মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৩:৩১ অপরাহ্ন

বাইপাসে নিজে নিজেই উচ্ছেদ হচ্ছে ব্যবসায়ীরা ॥ সাধুবাদ প্রশাসনকে

বাইপাসে নিজে নিজেই উচ্ছেদ হচ্ছে ব্যবসায়ীরা ॥ সাধুবাদ প্রশাসনকে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যে হাতে গড়া ছিল সেই হাতেই ভাঙ্গা হচ্ছে। সরকারী জায়গায় যারা স্থাপনা নির্মাণ করে দীর্ঘদিন ধরে ভোগ করেছেন এবার অনেকে নিজে নিজেই স্থাপনা ভেঙ্গে উচ্ছেদ হচ্ছেন। বাইপাস সড়কের পাশে রেলের জায়গা লীজ নিয়ে নির্মিত স্থাপনা অনেককেই ভাঙ্গতে দেখা গেছে। বাইপাস সড়কের পাশে রেলের জায়গা লীজ নিয়ে দোকানঘর নির্মাণ করে বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন দীর্ঘদিন ধরে। অনেকে কৃষি লীগ গ্রহণ করে ওই ভূমি মাটি ভরাট করে নির্মান করে স্থাপনা। এতে অনেক স্থানে শহরের পানি নিষ্কাশনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়। সাম্প্রতিককালে রেলের ওই ভূমি বিক্রি করে দেয়া হয় সড়ক বিভাগের নিকট।
এদিকে কোন ভূমি লীজ দেয়ার বিধান না থাকায় রেল থেকে লীজ নেয়া ভূমি ভোগদখলকাররা পড়েন বিপাকে। এদিকে সড়ক বিভাগ তাদের ভূমির দখল ছাড়ার জন্য নোটিশ প্রদান করে দখলকারদের। মৌখিক আলোচনার ভিত্তিতে ব্যবসায়ীরা রাস্তার দু’পাশে ২৫ ফুট করে ভেঙ্গে খালি করে দেন। এর পর কিছুটা হাফ ছেড়ে বসে ব্যবসায়ীরা। এরই মাঝে অতিবৃষ্টির কারণে শহরের সর্বত্র দেখা দেয় জলাবদ্ধতা। এ অবস্থায় পানি নিষ্কাশনের জন্য অবৈধ স্থাপনা গুলো উচ্ছেদে সুশীল সমাজের দাবীর প্রেক্ষিতে তৎপর হয়ে উঠে প্রশাসন। এতে প্রশাসন নড়েছড়ে বসে। আটঘাট বেধে প্রশাসন মাঠে নামে উচ্ছেদে। বাইপাসের উভয় পাশে সড়ক বিভাগের পুরো ভূমিই খালি করে দিতে হবে। ভেঙ্গে ফেলতে হবে সকল স্থাপনা। এদিকে প্রশাসনের তৎপরতা দেখে বাইপাস সড়কের দু’পাশে নির্মিত স্থাপনার মালিকরা নিজেরাই নিজেদের উচ্ছেদে কার্যক্রম শুরু করে। মালিকরা নিজের ঘর নিজেই ভেঙ্গে ফেলছে। এক্ষেত্রে অনেকে মূল্যবান জিনিস পত্র সরিয়ে এবং চালের টিন-লোহা, সাটার, দরজা খুলে নিয়ে গেছেন। বাকী টায় দাড়িয়ে আছে ইটের গাথুনি। তবে গড়টি কতেক ব্যক্তি দেখি ভাগ্যে কি ঘটে এই বলে ঘরের মালামাল সরিয়ে খালি ঘর নিয়ে বসে আছে। যদি বেচে যায় তা হলে পুনরায় ব্যবসা শুরু করবে। এ ক্ষেত্রে প্রশাসন ওই সব দোকান ও অবশিস্ট দোকানের গাথুনি ভেঙ্গে সড়ক বিবাগ তাদের জায়গা বুঝে নিচ্ছে।
মুলত দৃশ্যপটে এটাই প্রতিয়মান হচ্ছে যে, দু’একটি জায়গায় কিঞ্চিত প্রতিবন্ধকতা ছাড়া রেলের লীজ গ্রহীতা স্থাপনার মালিকরা নিজে নিজেই উচ্ছেদ হচ্ছে আর জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় সড়ক বিভাগ তাদের জায়গা বুঝে নিচ্ছে। শহরের জলাবদ্ধতা নিরসন হবে এমন ধারনায় এ উচ্ছেদে শহরবাসীও প্রশাসনের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাচ্ছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com