সোমবার, ২৭ মে ২০১৯, ০২:৩২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে উপ-নির্বাচন ॥ আওয়ামীলীগের ৭ ও বিএনপির ১ প্রার্থীর মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ হবিগঞ্জ হাসপাতালে দুদকের হানা বিভিন্ন অনিয়ম ধরা পড়েছে হবিগঞ্জ পৌরসভায় নৌকার মাঝি মিজানুর রহমান মিজান খোশ আমদেদ মাহে রমজান নবীগঞ্জে বিএনপির ইফতার ও দোয়া মাহফিল ॥ খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে গণতন্ত্রের পুনঃরোদ্ধার করতে হবে-শেখ সুজাত চুনারুঘাটে জি.আর ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিনকে সংবর্ধনা শাহ মোজাম্মেল নান্টুর সার্বিক সহযোগিতায় নবীগঞ্জে বিএনপির ইফতার মাহফিল বানিয়াচঙ্গের বড়ইউড়ি ইউনিয়নের দেড় কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা ইউনাইটেড নবীগঞ্জের ইফতার হবিগঞ্জে পিবিআইয়ের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত
শায়েস্তাগঞ্জে হাজী কমপ্লেক্সে আগুন ॥ ২ কোটি টাকার ক্ষতি

শায়েস্তাগঞ্জে হাজী কমপ্লেক্সে আগুন ॥ ২ কোটি টাকার ক্ষতি

শায়েস্তাগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ শায়েস্তাগঞ্জ শহরে আগুনে আট দোকান পুড়ে প্রায় দুই কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এঘটনায় পাঁচ দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।
গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে শহরের দাউদনগর বাজরের হাজী কমপ্লেক্সে এঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
মার্কেটের নৈশপ্রহরী আব্দুল মজিদ বলেন-বিকটশব্দে ঘুম ভাঙ্গতে দেখি শামীম টেলিকম থেকে আগুন বের হচ্ছে। সঙ্গে সঙ্গে আগুন ছড়িয়ে পড়ে পাশের দোকানগুলোতে। এতে বেবি চয়েজ, আফিল ক্লথ ষ্টোর, সিকদার পয়েন্ট, আল আমিন ওয়াচ, শাপলা ইলেক্টনিক্স এ আগুন ধরে যায়।
হাজী কমপ্লেক্সের মালিকের ছেলে হাবিবুর রহমান সৌরভ জানান- মার্কেটের কাপড়ের দোকানগুলোতে ঈদের জন্য লক্ষ লক্ষ টাকার হাট করা হয়েছে। আগুনে কাপড়ের দোকানগুলোর সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে। তন্মধ্যে সিকদার পয়েন্টের ৭০ লক্ষ টাকা, আলিফ ক্লথ ষ্টোরের ৬০ লক্ষ, বেবি চয়েজে ৩০ লক্ষ, শামীম টেলিকমে ৫ লক্ষ, আল আমিন ওয়াচে ৫০ হাজার, শাপলা ইলেক্ট্রনিক্সে ১ লক্ষ টাকার মালামালের পুড়ে ক্ষতি হয়েছে।
শাপলা ক্লথ ষ্টোরের সেল্সম্যান রুস্তম আলী জানান-ঈদের জন্য গত দুইদিন ৩০ লক্ষ টাকার মাল কিনা হয়েছে। আগুনে সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।
বেবি চয়েজের মালিক হারুন মিয়া জানান-তার দোকানের সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। অবশিষ্ট কিছুই থাকেনি আগুনের শিখা থেকে।
মার্কেটের মালিক হাজী জিতু মিয়া জানান-আগুনে মার্কেটের সার্টার, ছাদ, আসবাপত্রের প্রায় ১০-১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
শায়েস্তাগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ আরিফুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন-খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে, তবে ধারণা করা হচ্ছে শামীম টেলিকম অথবা বেবি চয়েজের আইপিএস থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।
তিনি জানান-শায়েস্তাগঞ্জ ফায়ার স্টেশন থেকে দুইটি ও হবিগঞ্জ থেকে তিনটি ইউনিট আগুন নিভাতে কাজ করেছে। আগুনে কোটি টাকার মালামাল পুড়ে ক্ষতি হয়েছে এবং প্রায় ৫ কোটি টাকার মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com