মঙ্গলবার, ১৮ Jun ২০১৯, ০৩:২১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
স্বপ্নময় যাত্রার নবদিগন্তে ॥ শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আজ ইশতেহার ঘোষণাকালে মেয়র প্রার্থী টিটু নির্বাচন আদৌ সুষ্টু হবে কি-না এ নিয়ে আমি শংকিত ও আতংকিত উইন্ডিজকে উড়িয়ে বাংলাদেশের ইতিহাস সদর উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় এমপি আবু জাহির ॥ আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে অপরাধীর শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে ধুলিয়াখাল-মিরপুর সড়কে কার চাপায় দিনমজুরের প্রাণহানী নবীগঞ্জে ইউসুফ চৌধুরীর উপর দুবর্ৃৃত্তদের হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ॥ দোষীদের চিহ্নিত করতে প্রশাসনকে ৭ দিনে আল্টিমেটাম দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে টিটু’র গণসংযোগ অব্যাহত হবিগঞ্জ পৌর নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী মিজানের গণসংযোগ অব্যাহত বিএনপি নেতা মেয়র প্রার্থী তনু’র গনসংযোগ বাংলাদেশ ছাত্রকল্যাণ ফেডারেশন হবিগঞ্জ জেলা শাখার কমিটি অনুমোদন
লাখাইয়ে হত্যার ৮ মাস পরও মামলার কোন অগ্রগতি হয়নি নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছেন বাদী

লাখাইয়ে হত্যার ৮ মাস পরও মামলার কোন অগ্রগতি হয়নি নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছেন বাদী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ লাখাইয়ের মুড়াকরিতে জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে আব্দুল হাকিম (২৬) নামে ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যার ৮ মাস অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত মামলার কোন অগ্রগতি হয়নি। উল্টো আসামিদের হুমকি-ধামকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে মামলার বাদি ও তার পরিবার। বার বার বাদির উপর হামলা চালাচ্ছে আসামি পক্ষের লোকজন। এ ব্যাপারে মামলার বাদি মোছা. আছমা বেগম নিরাপত্তা চেয়ে তিন দফায় পৃথক তিনটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে লাখাই থানায়। কিন্তু এরপরও পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে অভিযোগ করছেন বাদি আছমা বেগম।
জানা যায়, লাখাই উপজেলার মুড়াকরি গ্রামের আশ্বব আলীর পুত্র তৌহিদ মহুরির সাথে একই গ্রামের মৃত লাল মিয়ার নামীয় জমি নিয়ে তার ছেলে মুশাহিদ মিয়ার সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। বিষয়টি নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বাক-বিতন্ডা হয়। পরে স্থানীয় মাতব্বরা বিষয়টি নিষ্পত্তির উদ্যোগ নেন। কিন্তু তারা বিষয়টি সমাধান করতে পারেননি।
২০১৮ সালের ২২ অক্টোবর সকালে মুশাহিদ মিয়ার বাতিজা আব্দুল হাকিমকে (অহিদ মিয়ার পুত্র) রাস্তায় একা পেয়ে তৌহিদ গংরা অতর্কিত হামলা চালায়। প্রতিপক্ষের লোকজন আব্দুল হাকিমের পেটে টেটাবিদ্ধ করে। এতে আব্দুল হেকিম গুরুতর আহত হন। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক কামরুল হাসান আব্দুল হাকিমকে মৃত ঘোষণা করেন।
এ ঘটনার একদিন পর ২৪ অক্টোবর নিহতের মা মোছা. আছমা বেগম বাদি হয়ে লাখাই থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর আসামিরা এলাকায় ঘুরে বেড়ালো পুলিশ তাদের গ্রেফতার করেনি। পরে চলতি বছরের ১৯ মে ১১ আসামি হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন নেন। পরবর্তীতে আরও ১৬ আসামি হাইকোর্ট থেকে ৪ সপ্তাহের জামিন নেন। জামিনের মেয়াদ শেষ হলে আগামী ১৯ জুন পর্যন্ত জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়। বর্তমানে সকল আসামিই জামিনে রয়েছেন। এদিকে, আসামিরা জামিন আনার পর থেকেই বাদি পক্ষকে মামলা তুলার জন্য বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে। এমনকি একাধিকবার বাদি পক্ষের উপর হামলাও চালিয়েছে আসামি পক্ষের লোকজন। এ ব্যাপারে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে এবং আসামিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে লাখাই থানায় তিন দফায় পৃথক তিনটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন মামলার বাদি আছমা বেগম। এরমধ্যে প্রথম জিডি করেন ২০১৮ সালের ১৫ ডিসেম্বর, ২য় জিডি করেন- চলতে বছরের ২ মার্চ এবং ৩য় জিডিটি করেন চলতে বছরের ৫ জুন।
পৃথক তিনটি জিডির মাধ্যমে নিজেদের জীবনের নিরাপত্তা চেয়েও পাচ্ছেন না বাদি পক্ষের লোকজন। পুলিশ বিষয়টি নিয়ে কোন ধরণের কাজ করছে না বলে অভিযোগ করছেন মামলার বাদি। এমনকি থানায় গিয়ে অভিযোগ দিতে চাইলে উল্টো পুলিশ তাদেরকে গালিগালাজ করছে। এ অবস্থায় বর্তমানেও বাদি পক্ষের লোকজন নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছেন।
বাদি পক্ষের অভিযোগ-তৌহিদ মহুরি প্রকাশ্যে বাদি পক্ষের লোকজনকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছে। মামলা তুলে না নিলে আরও খারাপ কিছু হতে পারে বলেও বিভিন্ন সময় হুশিয়ারি প্রদান করে সে।
তবে বিষয়টি অস্বিকার করলেন লাখাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এমরান হোসেন। তিনি বলেন- ‘বাদি পক্ষের লোকজন নিরাপত্তা চেয়ে তিনটি জিডি করেছে। পুলিশ জিডিগুলো তদন্ত করে দেখছে। সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com