বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০২:৫৪ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
২০ হাজার মানুষের গ্রামে একটি রাস্তাও পাকা নেই ॥ চরম দুর্ভোগ সাবেক মেয়র জিকে গউছের নামে ভূয়া ইউটিউব চ্যানেল ॥ থানায় জিডি নবীগঞ্জে সাংবাদিক আজাদের মায়ের ইন্তেকাল ॥ বিভিন্ন মহলের শোক নবীগঞ্জে বিদ্যুতপৃষ্টে বৃদ্ধের করুন মৃত্যু ইদুর নিধন অভিযান উপলক্ষে নবীগঞ্জে আলোচনা সভা বানিয়াচঙ্গে সাংবাদিকদের সাথে নবাগত ওসি’র মতবিনিময় কারিতাস সিলেট অঞ্চলের উদ্যোগে বিশ্ব সাদাছড়ি নিরাপত্তা দিবস পালন শায়েস্তাগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত কুদরত নিহত ॥ ৬ পুলিশ আহত বাহুবলের সাবেক চেয়ারম্যান মুদ্দত আলীর বিরুদ্ধে মেয়াদোত্তীর্ণ কাগজ দিয়ে মাটি, বালু উত্তোলনের অভিযোগ আজমিরীগঞ্জে ইমামের পিছনে বসা নিয়ে সংঘর্ষ ॥ মহিলাসহ আহত ১০
নবীগঞ্জে বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে মৎস্যজীবীদের হয়রানীর অভিযোগ

নবীগঞ্জে বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে মৎস্যজীবীদের হয়রানীর অভিযোগ

সংবাদদাতা ॥ নবীগঞ্জে বিএনপি নেতা আব্দুর রকিবের বিরুদ্ধে এলাকার মৎস্যজীবী সমিতির সদস্যদের হয়রানীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার মধুমতি মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি’র সভাপতি অক্ষুর সরকার ভূমি মন্ত্রী বরাবরে গত ২৯ আগষ্ট লিখিত অভিযোগে আব্দুর রকিবের হয়রানির বিবরণ তুলে ধরেন। অভিযোগে তিনি বলেন, উপজেলার পাঞ্জারাই গ্রামের আব্দুর রকিব একজন অমৎস্যজীবী। বিভিন্ন পেশার পরিবর্তন ঘটিয়ে বিএনপি সরকার গঠনের পর তিনি জলমহালের ধান্ধায় ব্যস্ত হয়ে পড়েন। তিনি একজন অমৎস্যজীবী হয়েও বিভিন্ন মৎস্যজীবী সমিতি সংগ্রহ করে বেরী বিল, পোয়াভালুয়া বিল, বড় ধুলিয়া বিল, বিবি সেনা বিল, গুলকরা বিল, কলংখা বিল, পারুবাদা, মরকালনী, কাঠমাসহ অসংখ্য বিল সাব লীজ দিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। আব্দুর রকিব কলংখা বিলে সুমাইয়া মৎস্যজীবী সমিতি দিয়ে লীজে অংশ নেন। আবেদনকারী অক্ষুর সরকার তাদের মধুমতি মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি দিয়ে প্রজেক্টে অংশ গ্রহন করেন। মন্ত্রণালয়ের বাছাইয়ে মধুমতি মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি লিমিটেড সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে উপজেলা ও জেলার সুপারিশ পেয়ে বর্তমানে লীজের অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে। কিন্তু এতে ঈর্ষান্বিত হয়ে আব্দুর রকিব প্রথমে মধুমতি মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সাব লীজ নেওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে বিলে ফিশিংয়ে গেলে তার লাইসেন্স করা বন্দুক দিয়ে হত্যার হুমকি দেন। পরে তার পুকুরে মাছ বিষ দিয়ে মেরে অক্ষুর সরকারের সমিতির সদস্যদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন। অথচ আব্দুর রবিকের ফিশারি অক্ষুর সরকারদের বাড়ী থেকে প্রায় ৩০ কিঃমিঃ দূরে অবস্থিত। এতে বলা হয় আব্দুর রকিবের দাপটে এলাকার মৎস্যজীবীরা অতিষ্ঠ। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, আব্দুর রকিব মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির কাগজপত্র তুলে নিজেই সীল স্বাক্ষর দিয়ে হাইকোর্ট ও ডিসি অফিসে আবেদন দিয়ে মানুষকে হয়রানী করছেন। এর প্রতিকার না হলে মৎস্যজীবী ও মৎস্যজীবী সংগঠনগুলো বিলুপ্ত হয়ে যাবে। এ ব্যাপারে আবেদনকারী অক্ষুর সরকার ভূমি মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2013-2019 HabiganjExpress.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com