক-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল বৃদ্ধার! “নবীগঞ্জ ইউকে আইসিটি ইন্সটিটিউট” শিক্ষার্থীদের মধ্যে সনদ পত্র বিতরণ নবীগঞ্জের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বাবু মানিক লাল রায়ের ছোট ছেলের বিয়ে সম্পন্ন লন্ডন প্রবাসী মুফতি মিয়া কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির সদস্য নির্বাচিত তাঁতীদল এর ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে হবিগঞ্জ শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ সুরঞ্জিত দাসের বিবাহ সম্পন্ন আন্তর্জাতিক এডভেঞ্চার স্কাউট ক্যাম্পে জেলা যুবলীগ সভাপতির পুত্র সামি’র অংশ গ্রহন অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে শায়েস্তাগঞ্জ রেলব্রীজ এলাকা থেকে যুবক আটক
এক্সপ্রেসে সংবাদ প্রকাশে নবীগঞ্জের ভূমিহীন রহিমা মেম্বার ১২ শতক খাস জমি পেলেন

এক্সপ্রেসে সংবাদ প্রকাশে নবীগঞ্জের ভূমিহীন রহিমা মেম্বার ১২ শতক খাস জমি পেলেন

কিবরিয়া চৌধুরী, নবীগঞ্জ থেকে ॥ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ব্রীজের নিচে বসবাস করা স্থানীয় ভূমিহীন জনপ্রতিনিধি রহিমা খাতুনের খুশির খবর। আত্মপ্রত্যয়ী সংগ্রামী এক সাহসী জনপ্রতিনিধি রহিমা খাতুন এর জীবনযুদ্ধের এক করুণ কাহিনী গত বছরের ১১ ডিসেম্ভর প্রকাশ হয় স্থানীয় পাঠক প্রিয় দৈনিক হবিগঞ্জের জনতার এক্সপ্রেস পত্রিকায়। এই সংবাদে আলোচনায় আসেন রহিমা মেম্বার। চায়ের ষ্টল থেকে শুরু করে প্রশাসন ও বিভিন্ন শ্রেনী পেশার লোকজনের মুখে মুখে আলোচনার বিষয় মেম্বার রহিমা খাতুন। রীতিমত সবার নজরকারে এই অনুন্ধ্যানী প্রতিবেদন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাজিনা সারোয়ার এর উদ্যোগে খাস জমির ১২ শতক জায়গা বরাদ্দ হয়েছে রহিমা খাতুনের নামে। তবে এখনও ওই ভুমি বুঝে পাননি রহিমা খাতুন।
উল্লেখ্য, নবীগঞ্জের আউশকান্দি ইউনিয়নের জালালপুর গ্রামের মকদুছ মিয়ার স্ত্রী। রহিমা খাতুনের দুই ছেলে ও এক মেয়ে। ছেলে মেয়ে বড় হওয়ার আগেই বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েন তার স্বামী। তিনিই পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি ছিলেন। অসুস্থ স্বামী ও অপ্রাপ্ত বয়স্ক ছেলে মেয়ে নিয়ে বেঁচে থাকার তাগিদে দিশেহারা রহিমা অসীম সাহস আর দৃঢ়প্রত্যয়ে নেমে পড়েন ঘটকের কাজে। মাসে দু-একটা বিয়ে সাজিয়ে চলত তার চার সদস্যের সংসার। দু-এক বেলা পান্তাভাত জুটলেও জুটেনি মাথা গোঁজার ঠাই। রহিমা খাতুনের স্বামীর বাড়িঘর না থাকায় মহাসড়কের ব্রিজের নিচে বসবাস করে আসছেন দীর্ঘ ১২ বছর ধরে! দিন রাত হাজার হাজার যানবাহন চলাচলা করছে রহিমা ও তার পরিবারের মাথার ওপর দিয়ে। ১২ বছর ধরে ব্রিজের নিচেই বসবাস করে আসছিলেন তিনি। মধ্য বয়স থেকেই সংসারের দায়িত্ব কাঁধে আসতেই নেমে পড়েন জীবনযুদ্ধে, স্বামী-সন্তানসহ। শুরু থেকেই কোনো উপায় না পেয়ে নেমে পড়েন ঘটকালিতে। এ থেকে দেখা সাক্ষাৎ হতো এলাকার শিক্ষিত মহিলাদের সাথে। গ্রাম এলাকার লোকজনের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ আর বিভিন্ন গ্রামের নারী ও পুরুষের অনুপ্রেরণায় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। নির্বাচনে বিজয়ীও হন। আউশকান্দি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে বিজয়ী হলেও জীবনযুদ্ধে আজো পরাজিত রহিমা। কিন্তু এখন দেখছেন সম্ভাবনার আলো।
ইউপি সদস্য রহিমা খাতুন বলেন, ইউএনও তাজিনা সারোয়ার এর আশু হস্তক্ষেপে তিনি মাথা গোঁজার ঠাঁই পেয়েছেন। এমন অনুসন্ধ্যানী সংবাদ প্রকাশের জন্য দৈনিক হবিগঞ্জের জনতার এক্সপ্রেস পত্রিকাকে ধন্যবাদ জানিয়ে রহিমা খাতুন বলেন, এক্সপ্রেস পত্রিকায় সংবাদ দেখে ইউএনও স্যার আমার পরিবারকে মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিয়েছেন। এর জন্য তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এবং তিনি ঘর বাড়ী নির্মানের জন্য বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।
রহিমা বেগমকে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাজিনা সারোয়ার বলেন, বিষয়টি আগে আমাদেরকে কেউ জানায়নি। আমি গনমাধ্যমে বিষয়টি জেনে খোজঁ খবর নিয়ে রহিমা বেগমকে পূনর্বাসন করার উদ্যোগ নেই। অতঃপর তাকে ১২ শতক খাস জমি বরাদ্দ দিয়েছি এবং এই ১২ শতক ভূমি খুব শীঘ্রই রহিমা খাতুনকে আনুষ্ঠানিকভাবে বুঝিয়ে দেয়া হবে বলে জানান।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com