সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ০৮:১১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
শ্রীমঙ্গলে যুবলীগ নেতা সেলিমের উদ্যোগে সাড়ে ৫শ অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ নবীগঞ্জের বিভিন্ন গ্রামে ড. রেজা কিবরিয়ার পক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ হবিগঞ্জে শেষ হয়েছে ৫দিন ব্যাপি ইয়ূথ এসোসিয়েশন অব ইউকে এর খাদ্য সহায়তা বিতরণ নবীগঞ্জে গৃহহীন দুই বীর সেনা মুক্তিযোদ্ধাকে সেনাবাহিনীর বাসস্থান উপহার আলমগীর চৌধুরীর সৌজন্যে নবীগঞ্জে ১৬৫ পরিবারকে ঈদ উপহার প্রদান নবীগঞ্জে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা “বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ” নেতা রায়হান এর উদ্যোগে ইফতার বিতরণ এখন প্রমান করার সময় মানুষ মানুষের জন্য-মোতাচ্ছিরুল ইসলাম অনাহারী মুখ খাবার তুলে দিচ্ছেন হবিগঞ্জ ছাত্র সমন্বয় ফোরাম বাগুনিপাড়া ডিফেন্স হোল্ডার এ্যাসোসিয়েশন ঈদ উপহার বিতরন
বানিয়াচংয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

বানিয়াচংয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বানিয়াচং উপজেলায় এক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে খেয়াঘাটের ইজারামূল্যের টাকা আত্মসাৎ ও অবৈধভাবে টোল আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বানিয়াচং উপজেলার বানিয়াচং কাদিরগঞ্জ সড়কের মরা কুশিয়ারা নদীর খেয়াঘাটের ইজারামূল্যের টাকা আত্মসাৎ করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান। এ ব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলা প্রশাসন থেকে বার বার তাগিদ দেওয়া হলেও চেয়ারম্যান টাকা জমা দিচ্ছেন না। অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যানের নাম এরশাদ আলী। তিনি বানিয়াচং ৬নং কাগাপাশা ইউপি’র চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারন সম্পাদক। হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্য্যালয়ের ১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ইং তারিখের ১৯-১৩ (২)নং স্মারক সূত্রে জানা যায়, বানিয়াচং কাদিরগঞ্জ সড়কের মরা কুশিয়ারা নদী পারাপারের জন্য সৃজিত খেয়াঘাট ২০১৫ইং হইতে ২০১৭ইং পর্যন্ত মোট তিন বৎসর যাবৎ বিধি বহির্ভূতভাবে ইজারা দিয়ে অর্থ আদায় করছেন চেয়ারম্যান এরশাদ আলী। এবং আদাকৃত টাকা সরকারের কোষাগারে জমা করছেন না। উক্ত স্মারকে আরও উল্লেখ করা হয় যে, উল্লেখিত তিন বৎসরে ইজারা বাবত ৮ লাখ ২৩ হাজার টাকা আদায় করেছেন যা সরকারের কোষাগারে জমা করা হয় নাই। উল্লেখিত স্মারকের পত্রপ্রাপ্তির সাত দিনের মধ্যে টাকা জমা দেওয়ার কথা থাকলেও চেয়ারম্যান ওই টাকা এখনও জমা করেন নাই। এছাড়াও বর্তমানে ইজারা বহির্ভূতভাবে টোল আদায়ের অভিযোগে গতকাল (৭/১০/২০১৯ইং) সোমবার গ্রামবাসী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ প্রদান করেছেন। এ ব্যপারে অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান এরশাদ আলী জানান, আমি ইজারা দেই নাই। এটা এলাকাবাসী জানেন। এ ব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মামুন খন্দকার এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, পাওনা টাকা আদায়ের জন্য চেয়ারম্যানকে লিখিতভাবে পত্র দেয়া হয়েছে, তিনি এখন পর্যন্ত টাকা পরিশোধ করেননি, এ বিষয়ে চেয়ারম্যান একটি লিখিত জবাব দিয়েছেন, আমরা বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছি। এ ব্যাপারে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলেও তিনি এ প্রতিনিধিকে জানান।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com